ক্যারিয়ার গাইডলাইন

পরীক্ষায় বা ক্যারিয়ারে গুছিয়ে লেখার নিয়ম বা লেখালেখির নিয়ম | একঘেয়ামি লেখা থেকে দূরে থাকার উপায়

আমরা সকলেই জানি যে, ধৈর্য না থাকলে ভাল কিছু ভালভাবে শেখা যায় নাতাই ধৈর্য নিয়ে আমার লেখাটা পড়ুন। কারণ লেখাটি একটু বড়। লেখাটি পড়লে আপনার Writing & Reading skill অবশ্যই বাড়বে আমরা অনেকেই অনেক লেখাকে গুছিয়ে লিখতে পারিনা। আবার অনেকেই কম লিখে বা বলে মনে ভাব প্রকাশ করতে পারে। তাই তাঁর কথা সকলেই অনায়াসেই বুঝে ফেলে। কিন্তু আপনি অনর্গল কথা বলেই যাচ্ছেন তবুও আপনার গোছানো কথা না বলার কারণে অনেকেই আপনার কথা বুঝে উঠতে পারছেনা। এমতাবস্থায়, আমি আজ হাজির হয়েছি ইংরেজি বড় বাক্য, অনুবাদ পিডিয়া বড় বড় ইংলিশ বাক্য তৃপ্তিসহ বুঝার ডিকশনারি pdf download, Translation করার নিয়ম, ইংরেজিতে প্রশ্ন করার নিয়ম, প্রশ্নবোধক বাক্য তৈরি করার নিয়ম, ইংরেজি বড় বড় বাক্য লেখার নিয়ম, অনুবাদ অনুশীলন, বাংলা বাক্য থেকে ইংরেজি বাক্য করার নিয়ম। ক্রিয়েটিভ হওয়ার উপায়, বুদ্ধিমত্তা এবং সৃজনশীলতার মধ্যে সম্পর্ক, সৃজনশীলতা কি, সৃজনশীল কাজ কি, সৃজনশীল লেখা কি, সৃজনশীল বিনোদন একটি উদাহরণ দাও, সৃজনশীল শিক্ষা পদ্ধতি মেধা বিকাশে সহায়ক, কাজের ক্ষেত্রে সৃজনশীলতার পরিচয় দাও করার নিয়ম। “পরীক্ষায় বা ক্যারিয়ারে যুক্তিসঙ্গত লেখার সেরা পদ্ধতি | একঘেয়ামি লেখা থেকে দূরে থাকার উপায়” বা গুছিয়ে লেখার নিলেখালেখির নি নিয়ে একটা পরিপূর্ণ পোস্ট। You are here career guideline to write excellent post.

পরীক্ষায় বা ক্যারিয়ারে গুছিয়ে লেখার নিয়ম বা লেখালেখির নিয়ম একঘেয়ামি লেখা থেকে দূরে থাকার উপায়
পরীক্ষায় বা ক্যারিয়ারে গুছিয়ে লেখার নিয়ম বা লেখালেখির নিয়ম একঘেয়ামি লেখা থেকে দূরে থাকার উপায়

 

০১। যেকোন টপিকের বিষয় গুছিয়ে লেখার লেখালেখির নিয়ম ঃ

বিষয় ” is a very controversial topic. There are so many people on both sides of the argument who have really strong points to place. In these regards, I am on the behalf of বিষয় (যেটার পক্ষে আপনি যুক্তি প্রথমে দিবেন).

০২। Why you are agree:

এখানে কমপক্ষে ৪-৫ টা যুক্তি দিবেন, যেটার পক্ষে আপনি আছেন, অপরপক্ষে Why you disagree ২-৩ টা যুক্তি অবশ্যই দিবেন এবং অবশ্যই conjunction ব্যবহার করবেন। (স্থান, কাল ও পাত্র অনুসারে) যেমনঃ In a nutshell, Sooth To Say, Consequently, On the other hand, in point of fact, on the contrary, furthermore ইত্যাদি

০৩। লেখায় Professional style আনাঃ

লেখালেখির নিয়ম এর প্রথমেই লেখার মধ্যে Professional style আনতে হবে। Clause & phrase, participle, Gerund, infinitive, complex sentence, inversion, causative verb ইত্যাদির মারপ্যাঁচ করতে হবে

০৪। লেখায় প্যারা ব্যবহার করাঃ

গুছিয়ে লেখার নি বা লেখা লিখার সময় Para আকারে লিখবেন। একটা লেখা অন্ততপক্ষে ৩টা অংশ থাকে। যথাঃ Starting, main points & Ending.

০৫। সুন্দর করে লেখার শেষাংশ লেখাঃ

গুছিয়ে লেখার নি এর মধ্যে আরেকটি উপায় হচ্ছে অবশ্যই সুন্দর একটা Ending দিবেন। নিচের লেখাটির Ending টা ভালভাবে খেয়াল করুন

অন্য আইডিয়া ফলো করুনঃ 

এবার অন্যদিকে মনযোগ দেওয়া যাক। নিচের বাক্যটিকে খেয়াল করুন।

Q. Maintaining public libraries is a waste of time since digital technology is replacing their function?

তো এই হল প্রশ্ন – এখন আপনার থেকে পক্ষে ও বিপক্ষে মতামত তুলে ধরতে হবে “পাবলিক লাইব্রেরি ও ডিজিটাল টেকনোলজি” র মধ্যে। যাইহোক, এবার শুরু করা যাক………….

Answer:

There discussion about whether “Public libraries & Digital technology” is a very controversial (বিতর্কিত) topic. There are so many people on both sides of the argument who have really strong points to place. In this regard, I am on the behalf of digital technology.

Digital technology has without question changed the way we read and access books and this threatens the role of the public library. My view is that while there is a good argument saying libraries are much less relevant (সম্পর্কিত) nowadays, they still perform an intractable (দুর্দান্ত) function and should be maintained.

At the very outset (শুরুতেই), the advance of online reading technologies and services is one compelling argument in favor of limiting any funding public libraries. It is certainly true that it is now possible to not just buy almost any book you want online through stores such as Amazon, you are also able to borrow books for a small subscription fee from various sites. In point of fact (বাস্তবেই), these online services are generally much more comprehensive (ব্যাপক/ বিস্তীর্ণ) and reliable (নির্ভরযোগ্য) than any provided by a local library where you can often have to wait weeks for the book you want. In these circumstances (এই অবস্থায়), it is quite possible to argue that public libraries are out of date and have been largely overtaken by technology.

On the contrary, some people argue that, notwithstanding (যদিও) this, public libraries do still have some roles to play and it would be a mistake to abolish (ছোট করা) them entirely. One such role is lending books to children and encouraging children to acquire the reading habit books by having schemes that reward them for purpose of borrowing books on a regular basis. Furthermore (তাছাড়া), many parents who are anxious in the context of the amount of screen time their children have would much prefer to visit a library where they can more closely monitor the books their children are taking out. Most enthusiastically, another important role is that public libraries perform is stocking a wide range of reference books and more specialized books that are typically not available via online services. In a nutshell (সংক্ষেপে), while these services may be limited, they still matter and show that libraries still perform a momentous (গুরুত্বপূর্ণ) function.

At the end of my conclusion is a mixed one. On the other hand, it is suavely (সাবলীলভাবে) true that nearly all functions of libraries have been literally replaced by digital technology, but in some areas, namely children’s books and reference books, public libraries do have a role to play. I fervently & strongly believe that what have been discussed so far is accurately stupendous enough to prove the cause.

লেখায় সৃজনশীলতা আনার উপায়ঃ

এই সেকশনে পাবেন ক্রিয়েটিভ হওয়ার উপায়, বুদ্ধিমত্তা এবং সৃজনশীলতার মধ্যে সম্পর্ক, সৃজনশীলতা কি, সৃজনশীল কাজ কি, সৃজনশীল লেখা কি, সৃজনশীল বিনোদন একটি উদাহরণ দাও, সৃজনশীল শিক্ষা পদ্ধতি মেধা বিকাশে সহায়ক, কাজের ক্ষেত্রে সৃজনশীলতার পরিচয় দাও করার নিয়ম। সবসময় একঘেয়েমি লিখা লেখার কারণে আমরা রাইটিং এ ভাল মার্ক্স পাই না৷ এই যে ধরুন, আপনারা দুই বন্ধু একটা মেয়েকে ভালবাসেন৷ আজকে দুইজনেই Propose করবেন৷ প্রথমে আপনি তাকে লিখলেন/ বললেন,

লেখায় সৃজনশীলতা আনার উপায়ঃ
লেখায় সৃজনশীলতা আনার উপায়ঃ

 

I love you.

আবার আপনার বন্ধু লিখল,

To be honestly truthful, I really love you so much from the bottom of my heart for the sake of your unprecedented behavior and work in order to help people predominantly poor children that is always attracted to my lovely mind.

এইবার বলুন কার Proposal ভাল হয়েছে?

ঠিক তদ্রূপ আপনার লেখার মান যদি ভাল না হয় তাহলে পরিক্ষকের মন আপনি আকৃষ্ট করতে পারবেন না, ভাই ও বোনেরা।

এইখানে ১২০টি রুলস দেওয়া হয়েছে বাংলা অর্থসহ। এইগুলো ভালভাবে চর্চা করুন ও লেখার মান আরও ভাল করুন।

বি.দ্রঃ উদাহারণটি বুজানোর জন্য ব্যবহৃত করা হয়েছেছবিগুলো খান মেথড থেকে নেওয়া।

ইংরেজিতে বক্তৃতা শুরু এবং শেষ করতে পারেন,, How you can start and finish your presentation in English.

লেখায় সৃজনশীলতা আনার উপায়- ১:  

Hello everyone. At the beginning of my speech, I would like to thank to Honorable (instructor/moderator/Sir) for giving me a chance to say something today’s selected topic. This is (name). Today my topic is (topic’s name) that…

লেখায় সৃজনশীলতা আনার উপায়- ২:

Thank you, sir/ brother, for calling me here. Hello everybody, good day/evening to you all. Hope all of you are fine and I am also fine. This is (name) I am very glad to be here. Now, I am going to talk about something (topic’s name). Dear friends…..

লেখায় সৃজনশীলতা আনার উপায়- ৩:  

My heartiest thanks who has given me a chance to say something in front of all of you. Hello everyone, Good day/evening to you all. I am (name). everyone has described about (topic’s name). so, I also want to say something about (it/topic’s name) . Dear friends……..

লেখায় সৃজনশীলতা আনার উপায়- ৪:  

That’s all, in regard of the topic for the time being. thank you so much for the purpose of your kind attention. hope to see you again with another awesome topic if Almighty Allah wants. Stay well till then. Allah hafej.

.

লেখায় সৃজনশীলতা আনার উপায়- ৫: শেষ কথাঃ   

In a nutshell, these are all in the subject of it. Thank you very much to all of you with a view to listening my short speech. Stay well.

 

ইংরেজি বাক্য বড় করার টেকনিকঃ

ইংরেজি বাক্য বড় করার টেকনিক
ইংরেজি বাক্য বড় করার টেকনিক

 

এই সেকশনে পাবেন লেখালেখির নিয়ম, ইংরেজি বড় বাক্যঅনুবাদ পিডিয়া বড় বড় ইংলিশ বাক্য তৃপ্তিসহ বুঝার ডিকশনারি pdf download, Translation করার নিয়মইংরেজিতে প্রশ্ন করার নিয়মপ্রশ্নবোধক বাক্য তৈরি করার নিয়মইংরেজি বড় বড় বাক্য লেখার নিয়মঅনুবাদ অনুশীলনবাংলা বাক্য থেকে ইংরেজি বাক্য করার নিয়ম। বিশ্বাস করুন অথবা নাইই করুন, ৬টি ফর্মুলা দিয়ে ইংরেজি বাক্যের সমস্ত জটিলতা দূর করবো। আপনার উচিত হবে এই ঝাকানাকা উপায়গুলি অনুসরণ ও অনুকরণ করে কাজে লাগানো। 

০১। লেখালেখির নিয়ম এ ইংরেজি বাক্য বড় করার টেকনিকঃ

Preposition+ Noun= Prepositional Phrase

Sentence টি লক্ষ্য করুনঃ

I have eaten Chicken with salad at a restaurant beside the beach of Cox’s Bazar on a date of May in 2019 along with the members of my family.

আমি চাইলে I have eaten chicken এখানে Full stop ব্যবহার করে বাক্য শেষ করে দিতে পারতাম। যদি করতাম তাহলে সেটা ক্লাস ফোর ফাইভ এর বইয়ের মত লেখা হত। তাই লেখার মান বাড়ানোর জন্য Preposition+ Noun ব্যবহার করে বাক্যটিকে বড় করেছি। এখানে অনেক Prepositional phrase আছে। যেমনঃ

  • with salad
  • at a restaurant
  • beside the beach
  • of Cox’s Bazar…..

ইত্যাদি ইত্যাদি যার ফলে আমার বাক্যটি বড় হয়েছে। আপনিও এমন অপরুপ বাক্য লিখতে পারবেন এই ফর্মুলা ব্যবহার করে।

এই পদ্ধতি ছাড়া ইংরেজিতে কোন বাক্য বড় করা সম্ভব না। বাক্য বড় করতে হলে এই উপায়েই করতে হবে

২০১৫ সালের বাংলাদেশব্যাংকের সহকারী পরিচালকের পরীক্ষায় আসা বাক্যটি পড়ুনঃ

Again, during the rainy season, this kind of blockage by polythene bag poses interruption on the way of rain water flowing to the drains and it is mainly because of the polythene that many low lying areas of Dhaka city are frequently submerged in water.

এখানে দেখুন বাক্যটি বড় করতে ব্যবহৃত হয়েছে অনেক Prepositional Phrase. এইভাবে আপনিও আপনার লিখার মধ্যে পরিবর্তন আনুন এই থেরাপী ব্যবহার করে।

০২। লেখালেখির নিয়ম এ ইংরেজি বাক্য বড় করার টেকনিকঃ

এখানে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক ২০১২ আসা ইংরেজি বাক্য গুলো দেখে নিন৷

A lack of awareness has created a narrow perception on the CSR among the business houses in the country.

বাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী পরিচালকের ২০১১ সালের পরীক্ষায় নিচের বাক্যগুলি এসেছিল।

With many countries including China forced to restructure their economies, Bangladesh is emerging as a possible supply hub of the world for manufacturing of some labor-intensive products.

আচ্ছা মাত্র ১টি full stop দিয়ে এই বাক্যগুলো এত বড় কিভাবে করল? আপনি কি এভাবে বড় বড় বাক্য লিখতে পারেন? নাকি সেই গতানুগতিক লেখায় লেখান? গতানুগতিক লেখা দিয়ে ভাল চাকরি পাওয়া যাবে না, তা মেনে নিন।

বাক্য বড় ও কঠিন করা যায় দুইভাবে৷

  • Clause & phrase
  • Prepositional phrase

উপরের দুইটি বাক্যকে বড় করা হয়েছে Prepositional Phrase এর সাহায্যে।

তাহলে চলুন, ইংরেজি বাক্য বড় করার জন্য এবার Prepositional phrase এর চৌদ্দগুষ্টি নিয়ে আলোচনা করি

দুটি বাক্য লক্ষ করুন:-

  1. Rahim is my senior in respect of age.
  2. I love Rahima for her eyes.

উপরের দুটো বাক্যে দুটি prepositional phrase-আছে। In respect of এবং for her eyes. দুটি prepositional phrase-এর মধ্যে কি কোনো পার্থক্য চোখে পড়েছে আপনার?

পার্থক্য আছে—

দেখুন তাহলে –

prepositional phrase-মূলত দুই প্রকার

  1. Preposition দিয়ে শুরু, এবং preposition দিয়ে শেষ। যেমন-for the purpose of, in order to, on the ground of – ইত্যাদি। এগুলো-pure prepositional phrase. এদের কোনো প্রকারভেদ নাই
  2. তবে Preposition দিয়ে শুরু noun দিয়ে শেষ। 

এরকম Prepositional phrase দুই প্রকার

যেমন-

  • The girl with red Saree is my wife.
  • Jahida went to the National park.

with red sareeএটা prepositional phrase.

তবে এটা adjective phrase, কিন্তু দ্বিতীয় বাক্যে the National park হল adverbial phrase.

ব্যাখ্যাঃ- adjective phrase এবং adverbial phrase এর মধ্যকার পার্থক্য আশা করি আপনার জানেন।

কোনো phrase যখন Noun/ pronoun কে modify (অতিরিক্ত তথ্য দেয়) করে, তখন সে adjective phrase.

আপনি চাইলে বাক্যটি বড় করতে পারবেন Prepositional Phrase এর সাহায্যে। যেমনঃ

The girl with red saree at the door with talking to my mother about the marriage of my youngest sister is my wife.

আবার যে Phrase -adjective/ verb/ adverb- কে modify করে তখন সে adverbial phrase.

নিয়মঃ verb কে-কোথায়/কখন/কেন/কিভাবে/কার দ্বারা-প্রশ্ন করলে যে উত্তর পাওয়া যায়, তা হচ্ছে adverbial phrase. সুতরাং, adjective adverbial phrase-এর জন্মদাতা হচ্ছে- prepositional phrase.

এইবার আরও একটি উদাহরণ দেখুন

I have gone.

আমি চাইলে এখানে থেমে দিতে পারি, আবার prepositional Phrase দিয়ে বড়ও করতে পারি৷ যেমনঃ

All on a sudden, I have, today, gone to University with Diya by Rickshaw on the road of Mirpur in the time of morning at 9.00 a.m.

প্রিয় শিক্ষার্থী, আজ এই পর্যন্তই। আজ আপনারা পরীক্ষায় বা ক্যারিয়ারে যুক্তিসঙ্গত লেখার সেরা পদ্ধতি | একঘেয়ামি লেখা থেকে দূরে থাকার উপায়” বা গুছিয়ে লেখার নি, লেখালেখির নিনিয়ে একটা পরিপূর্ণ পোস্ট পড়লেন। পরবর্তী পোস্ট পেতে আমাদের সাথেই থাকুন। ধন্যবাদ সকলকে। You are here career guideline to write excellent post.

Related Articles

2 Comments

    1. ভাই, আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ, পোস্ট ভাল লেগে থাকলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করে দেবেন প্লিজ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button