৪৩ তম বিসিএস পরীক্ষার প্রশ্ন ও সমাধান pdf ব্যাখ্যাসহ

৪৩ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ব্যাখ্যাসহ প্রশ্ন ও উত্তর এখানে পাবেন। ৪৩ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র বিশ্লেষণ পেতে ভিজিট করুন। 43 bcs preliminary examination complete question solution with explanation. এখানে পাবেন , ৪৩ তম বিসিএস পরীক্ষার প্রশ্ন ও সমাধান সেট ৪, ৪৩ তম বিসিএস পরীক্ষার প্রশ্ন ও সমাধান সেট ২, ৪১ তম বিসিএস পরীক্ষার প্রশ্ন ও সমাধান, ৪৩ তম বিসিএস প্রশ্ন সমাধান সেট ২, ৪৩ তম বিসিএস পরীক্ষার প্রশ্ন pdf, ৪৩ তম বিসিএস পরীক্ষার সমাধান সেট ২, ৪২ তম বিসিএস পরীক্ষার প্রশ্ন ও সমাধান, ৪৩ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার প্রশ্ন সমাধান এবং ৪৩ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার প্রশ্নের উত্তর পরিপূর্ণ সমাধান পাবেন এখানে। [ads1]

৪৩ তম বিসিএস পরীক্ষার প্রশ্ন ও সমাধান

৪৩ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার আন্তর্জাতিক বিষয়াবলিঃ [ads1]

১। কম্বোডিয়ারাষ্ট্রটি বিরোধপূর্ণ দক্ষিণ চীন সাগরের জলসীমার দাবিদার নয়।

ব্যাখ্যাঃ দক্ষিণ চীন সাগর বর্তমানে অন্যতম আলোচিত এবং বিরোধপূর্ণ এলাকা। দক্ষিণ সাগরের তীরবর্তী দেশসমূহ হলোঃ চীন, তাইওয়ান, ফিলিপাইন, ভিয়েতনাম, মালয়েশিয়া, ব্রুনেই, সিঙ্গাপুর ও ইন্দোনেশিয়া। চীনের সাথে দক্ষিণ চীন সাগরের সীমনা নিয়ে এসব দেশের মধ্যে বিরোধ চলছে। 

২। নাঘু লা পাস ভারত ও চীন দেশকে সংযুক্ত করেছে। 

ব্যাখ্যাঃ নাঘু লা পাস হলাে ভারতের সিকিম থেকে চীনের তিব্বতে যাওয়ার পাহাড়ী পথ। বর্তমানে এই নাঘু লা পাস নিয়ে ভারতের মধ্যে দ্বন্দ্ব হচ্ছে। 

৩। জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্য ১৭ টি। 

২০-২২ জুন ২০১২ রিও+২০ সম্মেলনের টেকসই উন্নয়নের জন্য কৌশল নির্ধারণ করা হয়। এতে ১৭টি অভীষ্ট, ১৬৯টি সহযােগী লক্ষ্য এবং ২৪১টি সূচক নির্ধারিত হয়। SDG এর মেইয়াদকাল ২০১৭ থেকে ২০৩০ সাল পর্যন্ত।

৪। বিশ্ব মানবাধিকার দিবস হলো ১০ ডিসেম্বর। 

ব্যাখ্যাঃ ১৯৪৮ সালে ১০ ডিসেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের তৃতীয় অধিবেশনে সার্বজনীন মানবাধিকার ঘোষণাপত্র গৃহীত হয়। এতে মােট ৩০টি অনুচ্ছেদ রয়েছে। মানবাধিকার বিষয়ক প্রথম বৈশ্বিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় ১৯৬৮ সালে ইরানের তেহরানে। প্রতি বছর ১০ ডিসেম্বর বিশ্ব মানবাধিকার দিবস হিসেবে পলিত হয়ে থাকে।

৫। World Development Report Word Bank এর বার্ষিক সম্পাদনা। 

ব্যাখ্যাঃ ১৯৭৮ সাল থেকে বিশ্বব্যাংক বা International Bank for Reconstruction and Development (IBRD) World Development Report প্রকাশ করে। অর্থনীতি সমাজব্যবস্থা ও জীবনযাত্রার মান এই রিপোর্টে স্থান পায়। অপরদিকে, মানব উন্নয়ন সূচক বা annual Development Index ঘোষণা করে UNDP. World Economic Outlook Purchasing Power Parity (PPP) বা ক্রয়ক্ষমতার সূচক প্রকাশ করে IMF.

৬। ব্যাডমিন্টন ইন্দোনেশিয়ার জাতীয় খেলা। 

ব্যাখ্যাঃ চীনের জাতীয় খেলা টেবিল টেবিল টেনিস, ইংল্যান্ডের জাতীয় খেলা ক্রিকেট, ইন্দোনেশিয়ার জাতীয় খেলা সেপাক টার্কো নামক একটি খেলা যা অনেকটা ব্যাডমিন্টনের মতো, তবে সে খেলায় হাত ব্যবহার করা যায়না। হাতের বদলে এ খেলায় পা দিয়ে খেলা হয়। 

৭। বাংলাদেশ OAS সংস্থার সদস্য নয়। 

ব্যাখ্যাঃ আমেরিকান অঞ্চলের জোট হলো Organization of American States (OAS) এর সদর দপ্তর হলো ওয়াশিংটন ডিসি। এর প্রতিষ্ঠাকাল ১৯৪৮ সাল। এর বর্তমান সদস্য সংখ্যা ৫টি।

৮। চীনের জিনজিয়াং  (Xinjiang) প্রদেশের মুসলিম গোষ্ঠীর নাম হলো উইঘুর। 

ব্যাখ্যাঃ চীনের পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর জিনজিয়াং এর প্রধান দুটি জাতি উইঘুর ও হান। উইঘুর জাতিগোষ্ঠী ইসলাম ধর্মাবলম্বী। সম্প্রতি উইঘুরদের নির্যাতনের জন্য চীন বিশ্বব্যাপী সমালােচিত হচ্ছে। উইঘুরদের জোরপূর্বক কমিউনিস্ট ভাবধারায় দীক্ষিতকরণ এবং কঠোর নির্যাতনসহ মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযােগ উঠেছে চীনের বিরুদ্ধে।

৯। ‘The  lady with the Lamp’ নামে ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল পরিচিত।

ব্যাখ্যাঃ ১৮৫৩ থেকে ১৮৫৬ সাল পর্যন্ত সংঘঠিত ক্রিমিয়া যুদ্ধ সংঘটিত হয়। এর এক পক্ষ ছিলাে রাশিয়া এবং অপর পক্ষে ছিলাে অটোমান সাম্রাজ্য এবং ফ্রান্স ও ব্রিটেন এর সমন্বয়ে গঠিত মিত্র শক্তি। যুদ্ধে রাশিয়ান সাম্রাজ্য পরাজিত হয়। এই যুদ্ধে যােদ্ধাহত মিত্র শক্তির সৈন্যদের অসামান্য সেবা প্রদানের জন্য ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেলকে ‘The Lady with the

Lanp’ উপাধি প্রদান করা হয়।

১০। মিয়ানমারের নির্বাসিত সরকারের নাম হলো ন্যাশনাল ইউনিটি সরকার।

ব্যাখ্যাঃ ১ ফেব্রুয়ারি  ২০২১ মিয়ানমারের সামরিক জান্তা ক্ষমতা দখল করে এবং অং সান সু চির এনএলডি সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করে। সামরিক সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিরােধ আন্দোলন গড়ে তােলার লক্ষ্যে ১৬ এপ্রিল ২০২১ বিরোধীদল ও গোষ্ঠীগুলাের সমন্বয়ে গঠিত হয় জাতীয় ঐক্য সরকার (ন্যাশনাল ইউনিট গভর্নমেন্ট)। এর প্রধান করা হয় অং সান সু চি কে এবং প্রেসিডেন্ট করা হয় উইন মিন্ট কে।

১১। আকাবা একটি সমুদ্র বন্দর।

ব্যাখ্যাঃ আকাবা হলাে জর্ডানের একমাত্র সমুদ্র বন্দর।

১২। Trafalgar Square-এর অবস্থান ইংল্যান্ডে।

ব্যাখ্যাঃ Trafalgar Square লন্ডনের কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত একটি স্কয়ার। এখানে রাজনৈতিক সভা সমিতি অনুষ্ঠিত হয়। ১৮০৫ সালে সংঘটিত ব্রিটিশ নৌবাহিনী ফ্রান্সের বিরুদ্ধে বিখ্যাত ট্রাফালগারের যুদ্ধে জয়কে স্মরণীয় করে রাখতে এ নামকরণ করা হয়।

১৩। নিম্নের কোনটি বা আসিয়ান আঞ্চলিক ফোরাম (ARF) জাতিসংঘের সংস্থা নয়?

(ক) আসিয়ান আঞ্চলিক ফোরাম (ARF) (খ) আঞ্চলিক শ্রম সংস্থা (ILO) (গ) আন্তর্জাতিক কৃষি উন্নয়ন তহবিল (IFAD) (ঘ) খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (FAO).

উত্তরঃ (ক) আসিয়ান আঞ্চলিক ফোরাম (ARF)।

ব্যাখ্যাঃ জাতিসংঘের সহযােগী সংস্থা হলাে আঞ্চলিক শ্রম সংস্থা (ILO), আন্তর্জাতিক কৃষি উন্নয়ন তহবিল (IFAD), খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (FAO)। অন্যদিকে দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সংস্থা আসিয়ান আঞ্চলিক ফোরাম (ARF)। এর সদস্য সংখ্যা ২৭টি।

১৪। ইরান-ইরাক যুদ্ধবিরতিত্ব তদারকির কাজে নিয়োজিত জাতিসংঘের বাহিনী UNIMOG  নামে পরিচিত ছিল।

ব্যাখ্যাঃ ১৯৮৮ সালে ইরাক-ইরান যুদ্ধ বন্ধে জাতিসংগ United Nations Iran-Iraq Military Observer Group (UNIIMOG) প্রেরণ করে। এই শান্তিরক্ষী মিশনে বাংলাদেশ প্রথমবারের মতাে ১৫ জন সদস্য প্রেরণ করে আনুষ্ঠানিকভাবে শান্তিরক্ষী মিশন কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করে।

১৫। আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবস ১৫ সেপ্টেম্বর তারিখে পালিত হয়।

ব্যাখ্যাঃ ১৫ সেপ্টেম্বর আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবস, ১৬ সেপ্টেম্বর বিশ্ব ওজোন স্তর রক্ষা দিবস, ১৫ অক্টোবর বিশ্ব সাদা ছড়ি দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

১৬। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল-এর প্রধান কার্যালয় জার্মানিতে।

ব্যাখ্যাঃ ১৯৯৩ সালে জার্মানির বার্লিনে প্রতিষ্ঠিত হয় ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল। এর উদ্দেশ্য হলাে বিশ্বব্যাপী দুর্নীতি বিরােধী প্রচারণা, দুর্নীতি হ্রাসে কার্যক্রম পরিচালনা ও তথ্য প্রদান করা। ডেলিয়া ফেরেইবা রবিও হচ্ছে এর বর্তমান চেয়ারম্যান।

১৭। চীন থেকে ক্রয়কৃত বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ডুবােজাহাজ দুটি নিম্নোক্ত মিং-ক্লাশ শ্রেণির।

ব্যাখ্যাঃ ২০০৪ সালে বাংলাদেশ প্রথম সাবমেরিন ক্রয় করার জন্য জার্মানির সাথে চুক্তি করে। উদ্দেশ্য ছিলাে সমুদ্র অর্থনীতির সুরক্ষা এবং নিজেদের সামুদ্রিক জলসীমায় প্রতিরক্ষা সক্ষমতা বাড়ানাে। এজন্য জার্মানি থেকে সৈন্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। কিন্তু রাজনৈতিক পট পরিবর্তনের কারণে উক্ত পরিকল্পনা বাদ যায়। ২০১২ সালে নতুন করে চীনের কাছ থেকে ২টি মিং-ক্লাস সাবমেরিন ক্রয় করার চুক্তি করা হয়। এই চুক্তি অনুসারে ২০১৯ সালে বিএনএস জয়যাত্রা এবং বিএনএস নবযাত্রা নামে দুটি সাবমেরিন বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে যুক্ত হয়। এর ঘাঁটি কক্সবাজারে অবস্থিত। ফোর্সেস গােল ২০৩০ অনুসারে আরাে ৪টি অ্যাটাকিং ক্লাস সাবমেরিন ক্রয়ের চুক্তি করা হয়েছে।

১৮। United Nations Framework Convention on Climate Change-এর মূল আলোচ্য বিষয় হলো  গ্রিন হাউস গ্যাসের নিঃসরণ ও প্রশমন।

ব্যাখ্যাঃ ১৯৯২ সালের ৯ই মে গঠিত হয় United Nations Framework Convention on Climate Change (UNFCCC) যা ১৯৯৪ সালে কার্যকর হয়। বৈশ্বিক গ্রিনহাউস গ্যাসের নিঃসরণ হ্রস ও প্রশমনের লক্ষ্যে UNFCCC প্রতিবছর Conference of the Parties (COP) সম্মেলন আয়োজন করে আসছে।

১৯। মায়া সভ্যতাটি আবিস্কৃত হয় মধ্য আমেরিকায়।

ব্যাখ্যাঃ খ্রিস্টপূর্ব ১০০০ অব্দে মধ্য আমেরিকার মেক্সিকো এবং গুয়েতমালা অঞ্চলে মায়া সভ্যতা গড়ে ওঠে। বিখ্যাত চিচেন ইৎজা মায়া সভ্যতার অন্যতম নিদর্শন। বিশ্বের সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ এবং সাংস্কৃতিকভাবে গতিশীল ছিলাে এই মায়া সভ্যতা।

২০। জিবুতি দেশটি এডেন উপসাগরের পাশে অবস্থিত।

ব্যাখ্যাঃ এডেন উপসাগরের পশ্চিম উপকূলে অবস্থিত জিবুতি, সােমালিয়া, ইথিওপিয়া এবং ইরিত্রিয়া। এদেরকে হর্ন অফ আফ্রিকা বলা হয়। জিবুতিতে চীনের কৌশলগত গুরুত্বপূর্ণ নৌ-ঘাঁটি রয়েছে।

৪৩ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ভূগােল, পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রশ্ন ও উত্তরঃ

নিচে ৪৩ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ভূগােল, পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রশ্ন ও উত্তর নিয়ে আলোচনা করা হলো।

২১। মায়ানমার দেশটির সাথে বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক সীমানা রয়েছে।

ব্যাখ্যাঃ ভারত এবং মায়ানমারের সাথে বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক সীমানা রয়েছে। বাংলাদেশের উত্তরে পশ্চিমবঙ্গ, মেঘালয় ও আসাম এবং পূর্ব ভারতের আসাম, ত্রিপুরা ও মিয়ানমারের আরাকান (বর্তমান নাম- রাখাইন রাজ্য) ও চিন প্রদেশ, পশ্চিমে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ এবং দক্ষিণে রয়েছে বঙ্গোপসাগর।

২২। বাংলাদেশের উত্তর পূর্বাঞ্চলে আকস্মিক বন্যা হয়।

ব্যাখ্যাঃ বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্ব, উত্তর ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলের পাহাড়সমূহকে টারশিয়ারি যুগের পাহাড় বলা হয়। এই অঞ্চল এরকম পাহাড় বিশিষ্ট হওয়ায় পাহাড়ি ঢলের কারণে এই অঞ্চলগুলােতে আকস্মিক বন্যা দেখা যায়।

২৩। বাংলাদেশের দিনাজপুর জেলাটি কয়লা সমৃদ্ধ।

ব্যাখ্যাঃ দিনাজপুরের দক্ষিণ অঞ্চলের নবাবগঞ্জ উপজেলার দিঘি পাড়া কয়লা খনিটি ১৯৯৫ সালে বাংলাদেশ ভূতাত্ত্বিক জরিপ অধিদপ্তর জরিপ চালিয়ে আবিষ্কার করে এবং ৫টি কূপ খনন করা হয়। ৫টি কূপে ৫০০ মিলিয়ন টন কয়লা মজুদ রয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে জরিপ বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন। এছাড়াও বড়পুকুরিয়া, মধ্যপাড়াতেও কয়লা খনি রয়েছে।

২৪। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে ভূমিকম্প দুর্যোগটির ঝুঁকি বৃদ্ধি পেয়েছে।

ব্যাখ্যাঃ বাংলাদেশ একটি দুর্যোগপ্রবণ দেশ। প্রতিবছরই নিয়মিতভাবে এদেশে বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ আঘাত হানে। তবে সম্প্রতি বাংলাদেশে ভূমিকম্প দূর্যোগটি বেশি লক্ষ করা যাচ্ছে।

২৫। বন্যা হলো hydro-meteorological দুর্যোগ হিসেবে পরিচিত।

ব্যাখ্যাঃ hydro-meteorological” দুর্যোগ হলো আবহাওয়াজলবায়ুগত বা সামুদ্রিক দুর্যোগ। দুর্যোগগুলাে হচ্ছে: বন্যা, খরা, মৌসুমী ঘূর্ণিঝড়, ভূমিধস বা পলিক্ষয়। অপশনে উল্লেখিত সবগুলােই ‘hydro-meteorological’ দুর্যোগ।

২৬। ম্যানগ্রোভ বনাঞ্চল প্রতিনিয়ত লবণাক্ত পানি দ্বারা প্লাবিত হয়।

ব্যাখ্যাঃ বাংলাদেশে অবস্থিত সুন্দরবন বিশ্বে একক বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ বন যা ইউনেস্কো ঘােষিত ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট হিসেবে বিশ্বের বুকে পরিচিত। এটি প্রাকৃতিক সপ্তাশ্চর্য হিসেবেও মনােনীত হয়। এটি প্রতিনিয়ত সাগরের জোয়ার ভাটায় লবণাক্ত পানি দ্বারা প্লাবিত হয়।

২৭। নিম্নের কোন উপজেলাটি সবচেয়ে নদীভাঙ্গন-প্রবণ?

(ক) বােয়ালমারী (খ) নড়িয়া (গ) আলমঠাঙ্গা। (ঘ) নিকলি

উত্তর: (খ) নড়িয়া।

ব্যাখ্যাঃ নড়িয়া উপজেলা শরীয়তপুর জেলার পদ্মা নদীর তীরে অবস্থিত। পদ্মা নদীর তীরে অবস্থিত হওয়ার প্রতি বছর ব্যাপক ভাঙনের কবলে পতিত হয়।

২৮। বাংলাদেশের সেন্ট মার্টিন দ্বীপটি প্রবাল দ্বীপ নামে খ্যাত।

(ক) নিঝুমদ্বীপ (খ) (গ) হাতিয়া (ঘ) কুতুবদিয়া

ব্যাখ্যাঃ সেন্ট মার্টিন দ্বীপ বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত। এটি বাংলাদেশের মূল ভূখণ্ড থেকে প্রায় ২৩ মাইল বা ৩৯ কিলােমিটার দূরে অবস্থিত। এর আয়তন ৮ বর্গকিলােমিটার। এই দ্বীপে প্রচুর সামুদ্রিক প্রবাল পাওয়া যায় তাই এটিকে প্রবাল দ্বীপ বলা হয়। স্থানীয়ভাবে এই দ্বীপ নারিকেল জিঞ্জিরা নামে পরিচিত।

২৯। বাংলাদেশের  কুমিল্লাতে প্লায়োস্টোসিন কালের সােপান দেখা যায়।

ব্যাখ্যাঃ আনুমানিক ২৫০০০ বছর পূর্বে প্লাসিস্টোসিন কালের সােপানসমূহ উত্থিত হওয়ার সময় এই উঁচু ভূমি গঠিত হয়। উত্তর পশ্চিমাংশের বরেন্দ্রভূমি, মধ্যভাগের মধুপুর ও ভাওয়ালে পড় এবং কুমিল্লা জেলার লালমাই পাহাড় বা উচু ভূমি এ অঞ্চলের অন্তর্গত।

৩০। সােয়াচ অব নাে গ্রাউন্ড কী কাকে বলে?

ব্যাখ্যাঃ সােয়াচ অব নাে গ্রাউন্ড হলো সুন্দরবনের দুবলার চর থেকে সামান্য দক্ষিণে অবস্থিত সােয়াচ অব নাে গ্রাউন্ড বা গঙ্গাখাত। এটি বঙ্গোপসাগরের গভীরতম খাত। এর গভীরত্ব প্রায় ৯০০ মিটার।

৪৩ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার সাধারণ বিজ্ঞান ও কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তির প্রশ্ন ও উত্তরঃ

৪৩ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার সাধারণ বিজ্ঞান ও কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তির প্রশ্ন ও উত্তর বিস্তারিত আলোচনা করা হলো। [ads1]

৩১। প্রােটিন তৈরি হয় অ্যামিনাে এসিড দিয়ে।

ব্যাখ্যাঃ প্রােটিন (Protein) হল এক প্রকারের বৃহৎ জৈব অণু কিংবা বৃহদাণু, যা এক বা একাধিক দীর্ঘ অ্যামিনাে অ্যাসিডের শৃঙ্খল নিয়ে গঠিত। প্রােটিনগুলি জীবদেহের ভেতরে বিশাল সংখ্যক কার্য সম্পাদন করে, যেমন বিপাকীয় বিক্রিয়াসমূহের অনুঘটন, ডিএনএ প্রতিলিপিণ, উদ্দীপকের প্রতি সাড়াদান, কোষ ও জীবদেহে কাঠামাে প্রদান, এক স্থান থেকে অন্যত্র বিভিন্ন অণু পরিবহন, ইত্যাদি।

৩২। কোভিড-১৯ RNA ভাইরাস।

ব্যাখ্যাঃ কোভিড-১৯ একটি RNA ভাইরাস। এর নিউক্লিওক্যাপসিড সর্পিলাকৃতির। এর জিনােমের আকার সাধারণত ২৭ থেকে ৩৪ কিলাে বেসপেয়ার এর মধ্যে হয়ে থাকে যা এ ধরনের RNA ভাইরাসের মধ্যে সর্ববৃহৎ।

৩৩। একটি আদর্শ তড়িৎ উৎসের অভ্যন্তরীণ রােধ শূন্য।

ব্যাখ্যাঃ কোষের ভেতর দিয়ে তড়িৎ প্রবাহ চলার সময় কোষের অভ্যন্তরস্থ তরল ও অন্যান্য পদার্থ তড়িৎ প্রবাহকে সে বাধা প্রদান করে তাকে কোষের অভ্যন্তরীণ রােধ বলে। একটি আদর্শ তড়িৎ উৎসের অভ্যন্তরীণ হলো শুন্য।

৩৪। RFID বলতে Radio Frequency Identification কে বােঝায়।

ব্যাখ্যাঃ আরএফআইতি (RFID) এর পূর্ণরপ হচ্ছে Radio Frequency Identification. RFID হচ্ছে ক্রেডিট কার্ডের মত পাতলা এবং ছোট একটা ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস যেটায় খুব ছােট একটি চিপ আর একটি কয়েল ও এ্যান্টেনা থাকে। চিপটি সাধারণত সর্বোচ্চ ২০০০ বাইট তথ্য ধারণ করতে পারে।

৩৫। অপটিক্যাল ফাইবারে মাধ্যমে আলাের পালস্ ব্যবহৃত হয়।

ব্যাখ্যাঃ অপটিক্যাল ফাইবারের কোরের ভিতর দিয়ে আলাে যাবার সময় তা বার বার প্রতিফলিত হয়ে আলাের বেগে চলতে থাকে। এভাবে বরাবরই সব জায়গায় প্রতিফলিত হয়ে এর ভিতর দিয়ে আলাের সিগনাল (ডেটা) স্থানান্তরিত হয়।

Read More :   বিসিএসআইআর প্রশ্ন সমাধান ২০২২ সম্পূর্ণ ইউনিক প্রশ্ন সমাধান

৩৬। জারণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয় অ্যানােডে।

ব্যাখ্যাঃ অ্যানােড হল সেই ইলেকট্রোড যেখানে জারণ বিক্রিয়া সংঘটিত হয় অর্থাৎ গ্যালভানিক কোষে জিঙ্ক ইলেকট্রোড একটি অ্যানােড। কপায় ইলেকট্রোডে গৃহত দুটি ইলেট্রন দ্রবণে গিয়ে একটি Cu২ আয়নের সাথে যুক্ত হয়ে কপার অণু গঠন করে যা Cu ইলেকট্রডে যুক্ত হয়।

৩৭। পানির অণু একটি ডায়াচুম্বক।

ব্যাখ্যাঃ যে সকল পদার্থকে চৌম্বকক্ষেত্রে স্থাপন করা হলে চুম্বকায়নকারী ক্ষেত্রের বিপরীত দিকে সামান্য চুম্বকত্ব লাভ করে তাদেরকে ডায়াচৌম্বক পদার্থ বলে। ডায়চৌম্বক পদার্থের আচরণ তাপমাত্রা ওপর নির্ভ করে না। তমা, দস্তা, বিসমাথ, রুপা, সেনা, সীসা, কাচ, মার্বেল, পানি, হিলিয়াম, আর্গন প্রভৃতি ডায়াচৌম্বক পদার্থের উদাহরণ।

৩৮। ১৭/৮ O আইসােটোপের নিউট্রন সংখ্যা হলো ৯।

ব্যাখ্যাঃ কোনাে প্রমাণুতে উপস্থিত প্রোটন সংখ্যা (Z) ও নিউটন সংখ্যার (n) যােগফলকে ঐ পরমাণুর ভরসংখ্যা (A) বলে। যেহেতু ভরসংখ্যা হলাে প্রােটিন সংখ্যা ও নিউট্রন সংখ্যার যােগফল, কাজেই সংখ্যা থেকে প্রোটন সংখ্যা বিয়ােগ করলে নিউট্রন সংখ্যা পাওয়া যায়। প্রশ্নানুযায়ী অক্সিজেনের (O) ভরসংখ্যা হলাে 17, এর প্রােটন সংখ্যা 8, ফলে এর নিউট্রন সংখ্যা হচ্ছে A-Z = 17 – 8 = 9.

৩৯। স্মলপক্স রােগটি DNA ভাইরাসঘটিত।

ব্যাখ্যাঃ স্মলপক্স বা গুটিবসন্তু একটি দ্বি-সূত্ৰক DNA ভাইরাস যা হােস্ট কোষের সাইটোপ্লাজমে প্রতিলিপন করে।

৪০। হৃদযন্ত্রের সংকোচন হওয়াকে সিস্টল বলা হয়।

ব্যাখ্যাঃ হৃদপিণ্ড অনবরত সংকোচন-প্রসারণের মাধ্যমে রক্ত প্রবাহকে ক্রমাগত সঞ্চালন করে। হৃদপিণ্ড যখন সংকুচিত হয় তখন রক্ত চাপের ফলে ধমনীতে প্রবেশ করে। আবার প্রসারিত হলে রক্ত ধমনী থেকে হৃদপিণ্ডে ফিরে আসে। হৃদপিণ্ডের প্রসারণকে বলা হয় ডায়াস্টল এবং সংকোচন কে বলা হয় সিস্টল। সিস্টল অবস্থায় রক্তের চাপকে বলা হয় সিস্টল চাপ।

৪১। @ চিহ্নটি ই-মেইল ঠিকানায় অবশ্যই থাকবে।

ব্যাখ্যাঃ ই-মেইল তথা ইলেক্ট্রনিক মেইল হলাে বার্তা যা কম্পিউটার নেটওয়ার্কের মাধ্যমে প্রেরণ করা হয়। অ্যাট চিহ্ন প্রত্যেকটি SMTP- ই মেইলের অত্যাবশ্যকীয় অংশ অথবা, ই-মেইল ঠিকানা দুইটি অংশে বিভক্ত। প্রথম অংশটি হলাে ব্যবহাকারীরর নাম। তার পরে থাকে সংশ্লিষ্ট ব্যবহাকারীর প্রতিষ্ঠানের নাম। যেমন: zillur@gmail.com-এই ঠিকানাটিতে zillur হলাে ব্যবহারকীরর নাম, gmail.com হলাে ব্যবহাকারীর মেইল সার্ভিস প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের নাম google।

৪২। প্রাকৃতিক গ্যাসের প্রধান উপাদান হলাে মিথেন।

ব্যাখ্যাঃ প্রাকৃতিক গ্যাসের মূল উপাদান মিথেন হলেও এর সাথে অল্প পরিমাণ অন্যান্য প্যারাফিন হাইড্রোকার্বন যেমন ইথেন, প্রােপেন, বিউটেন, পেল্টেন, হেক্সেন ইত্যাদি থাকে। এছাড়া আরও থাকে নাইট্রোজেন, কার্বন ডাই অক্সাইড ও হাইড্রোজেন সালফাইড।

৪৩। ট্রপিক্যাল সাইক্লোন সৃষ্টির জন্য সাগরপৃষ্ঠের ন্যূনতম ২৬.৫ ডিগ্রী সে. তাপমাত্রা হওয়া প্রয়োজন।

ব্যাখ্যাঃ সাইক্লোন সৃষ্টির মূল দুটি কারণ হলাে: (১) গভীর সমুদ্রের পানির উচ্চ তাপমাত্রা ও (২) সমুদ্রের বায়ুমণ্ডলের নিম্নচাপ সৃষ্টি। ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টির জন্য সমুদ্রের জলের তাপমাত্রা কমপক্ষে ২৬-২৭ ডিগ্রী সেলসিয়াস থাকা আবশ্যক এবং একটি নির্দিষ্ট গভীরতা (কমপক্ষে ৫০ মিটার পর্যন্ত এ তাপমাত্রা থাকতে হয়।

৪৪। নিচের কোনটি antivirus সফটওয়্যার হবেনা?

(ক) Oracle (খ) McAfee (গ) Norton (ঘ) Kaspersky

উত্তরঃ (ক) Oracle

ব্যাখ্যাঃ McAfee, Norton, Kaspersky. AVG, Avira, Panda, AVAST, Symantec. Cobra, ইত্যাদি বিভিন্ন ধরনের antivirus সফটওয়্যার। অপরদিকে Oracle ডেটাবেজ হলাে একটি একটি সর্ববৃহৎ ডেটাবেজ নির্মাতা কোম্পানী। Oracle ডেটাবেজ প্রােগ্রাম একটি সর্বাধিক শক্তিশালী ডেটাবেজ প্রােগ্রাম হিসেবে পৃথিবীর সর্বত্র ব্যবহার করা হচ্ছে।

৪৫। সালােকসংশ্লেষণে সূর্যের আলোর রাসায়নিক শক্তিতে পরিণত করার কর্মদক্ষতা হলাে ৩%-৬%।

ব্যাখ্যাঃ গাছপালার সালােকসংশ্লেযণে সাধারণত ৩-৬% এর আলােক সংশ্লিষ্ট দক্ষতার সাথে সূর্যালােকের রাসায়নিক শক্তিতে রূপান্তর করে।

৪৬। ১০১১১৩ বাইনারি নাম্বারের সমতুল্য ডেসিমাল নাম্বার হলো ৪৬।

ব্যাখ্যাঃ ১০১১১০ = ১x২^৫+০x২^৪ +১x২^৩+১x২^+১x২^১x২°+ = ৩২ +০+৮+ ৪ +২+০=৪৬।

৪৭। DNS সার্ভারের কাজ হচ্ছে Domain nameকে IP address- এ পরিবর্তন করা।

ব্যাখ্যাঃ DNS (Domain name system) হলো এমন একটি প্রযুক্তি যা ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের বিভিন্ন ওয়েবসাইট এবং ইন্টারনেটের বিভিন্ন ওয়েসাইট এবং ইন্টারনেটের অন্যান্য স্থানে পরিচালিত করে. এর কাজ হচ্ছে Domain Name কে IP Address এ পরিবর্তন করা।

৪৮। Modem ডিভাইসটি ডিজিটাল সিগন্যালকে অ্যানালগ সিগন্যালে পরিবর্তনে ব্যবহৃত হয়।

ব্যাখ্যাঃ ডিজিটাল সংকেতকে অ্যানালগ সংকেতে পরিবর্তনের প্রক্রিয়াকে মডুলেশন (Modulation) বলে। অ্যানালগ সংকেতকে ডিজিটাল সংকেতে রূপান্তরের প্রক্রিয়াকে ডিমডুলেশন বলে। প্রেরক বা প্রাপক হিসাবে ব্যবহৃত যে ডিভাইস বা যন্ত্র ডেটা কমিউনিকেশন সিস্টেমে মডুলেশন ও ডিমডুলেশন প্রক্রিয়ার সাহায্যে উৎস ও গন্তব্যের মধ্যে ডেটা আদান-প্রদান করে তাকে মডেম বলা হয়। মডেম একটি ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস যা ইনপুট বা আউটপুট হিসাবে ব্যবহৃত হয়। মডেম শব্দটি মডুলেটর-ডিমডুলেটরের (Modulator Demodulator) সংক্ষিপ্ত রূপ। মডুলেটর ডিজিটাল সংকেতকে অ্যানালগ সংকেতে পরিবর্তন করে এবং এই কাজের জন্য এতে একটি ডেক (DAC-Digital to Analog Converter) নামক চিপ বা সার্কিট থাকে।

৪৯। নিচের কোনটি output device নয়?

(ক) monitor (খ) microphone (গ) printer (ঘ) speaker

উত্তরঃ (খ) microphone,

ব্যাখ্যাঃ কয়েকটি input device হচ্ছে- Speaker, Monitor Printer, Plotter, Light pen, Toth 9933410 input device হচ্ছে- Keyboard, Mouse, Scanner, Light Pen. Trackball, Touch Pad, Microphone, Web Camera, Joystick. OCR, OMR, BCR, MIRC ইত্যাদি।

৫০। URLএকটি প্রতিষ্ঠানের ওয়েব ঠিকানাকে নির্দেশ করে।

ব্যাখ্যাঃ Uniform Resource Locator অথবা (URL বা ওয়েব ঠিকানা ইন্টারনেটের মাধ্যমে কোন বিশেষ ওয়েবসাইটে পৌঁছানাের জন্য ব্যবহৃত একটি বিশেষ কোড।

৫১। নিচের কোনটি Open Source DBMS? 

(ক) MySQL (খ) Microsoft SQL Server (গ) Microsoft Access (ঘ) Oracle উত্তরঃ (ক) MySQL, ব্যাখ্যাঃ কয়েকটি Open Source Database management System এর নাম উল্লেখযােগ্য: MySQL, PostgreSQL, SQLite, Apache Cassandra, InterBase. PouchDB Dnizzle etc. A Microsoft SQL Server 2001 মাইক্রোসফট দ্বারা নির্মিত একটি ডেটাবেস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম। Microsoft Access হলাে একটি ডেটাবেস প্রোগ্রাম এবং (Oracle ডেটাবেজ হলাে একটি সর্ববৃহৎ ডেটাবেস নির্মাতা কোম্পানী।

৫২। নিচের Job Scheduling Policy সমূহের মধ্যে কোনটি Starvation থেকে মুক্ত? 

(ক) Priority Scheduling (খ) Shortest Job First (গ) Youngest Job First (ঘ) Round-robin উত্তরঃ (গ) Round-robin. ব্যাখ্যাঃ Round-robin হলো scheduling algorithm যেখানে প্রতিটি প্রসেস চক্রাকারে একটি নির্দিষ্ট টাইম অনুযায়ী সম্পন হয়। এটি সাধারণ, প্রয়ােগ করাও সহজ এবং Starvation থেকে মুক্ত। 

৫৩। নিচের কোন প্রযুক্তি Face Recognition System – এর সহায়ক ভূমিকা পালন করে? 

(ক) Applied Artificial Intelligence (AI) (খ) Applied Internet of Things (IoT) (গ) Virtual Reality (ঘ) উপরের কােনটিই নয়উত্তরঃ (ক) Applied Artificial Intelligence (AI). ব্যাখ্যাঃ মানুষের মুখমণ্ডল সনাক্তকরণ বা ফেইস রিকোগনিশন সিস্টেম হচ্ছে এক ধরনের কম্পিউটার প্রােগ্রাম যার সাহায্যে মানুষের মুখের গঠন প্রকৃতি পরীক্ষা করে তাকে সনাক্ত করা হয়। সন্দেহভাজন কোন ব্যক্তিকে সনাক্তকরণে, বিল্ডিং বা কক্ষের প্রবেশদ্বারে পাহারা দেওয়ার কাজে এবং কোন ব্যক্তি আইডি নম্বর সনাক্তকরণে এই পন্ধতি ব্যবহার হয়। Applied Artificial Intelligence (AI) Face Recognition System এর ক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। 

৫৪। যে সাইবার আক্রমণ সংঘটিত হলে গ্রাহকের বৈধ অনুরােধসমূহ কোন একটি web server সম্পূর্ণ করতে ব্যর্থ হয় সেটি কী নামে পরিচিত?

(ক) Phishing (খ) Man-in-the-Middle (গ) Denial of Senise (ঘ) উপরের কোনটিই নয় উত্তরঃ (গ) Denial of Service. ব্যাখ্যাঃ Denial of Service অ্যাটাক বা সেবা বাধাদানের আক্রমণ হলাে কোনাে কম্পিউটার সিস্টেমের কোনাে রিসাের্স বা সেবার (service) প্রকৃত ব্যবহারকারীদের বাধা দেয়ার একটি কৌশল। কোনাে কম্পিউটার বা সিস্টেম ইন্টারনেট ওয়েবসাইটে এই আক্রমণ চালানাের মাধ্যমে ঐ সিস্টেম বা সাইটের যথাযথ কার্যক্রমকে ধীর গতির, বা অনেক ক্ষেত্রে পুরােপুরি বন্ধ করে দেয়া হয়। 

৫৫। নিচের কোন মেমােরিটিতে Acces Time সবচেয়ে কম? 

(9) Registers (2) SSD (গ) RAM (ঘ) Cache memory উত্তরঃ (ক) Registers ব্যাখ্যাঃ রেজিস্টার একটি হার্ডওয়্যার কোম্পােনেন্ট সেটি ক্ষুদ্রতম সময়ে বিট দ্বারা করতে সক্ষম। অন্যদিকে, Cache memory হলাে বারবার ব্যবহৃত মেমােরিকে হার্ড প্রাইড়ে না রেখে ঝামে এনে রাখা। সফটওয়্যারের মাধ্যমে দ্রুততম এক্সেস করা যায় ক্যাশ মেমােরিতে। অন্যদিকে, রেজিস্টার হার্ডওয়্যারে এলেস টাইম প্রায় ন্যানােসেকেন্ড লেভেলে।

৫৬। নিচের কোনটি Bluetooth- এর IEEE standard?

(ক) IEEE 802.15 | (খ) IEEE 802.1 (গ} IEEE 802.3 | (ঘ) IEEE 802.11 উত্তরঃ (ক) IEEE 802.15 ব্যাখ্যাঃ Bluetooth standard- IEEE 802.15, Wi-fi IEEE 802.,wimax-IEEE 802.16 

৫৭। নিচের কোনটি multi-tasking operating system নয়?

(ক) Windows (খ) Linux (গ) Windows NT (ঘ) DOS উত্তরঃ (ঘ) DOS. ব্যাখ্যাঃ কমান্ডভিত্তিক অপারেটিং সিস্টেম [DOS যেখানে একাধিক ব্যবহারকারীর একসাথে কমান্ড দেওয়ার সুযােগ নাই। 

৫৮। নিচের কোন প্রযুক্তি -Pay as You Go সার্ভিস মডেল অনুসরণ করে? 

(ক) Internet of Things (খ) Cloud Computing (গ) Client-Server Systems (ঘ) Big Data Analytics উত্তরঃ (খ) Cloud Computing. ব্যাখ্যাঃ পে-আজ-ইউ-গোঃ পে-অ্যাজ-ইউ-গাে একটি পেমেন্ট মডেল। ক্রেতাকে আগে থেকে কোনাে সার্ভিস রিজার্ভ করতে হবে না। ক্রেতা যা ব্যবহার করার কেবলমাত্র তার জন্যই পেমেন্ট দিতে হবে। ক্লাউড স্পিউটিং এ -Pay You go’ সার্ভিস মডেল অনুসরণ করে। 

৫৯। Keyboard এবং CPU এর মধ্যে কোন পদ্ধতিতে data transmission হয়? 

(ক) Simplex (খ) Duplex (গ) Half duplex (ঘ) Triplexউত্তরঃ (ক) Simpex. ব্যাখ্যাঃ সিমপ্লেক্স ডেটা ট্রান্সমিশন মেডে কেবলমাত্র একদিকে ডেটা প্রেরণের ব্যবস্থা থাকে। সিমপ্লেক্স মােডে কেবলমাত্র ক হতে খ এর দিকে ডেটা প্রেরণ করা যাবে। কিন্তু খ হতে ক এর দিকে ডেটা প্রেরণ সম্ভব নয়। অর্থাৎ এই ব্যবস্থায় ডেটা গ্রহণ অথবা প্রেরণের যে কোন একটি সম্ভব। যে প্রান্ত ডেটা প্রেরণ করবে সে প্রান্ত গ্রহণ করতে পারবে না এবং গ্রহণ প্রান্ত প্রেরণ করতে পারে না। উদাহরণ-রেডিও এবং টিভি ব্রডকাস্ট, কম্পিউটার থেকে প্রিন্টারে ডেটা প্রেরণ। কী-বোর্ড থেকে কম্পিউটার ডেটা প্রেরণ ইত্যাদি। 

৬০। Bkkkchain-এর প্রতিটি block কী তথ্য বহন করে?

(ক) A hash pointer to the previous block (খ) Timestamp (গ) List of transactions (ঘ) উপরের সবগুলাে উত্তর: (ঘ) উপরের সবগুলাে। ব্যাখ্যাঃ Blockchain হলো সম্প্রতি আলােচিত বিটকয়েন ব্যবস্থাপনা মাধ্যম। এর প্রতিটি ব্লক একে অন্যের সাথে (Hash Pointer….) দিয়ে যুক্ত থেকে প্রতিটি লেনদেন (List of Transaction) এর সময় (timestamp) ও সম্পৃক্তি রেকর্ড করে রাখে।

৪৩ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার নৈতিকতা, মূল্যবোধ ও সুশাসনের প্রশ্ন ও উত্তরঃ

৪৩ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার নৈতিকতা, মূল্যবোধ ও সুশাসনের প্রশ্ন ও উত্তর বিস্তারিত বিশ্লেষণ করা হলো। [ads1]

৯১। নৈতিক মূল্যবােধের উৎস কোনটি? 

(ক) সমাজ (খ) নৈতিক চেতনা (গ) রাষ্ট্র (ঘ) ধর্ম উত্তরঃ (খ) নৈতিক চেতনা। ব্যাখ্যাঃ নৈতিক মূল্যবােধের একটি অন্যতম উৎস- নৈতিক চেতনা। 

৯২। ‘On Liberty’ গ্রন্থের লেখক কে?

(ক) ইমানুয়েল কান্ট (খ) টমাস হব (গ) জন স্টুয়ার্ট মিলউত্তরঃ (গ) জন স্টুয়ার্ট মিল। ব্যাখ্যাঃ (On Liberty গ্রন্থের লেখক বিখ্যাত দার্শনিক জন “টুয়ার্ট মিল। জন স্টুয়ার্ট মিল এর অন্যান্য গ্রন্থ Utilitarianism. Principle of political Economy. The logic of the moral sciences 

৯৩। উৎপত্তিপত অর্থে governance শব্দটি কোন ভাষা থেকে এসেছে? 

(ক) ল্যাটিন (গ) হিন্দি (গ) ফারসি উত্তর: (ক) ল্যাটিন। ব্যাখ্যাঃ উৎপত্তিগত অর্থে governance শব্দটি ল্যাটিন ভাষা থেকে এসেছে।

৯৪। কর্তব্যের জন্য কর্তব্য’- ধারণাটির প্রবর্তক কে?

(ক) ইমানুয়েল কান্ট (খ) হার্বার্ট স্পেন্সার (গ) বাট্রান্ড রাসেল (ঘ) অ্যারিস্টটল উত্তরঃ (ক) ইমানুয়েল কান্ট।  ব্যাখ্যাঃ জীবন সংরক্ষণ করার জন্য আমাদের মধ্যে প্রকৃতিগতভাবেই একটি প্রবণতা বা ঝোঁক রয়েছে। কান্ট বলেন, আমাদের অনেকেই এই কর্তব্য পালন করেন এমন সব নীতি অনুসারে যার মধ্যে কোন নৈতিক আধেয় নেই। তারা জীবন সংরক্ষণের কাজগুলাে করে বেঁচে থাকেন। কিন্তু কান্টের ভাষায়, “They do protect their lives in conformity with duty, but not from the motive of duty.”। এই কর্তব্য-প্রণােদনাকে বলা হচ্ছে কর্তব্যের খাতিরে কর্তব্য” বা “for the sake of duty”

৯৫। Human Society in Ethics and Politics গ্রন্থের লেখক কে?

(ক) প্লেটো (খ) বাট্রান্ড রাসেল (গ) বার্ট্রান্ড রাসেল (ঘ) জন স্টুয়ার্ট মিলউত্তর: (গ) বার্ট্রান্ড রাসেল।ব্যাখ্যাঃ বাট্রান্ত ব্রাসেল ( ১৮ মে ১৮৭২ – ২ ফেব্রুয়ারি ১৯৭০) ছিলেন একজন ব্রিটিশ দার্শনিক, যুক্তিবিদ, গণিতবিদ, ইতিহাসবেত্তা, সমাজকর্মী, অহিংসাবাদী, এবং সমাজ সমালােচক। যদিও তিনি ইংল্যান্ডেই জীবনের অধিকাংশ সময় কাটিয়েছেন, তার জন্ম হয়েছিল ওয়েলস এ, এবং সেখানেই তিনি ৯৭ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন। রাসেল ১৯০০ সালের ক্ষতে ব্রিটিশদের আদর্শবাদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহে নেতৃত্ব প্রদান করেন। তাকে বিশ্লেষণী দর্শনের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা বিবেচনা শ্রা হয়। তাঁর উল্লেখ যােগ্য গ্রন্থসমূহ হচ্ছে- Human Society in Ethics and Politics, The Principles of Mathematics, Principia Mathematica (with Alfred North Whitehead). The Philosophy of Logical Atomism, The Analysis of Mind, and The Analysis of Matter. His popular writings on politics, morality, and religion included A Free Man’s Worship. Why I Am Not a Christian, and Power: A New Social Analysis ইত্যাদি।  

৯৬। “শাসক যদি মহৎগুণসম্পন্ন হয় তাহলে আইন নিষ্প্রয়োজন, আর শাসক যদি মহৎগুণসম্পন্ন না হয় তাহলে আইন অকার্যকর” -এটি কে বলেছেন? 

(ক) সক্রেটিস (খ) প্লেটো (গ) অ্যারিস্টটল (ঘ) বেনথাম। উত্তরঃ (খ) প্লেটো। ব্যাখ্যাঃ “শাসক যদি মহৎগুণসম্পন্ন হয় তাহলে আইন নিষ্প্রয়োজন, আর শাসক যদি মহৎগুণসম্পন্ন না হয় তাহলে আইন অকার্যকর” এই বিখ্যাত উক্তিটি করেছেন রাষ্ট্রবিজ্ঞানী প্লেটো। 

৯৭। বাংলাদেশে কত সালে “জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল” প্রণয়ন করা হয়? 

(ক) ২০১০ (খ) ২০১১ (গ) ২০১২ (ঘ) ২০১৩ উত্তরঃ (গ) ২০১২।ব্যাখ্যাঃ সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচরদের বলা হয় জনগণের সেবক। কিন্তু বাস্তবে অনেক যেন একেক জন প্রভু। প্রভুত্বের আসন নিয়ে বরং জনগণ সেবাদাসে পরিণত করে। সাধারণ মানুষ হয়ে আসছে নিস্পেষিত সেবক নামক প্রভুর হতে নানাভাবে, নানা সময়ে। সরকারী কর্মকর্তা সম্পর্কে সাধারণ মানুষের বিদ্যমান ধারণা বদলাতে এবং সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীকে সরাসরি জবাবদিহিতার আওতায় আনার লক্ষ্যেই নেয়া হয়েছে জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল। এই প্রশিক্ষণ গ্রহণ বাধ্যতামূলক। তিন বছর আগে ২০১২ সালে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ এই কৌশল প্রয়োগের উদ্যোগ নেয়। 

Read More :   ​সহজ পদ্ধতিতে ২০২১ সালের রেলপথ মন্ত্রণালয়ের কম্পিউটার অপারেটর পদের ব্যাখ্যাসহ প্রশ্ন সমাধান

৯৮। বিশ্বব্যাংকের মতে সুশাসনের উপাদান কয়টি? 

(ক) ৩টি (খ) ৫টি (গ) ৪টি (ঘ) ৬টি উত্তরঃ (ঘ) ৬টি। ব্যাখ্যাঃ সুশাসন নিশ্চিতকরণে UN ৮টি, UNDP ৯টি, IDA ৬টি, AIDB ৫টি, WB ৬টি এবং ADB ৪টি উপাদান উল্লেখ করেছে। 

৯৯। সুশাসনের মূল ভিত্তি কী? 

(ক) মূল্যবােধ (খ) আইনের শাসন (গ) পণতন্ত্র (ঘ) আমল উত্তরঃ (খ) আইনের শাসন।ব্যাখ্যাঃ সামাজিক মূল্যবােধের উপাদান সমূহ হল। আইনের শাসন, নৈতিকতা, সাম্য, সামাজিক শিষ্টাচর, সততা, ন্যায়বিচার। 

১০০। কোন নৈতিক মানদণ্ডটি সর্বোচ্চ সুখের উপর গুরুত্ব প্রদান করে? 

(ক) আত্মস্বার্থবাদ (খ) প্রার্থবাদ (গ) পূর্ণতাবাদ (ঘ) উপযােগবাস উত্তর: (ঘ) উপযােগবাদ।ব্যাখ্যাঃ উপযােগবাদ হলো একটি নৈতিক তত্ত্ব যা সামগ্রিক সুখ বা পরিতৃপ্তিকে উৎসাহিত করে এবং এমন ক্রিয়াকলাপগুলিকে প্রত্যাখ্যান করে যা সন্তোষ্টি বা সুখের ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। মানুষের সুখ এবং অসুখ বা “pleasure and pain” এর প্রধান আলােচনার বিষয়। সামাজিক, অর্থনৈতিক বা রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে উপযােগবাদী দর্শন সমাজের উন্নতি বা সমাজের মানুষের সন্তোষ্টি বৃদ্ধিতে প্রাধান্য দেয়। উপযােগবাদের প্রধান নীতি হচ্ছে সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষের জন্য সর্বাধিক পরিমাণ সন্তোষ্টি বা সুখ” (বেন্টব্যাম যাকে বলেছিল “The greatest good for the greatest number”)। দুজন ব্রিটিশ দার্শনিক এবং রাজনৈতিক চিন্তাবিদ জেরেমি বেন্থাম এবং জন স্টুয়ার্ট মিল এই দর্শনের প্রধান প্রবক্তা।

৪৩ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের প্রশ্ন ও উত্তরঃ

৪৩ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের বিস্তারিত বিশ্লেষণ নিচে করা হলো। [ads1]

১০১। দৌলত উজির বাহরাম খান সাহিত্যসৃষ্টিতে কার পৃষ্ঠপােষকতা লাভ করেন? 

(ক) সুলতান গিয়াসউদ্দিন আজম শাহ (খ) কোরেশী মাগন ঠাকুর (গ) সুলতান বরবক শাহ (ঘ) জমিদার নিজাম শাহ।উত্তরঃ (ঘ) জমিদার নিজাম শাহ। ব্যাখ্যাঃ দৌলত উজির বাহরাম খানের লেখা থেকে জানা যায় তিনি জমিদার নিজাম শাহ এর পৃষ্ঠপােষকতা লাভ করেন। তিনি নিজাম শাহ এর থেকেই দৌলত উক্তির উপাধি পেয়েছিলেন।

১০২। কোনটি নামধাতুর উদাহরণ?

(ক) চুল (খ) কর্‌ (গ) বেতা (ঘ) পড়্‌ উত্তরঃ (গ) বেতা। ব্যাখ্যাঃ বিশেষ্য, বিশেষণ এবং ধ্বন্যাত্মক অব্যয়ের পরে আ’ প্রত্যয়যােগে যেসব ধাতু গঠিত হয়, সেগুলােকে নামধাতু বলা হয়। যেমন বেত (বিশেষ্য) – আ (প্রত্যয়) = বেতা। অপরদিকে চুল, পড় এগুলাে মৌলিক ধাতু বা ক্রিয়ামূলের উদাহরণ। 

১০৩। হরপ্রসাদ শাস্ত্রীর উপাধি কী? 

(ক) পণ্ডিত (খ) বিদ্যাসাগর (গ) শাস্ত্রজ্ঞ (ঘ) মহামহােপাধ্যায় উত্তরঃ (ঘ) মহামহােপাধ্যায়।ব্যাখ্যাঃ মহামহােপাধ্যায় হরপ্রসাদ শাস্ত্রী (৬ ডিসেম্বর, ১৮৫৩ -১৭ নভেম্বর, ১৯৩১) ছিলেন বিখ্যাত বাঙালি ভারততত্ত্ববিদ, সংস্কৃত বিশারদ, সংরক্ষণবিদ ও বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস রচয়িতা। তার আসল নাম ছিল হরপ্রসাদ ভট্টাচার্য। তিনি বাংলা সাহিত্যের প্রাচীনতম নিদর্শন চর্যাপদের আবিষ্কর্তা। তিনি সন্ধ্যাকর নন্দী রচিত রামচরিতম্ বা রামচরিতমানস পুঁথির সংগ্রাহক। 

১০৪। ক্ষুদ্র জাতিগােষ্ঠী নিয়ে লেখা উপন্যাস কোনটি?

(ক) তেইশ নম্বর তৈলচিত্র’ (খ) ক্ষুধা ও আশা (গ) কর্ণফুলি (ঘ) ধানকন্যা । উত্তরঃ (গ) কর্ণফুলি। ব্যাখ্যাঃ “কর্ণফুলী” আলাউদ্দিন আল আজাদ রচিত একটি উপন্যাস। এটি ১৯৬২ সালে প্রকাশিত হয়। ষাটের দশকে আলাউদ্দিন আল আজাদ রচিত তেইশ নম্বর তৈলচিত্র (১৯৬০) ও কর্ণফুলী উপন্যাসটি ব্যাপক সাড়া জাগায়। এই উপন্যাসে আঞ্চলিক ভাষার ব্যবহারে দক্ষতার জন্য আলাউদ্দিন আল আজাদ ইউনেস্কো পুরস্কার পেয়েছিলেন। এ উপন্যাসের লেখক কর্ণফুলীর তীরে যে সব বিশেষ সম্প্রদায় বসবাস করে তাদের জীবনচিত্র তুলে ধরেছেন। পাহাড় সমুদ্র ঘেরা একটি বিশেষ জনপদ তথা উপজাতীয়দের জীবন চিত্র অবলম্বনে রচিত হয় এই উপন্যাস। উপন্যাসের প্রধান চরিত্র হল আদিবাসী রাঙ্গামিলা, জলি, রমজান, ইসমাইল। 

১০৫। ‘নীল লােহিত” কোন লেখকের ছদ্মনাম?

(ক) অরুণ মিত্র (খ) সমরেশ বসু (গ) সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় (ঘ) সমরেশ মজুমদারউত্তরঃ (গ) সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়। ব্যাখ্যাঃ সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় (৭ সেপ্টেম্বর ১৯৩৪ ২৩ অক্টোবর ২০১২) বিশ শতকের শেষভাগে সক্রিয় একজন প্রথিতযশা বাঙালি সাহিত্যিক। সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় “নীললোহিত”, “সনাতন পাঠক, নীল উপাধ্যায়’ ইত্যাদি ছদ্মনাম ব্যবহার করেছেন। সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের জন্ম অধুনা বাংলাদেশের মাদারীপুরে। 

১০৬। বাগযন্ত্রের অংশ কোনটি?

(ক) স্বরযন্ত্র (খ) দাঁত (গ) ফুসফুস(ঘ) উপরের সবকটি উত্তরঃ (ঘ) উপরের সবকটি। ব্যাখ্যাঃ ভাষার প্রথম প্রকাশ ঘটে মানুষের মুখে-মানুষের বাগযন্ত্রে। মানুষের বাগযন্ত্রই ভাষার প্রথম জন্মভূমি। বাগযন্ত্রের গঠন প্রক্রিয়া ধ্বনিবিজ্ঞানের প্রথম আলােচ্য বিষয়। শরীরের উপরিভাগে অবস্থিত মধ্যচ্ছদা থেকে ঠোঁট পর্যন্ত শ্বাসবাহী যেসব বিশেষ প্রত্যঙ্গগুলি ধ্বনির উচ্চারণের সঙ্গে যুক্ত সেগুলিকে বাকপ্রত্যঙ্গ বা একত্রে বাগযন্ত্র (speech organ/ vocal organ) বলে। বাগযন্ত্রের এলাকা বিস্তৃত। এর মধ্যে রয়েছে ফুসফুস (lungs), শ্বাসনালি (trachea), স্বরযন্ত্র (larynx), স্বরতন্ত্র (vocal fold), জিভ (tongue), ঠোঁট (lips), নিচের চোয়াল (lower jaw), দাঁত (teeth). তালু (palate) ও গলনালি (pharynx)।

১০৭। “চর্যাপদের” প্রাপ্তিস্থান কোথায়?

(ক) বাংলাদেশ (খ) নেপাল (গ) উড়িষ্যা (ঘ) ভুটান উত্তরঃ (খ) নেপাল। ব্যাখ্যাঃ ১৯০৭ খ্রিস্টাব্দে মহামহোপাধ্যায় হরপ্রসাদ শাস্ত্র নেপালের রাজদরবারের গ্রহশালা থেকে চর্যার একটি খণ্ডিত পুঁথি উদ্ধার করেন। 

১০৮। কোনটি মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস?

(ক) কাঁদো নদী কাঁদো (খ) নেকড়ে অরণ্যে (প) রাঙা প্রভাত (ঘ) প্রদোষে প্রাকৃতজনউত্তরঃ (খ) নেকড়ে অরণ্যে। ব্যাখ্যাঃ শওকত ওসমান (১৯১৭-৯৮) বাংলাদেশের কথাসাহিত্যের সমকালমনস্ক এক জীবনবাদী কথাশিল্পী। সমাজ ও সময়ের কাছে দায়বদ্ধ থেকে তিনি আমৃত্যু লিখে গেছেন। তাঁর রচনায় আমাদের জাতীয় আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধ ভিন্ন এক শিল্পমাত্রা লাভ করেছে। মুক্তিযুদ্ধকে পটভূমি করে তিনি লিখেছেন চারটি উপন্যাস জাহান্নাম হইতে বিদায় (১৯৯১), দুই সৈনিক (১৯৭৩), নেকড়ে অরণ্য (১৯৭৩) ও জলাংগী (১৯৭৪)।

১০৯। বড়> বড্ড-এটি কোন ধরনের পরিবর্তন?

(ক) বিষমীভবন (খ) সমীভবন (গ) ব্যঞ্জনদ্বিত্ব (ঘ) ব্যঞ্জন-বিকৃতি উত্তরঃ (গ) ব্যঞ্জনন্দ্বিত্ব। ব্যাখ্যাঃ দ্বিত ব্যঞ্জন (Long Consonant) বা ব্যঞ্জনদ্বিত্ব: কখনাে কখনাে জোর দেয়ার জন্য শব্দের অন্তর্গত ব্যঞ্জনের দ্বিত্ব উচ্চারণ হয় একে বলে দ্বিত্ব ব্যঞ্জন বা ব্যঞ্জনদ্বিত্ব। যেমন- বড়> বড্ড , পাকা>পাক্কা, সকাল > সক্কাল ইত্যাদি।

১১০। গড্ডালিকা প্রবাহ বাগধারায় ‘’গড্ডল” শব্দের অর্থ কী? 

(ক) স্রোত (খ) ভেড়া (গ) একত্র (ঘ) ভাসাব্যাখ্যাঃ ‘গড্ডল’, ‘গড্ডর’ শব্দের স্ত্রীলিঙ্গ, যার মানে হচ্ছে ভেড়া কিংবা মেষ। এই গড্ডল হয়েই বাংলায় গড়ল কথাটিও জন্মেছে। কাজেই, “গড্ডালিকা’ বলতে বুঝায় একটা মেষ দলে সামনে থাকা আগুয়ান মেষটিকে। এবং বাকি ভেড়ারা অন্ধভাবে তাকে অনুসরণ করে আর দলটা একটি নদীর মতাে বইতে বইতে এগোতে থাকে। এরই অনুপ্রেরণায় যখন কেউ অন্ধভাবে, নিজে কোনও বিবেচনা না করে, সবাই করছে দেখে কোনও কাজে নিয়েজিত হয়, তখন ‘গড্ডলিকা প্রবাহ, মেষ দল’, ‘ভেড়ার পলি এই সমস্ত কথাগুলো ব্যবহার হয়। 

১১১। “সপ্তকান্ড রামায়ণ” বাগধারার অর্থ কী?

(ক) রামায়ণের সাত পর্ব (খ) রামায়ণে বর্ণিত বৃক্ষ (গ) রামায়ণে বর্ণিত সাতটি সমুদ্র (ঘ) বৃহৎ বিষয়। উত্তরঃ (ঘ) বৃহৎ বিষয়। ব্যাখ্যাঃ সপ্তকাণ্ড রামায়ণ বাগধারাটির অর্থ- বৃহৎ বিষয়। যেমন; সপ্তকাণ্ড রামায়ণ না আউড়ে আসল কথাটাই বল।

১১২। ‘তাতে সমাজজীবন চলে না। এ বাক্যটির অস্তিবাচক রূপ কোনটি?

(ক) তাতে সমাজজীবন চলে (খ) তাতে না সমাজজীবন চলে (গ) তাতে সমাজজীবন অচল হয়ে পড়ে (ঘ) তাতে সমাজৰ্জীবন সচল হয়ে পড়ে উত্তরঃ (গ) তাতে সমাজজীবন অচল হয়ে পড়ে। ব্যাখ্যাঃ বাক্যে ‘না’, ‘নয়’, ‘নহে’, ‘নি’, ‘নেই’, ‘নাহি’, ‘নাই’ ইত্যাতি নঞর্থক অব্যয়যােগে অস্তিবাচক বাক্যের বিধেয় ক্রিয়াকে (সমাপিকা ক্রিয়াকে) নেতিবাচক বাক্যে রূপান্তর করা হয়। যেমন: নেতিবাচক বাক্য: তাতে সমাজজীবন চলে না। এর অস্তিবাচক বাক্য: তাতে সমাজজীবন অচল হয়ে পড়ে। অনুরুপভাবে নেতিবাচক বাক্য, মন নিচুতে নামতে চায় না। এর অস্তিবাচক বাক্য; মন নিচুতে নামতে অনিচ্ছুক।

১১৩। “তােমারেই যেন ভালােবাসিয়াছি শত রূপে শত বার। জনমে জনমে যুগে যুগে অনিবার।” -রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কোন কবিতার অংশ? 

(ক) ‘অনন্ত প্রেম (খ) উপহার (গ) ব্যক্ত প্রেম (ঘ) শেষ উপহার” উত্তরঃ (ক) “অনন্ত প্রেম’। ব্যাখ্যাঃ অনন্ত প্রেম -রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তােমারেই যেন ভালােবাসিয়াছি শত রূপে শত বার। জনমে জনমে, যুগে যুগে অনিবার। চিরকাল ধরে মুগ্ধ হৃদয় পাঁথিয়াছে গীতহার, কত রূপ ধরে পরেছ গলায়, নিয়েই সে উপহার। জনমে জনমে, যুগে যুগে অনিবার। যত শুনি সেই অতীত কাহিনী, প্রাচীন প্রেমের ব্যথা, অতি পুরাতন বিরহমিলনকথা, অসীম অতীতে চাহিতে চাহিতে দেখা দেয় অবশেষে কালের তিমিররজনী ভেদিয়া। তােমারি মুরতি এসে,চিরসূতিময়ী তারকার বেশে। 

১১৪। ‘ডেকে ডেকে হয়রান হচ্ছি। -এ বাক্যে ‘ডেকে ডেকে’ কোন অর্থ প্রকাশ করে?

(ক) অসহায়ত্ব (খ) বিরক্তি (গ) কালের বিস্তার (ঘ) পৌনঃপুনিকতা উত্তরঃ (ঘ) পৌনঃপুনিকতা। ব্যাখ্যাঃ পদের দ্বিরুক্তি: দুটি পদে একই বিভক্তি প্রয়ােগ করা হয়, শব্দ দুটি ও বিভক্তি অপরিবর্তিত থাকে। যেমন: পদের দ্বিরুক্তির প্রয়ােগে ক্রিয়াবাচক শব্দের ব্যবহার হিসেবে: ডেকে ডেকে হয়রান হচ্ছি ‘পৌনঃপুনিকতার’ উদাহরণ। অনুরূপভাবে স্বল্পকাল স্থায়ী বােঝাতে- দেখতে দেখতে আকাশ কালাে হয়ে এলাে।

১১৫। ‘মুখ ঢেকে যায় বিজ্ঞাপনে’ কাব্যগ্রন্থের কবি কে?

(ক) রফিক আজাদ (খ) শজ্ঞ ঘােষ (গ) শক্তি চট্রোপাধ্যায় (ঘ) শামসুর রহমান উত্তরঃ (খ) শঙ্খ ঘােষ। ব্যাখ্যাঃ ‘মুখ ঢেকে যায় বিজ্ঞাপনে’ কাব্যগ্রন্থটির কবি শঙ্খ ঘােষ। গ্রস্থটি ১৯৮৪ সালে প্রকাশিত হয়। দিনগুলি রাতগুলি (১৯৫৬); এখন সময় নয় (১৯৬৭); জলই পাষাণ হয়ে আছে (২০০৪) প্রভৃতি তাঁর বিখ্যাত কয়েকটি কাব্যগ্রন্থ। 

১১৬। ‘আসমন’ কোন ভাষা থেকে আগত শব্দ? 

(ক) পর্তুগিজ (খ) ফরাসি (গ) আরবি (ঘ) ফরসি উত্তরঃ (গ) ফারসি। ব্যাখ্যাঃ আসমান শব্দটি ফারসি ভাষা থেকে আগত। ফারসি ভাষা থেকে আগত কয়েকটি শব্দ- আইন, আফগান, খরিদ, গােয়েন্দা, কামান, কারখানা, রসিদ, হাঙ্গামা, সওদা, শুমারি ইত্যাদি। 

১১৭। রুখের তেন্তুলি কুমীরে খাই – এর অর্থ কী?

(ক) তেজি কুমিরকে রুখে দিই (খ) বৃক্ষের শাখায় পাকা তেঁতুল (গ) গাছের তেঁতুল কুমিরে খায় (ঘ) ভুল থেকে শিক্ষা নিতে হয় উত্তরঃ (গ) গাছের তেতুল কুমিরে খায়। ব্যাখ্যাঃ রুখের তেন্তুলি কুমীরে খাই- এর অর্থ গাছের তেঁতুল কুমিরে খায়। চর্যাপদের মহিলা কবি কুক্কুরীপা রচিত পদে উক্ত কথাটি পাওয়া যায়।

১১৮। কত সালে দুর্গেশনন্দিনী’ উপন্যাস প্রথম প্রকাশিত হয়? 

(ক) ১৮৬০ (খ) ১৮৬১ (গ) ১৮৬৫ (ঘ) ১৮৬৭ উত্তর: (গ) ১৮৬৫। ব্যাখ্যাঃ দুর্গেশনন্দিনী ১৮৬৫ সালে প্রকাশিত উপন্যাস। এটি সাহিত্য সম্রাট বঙ্কিমচন্দ্রের প্রকাশিত প্রথম উপন্যাস। এটির বাংলা সাহিত্যের প্রথম সার্থক উপন্যাস। বঙ্কিমচন্দ্রের কয়েকটি বিখ্যাত উপন্যাস – আনন্দমঠ, কৃষ্ণকান্তের উইল, বিষবৃক্ষ প্রভৃতি। 

১১৯। ‘আমার দেখা রাজনীতির পঞ্চাশ বছর’ কার লেখা?

(ক) এস. ওয়াজেদ আলী (খ) আবুল হাসেম (গ) আবুল মনসুর আহমদ (ঘ) আবুল হুসেন উত্তরঃ (গ) আবুল মনসুর আহমদ। ব্যাখ্যাঃ ‘আমার দেখা রাজনীত্তি পঞ্চাশ বছর’ – আবুল মনসুর আহমদ – এর বিখ্যাত গ্রস্থ। এতে আজকের বাংলাদেশ নামে পরিচিত ভূখণ্ডটির ১৯২০ থেকে ১৯৭০ সাল পর্যন্ত ইতিহাস আছে। তার রচিত অন্যান্য গ্রন্থ শেরে বাংলা থেকে বঙ্গবন্ধু, আয়না, ফুডকনফারেন্স, গালিভারের সফর নামা, আসমানি পর্দা, হুজুর কেবলা, আবে হায়াত ইত্যাদি। 

১২০। “ঐ ক্ষেপেছে পাগলি মায়ের দামাল ছেলে” – কে এই দামাল ছেলে?

(ক) কাজী নজরুল ইসলাম (খ) কামাল পাশা (গ) চিত্তরঞ্জন দাস (ঘ) সুভাষ বসু উত্তরঃ (খ) কামাল পাশা।ব্যাখ্যাঃ “ঐ ক্ষেপেহে পাগলি মায়ের দামাল ছেলে কামাল ভাই,” এটি বিদ্রোহী কবি নজরুল রচিত কবিতা ‘কামাল পাশার’ অন্তর্ভুক্ত লাইন। এখানে দামাল ছেলে বলতে কামাল ভাই অর্থাৎ কামাল পাশাকে বুঝিয়েছেন। 

১২১। ‘Attested’ শব্দের বাংলা পরিভাষা কী? 

(ক) প্রত্যায়িত (খ) সত্যায়িত (গ) প্রত্যয়িত (ঘ) সত্যয়িত উত্তরঃ (খ) সত্যয়িত। ব্যাখ্যাঃ ‘Attested’ এর বহুল ব্যবহৃত বাংলা পারিভাষিক শব্দ হচ্ছে‘সত্যায়িত’। সূত্র হিসেবে বাংলা একাডেমী English to Bengali dictionary উল্লেখ করা যেতে পারে। ড, শাহজান মনিরের বাংলা ব্যাকরণে attestation শব্দটির বাংলা দেয়া হয়েছে ‘সত্যায়ন। 

১২২। বাংলা সাহিত্যে প্রথম মহিলা ঔপন্যাসিকের নাম ?

(ক) বেগম রােকেয়া (খ) কাদম্বরী দেবী (গ) স্বর্ণকুমারী দেবী (ঘ) নূরুন্নাহার ফয়জুন্নেসা উত্তরঃ (গ) স্বর্ণকুমারী দেবী। ব্যাখ্যাঃ বাংলা সাহিত্যের প্রথম মহিলা ঔপন্যাসিক স্বর্ণকুমারী দেবী। ১৮৭৬ তাঁর প্রথম উপন্যাস ‘দীপনির্বাণ’ প্রকাশিত হয়। 

১২৩। ‘আমার দেখা নয়াচীন’ কে লিখেছেন?

(ক) মাওলানা ভাসানী (খ) আবুল ফজল (গ) শহীদুল্লাহ কায়সার (ঘ) শেখ মুজিবুর রহমান উত্তরঃ (ঘ) শেখ মুজিবুর রহমান। ব্যাখ্যাঃ ‘আমার দেখা নয়াচীন’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের লিখিত বিখ্যাত গ্রন্থ। এটি গণচীন ভ্রমণের অভিজ্ঞতার আলােকে লেখা একটি ডায়েরির পুস্তক রূপ। বাংলা একাডেমি ২০২০ সালে বইটি প্রকাশ করে। তার রচিত অন্যান্য গ্রন্থ ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’, ‘কারাগারের রােজনামচা, আমার কিছু কথা (প্রকাশিতব্য) 

১২৪। মনসা দেবীকে নিয়ে লেখা বিজয়গুপ্তের মঙ্গলকাব্যের নাম কী? 

(ক) মনসামঙ্গল (খ) মনসাবিয়া (গ) ‘পদ্মপুরাণ (ঘ) ‘পদ্মাবতী’ উত্তরঃ (গ) ‘পদ্মপুরাণ ”। ব্যাখ্যাঃ মনসামঙ্গলের একজন সর্বাধিক প্রচারিত কবি হিসাবে বিজয়গুপ্ত-এর খ্যাতি। তাঁর মনসামঙ্গল (ৰা পদ্মাপুরাণ) বাংলার জনপ্রিয় কাব্যগুলির মধ্যে অন্যতম। গল্পরস সৃজনে, করুণরস ও হাস্যরসের প্রয়ােগে, সামাজিক ও রাষ্ট্রিক জীবনের পরিচয়ে, চরিত্র চিত্রণে এবং পাণ্ডিত্যের গুণে বিজয়গুপ্তের পদ্মপুরাণ একটি জনপ্রিয় কাব্য। বিজয়গুপ্তের পূর্বে আমরা পাই আদি মঙ্গল কবি কানাহরি দত্ত ও বিপ্রদাস পিপিলাইকে। 

১২৫। ‘জিজীবিষা’ শব্দটির অর্থ কী?

(ক) জীবননাশের ইচ্ছা (খ) বেঁচে থাকার ইচ্ছা (গ) ঈীবনকে জানার ইচ্ছা (ঘ) জীবন-জীবিকার পথ উত্তরঃ (খ) বেঁচে থাকার ইচ্ছা। ব্যাখ্যাঃ জিজীবিষা- বেঁচে থাকার ইচ্ছা। জিগীষা – বিজয়ের ইচ্ছা (প্রবল জিগীষার আত্মপ্রকাশ)

১২৬। ‘মানুষের মৃত্যু হলে তবুও মানব থেকে যায়- কে রচনা করেন এই কাব্যাংশ? 

Read More :   ব্যাংক প্রশ্ন সমাধান ২০২২, ২০২১ ও ২০২০ | অফিসার ক্যাশ

(ক) সুধীন্দ্রনাথ দত্ত (খ) প্রেমেন্দ্র মিত্র (গ) সমর সেন (ঘ) জীবনানন্দ দাশ উত্তরঃ (গ) জীবনানন্দ দাশ। ব্যাখ্যাঃ “মানুষের মৃত্যু হলে তবুও মানব থেকে যায়; অতীতের থেকে উঠে আজকের মানুষের কাছে প্রথমত চেতনার পরিমাপ নিতে আসে”। এটা জীবনানন্দ দাশ এর লেখা। 

১২৭। ভুল বানান কোনটি?

(ক) ভূবন (খ) অন্তঃসার (গ) মুহূর্ত (ঘ) অদ্ভুতব্যাখ্যাঃ ভূবন শব্দের সঠিক বানান ভুবন। অন্তঃসার, মুহূর্ত এবং অদ্ভুত তিনটি বানানই শুদ্ধ। 

১২৮। ‘যিনি বিদ্বান, তিনি সর্বত্র আদরণীয়। এটি কোন ধরনের বাক্য? 

(ক) সরল বাক্য (খ) জটিল বাক্য (গ) যৌগিক বাক্য (ঘ) খণ্ড বাক্য উওরঃ (খ) জটিল বাক্য। ব্যাখ্যাযঃ যে বাক্যে একটি প্রধান খণ্ডবাক্যের এক বা একাধিক আশ্রিত বাক্য পরস্পর সাপেক্ষভাবে ব্যবহৃত হয়, তাকে মিশ্র বা জটিল বাক্য বলে। যথা- যিনি বিদ্বান, তিনি সর্বত্র আদরণীয়, যে পরিশ্রম করে, সেই সুখ লাভ করে। 

১২৯। “চিকিৎসাশাস্ত্র” কোন সমাস?

(ক) কর্মধায় (খ) বহুব্রীহি  (গ) অব্যয়ীভাব (ঘ) তৎপুরুষউত্তর: (ক) কর্মধারয়। ব্যাখ্যাঃ মধ্যপদলােপী কর্মধারয়: যে কর্মধারয় সমাসে ব্যাসবাক্যের মধ্যপদের লােপ হয়, তাকে মধ্যপদলােপী কর্মধারয় সমাস বলে। যথা- চিকিৎসা বিষয়ক শাস্ত্র – চিকিৎসাশাস্ত্র; সাহিত্য বিষয়ক সভা = সাহিত্যসভা। 

১৩০। ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসগর কোথায় জন্মগ্রহণ করেন?

(ক) চৌবেরিয়া গ্রাম, নদীয়া। (খ) কাঁঠালপাড়া গ্রাম, চব্বিশ পরগনা (গ) বীরসিংহ গ্রাম, মেদিনীপুর (ঘ) দেবানন্দপুর গ্রাম, হুগলি উত্তরঃ (গ) বীরসিংহ গ্রাম, মেদিনীপুর। ব্যাখ্যাঃ ১৮২০ খ্রিস্টাব্দের ২৬ সেপ্টেম্বর (১২২৭ বঙ্গাব্দের ১২ আশ্বিন, মঙ্গলবার) ব্রিটিশ ভারতের বাংলা প্রেসিডেন্সির বীরসিংহ গ্রামে ঈশ্বরচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায় শর্মা জন্মগ্রহণ করেন। এই গ্রামটি অধুনা ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার অন্তর্গত হলেও সেই যুগে ছিল হুগলি জেলার অন্তর্ভুক্ত। ঈশ্বরচন্দ্রের পিতার নাম ছিল ঠাকুরদাস বন্দ্যোপাধ্যায় ও মাতার নাম ছিল ভগবতী দেবী। বন্দ্যোপাধ্যায় পরিবারের আদি নিবাস ছিল অধুনা হুগলি জেলার বনমালীপুর গ্রাম। ঈশ্বরচন্দ্রের পিতামহ রাম তর্কভূষণ ছিলেন সংস্কৃত ভাষা ও সাহিত্যে সুপণ্ডিত ব্যক্তি।

১৩১। মুসলিম সাহিত্য সমাজ প্রতিষ্ঠিত হয় কত সালে? 

(ক) ১৯ ফেব্রুয়ারী ১৯২৬ (খ) ১৯ জানুয়ারি ১৯২৬ (গ) ১৯ মার্চ ১৯২৬ (ঘ) ২৬ মার্চ ১৯২৭ উত্তরঃ (খ) ১৯ জানুয়ারি ১৯২৬। ব্যাখ্যাঃ মুসলিম সাহিত্য সমাজ ছিল বাংলাদেশের বুদ্ধির মুক্তি আন্দোলনের দল বা সংগঠন। ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহর সভাপতিত্বে ১৯২৬ সালের ১৯ জানুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুসলিম হল ইউনিয়ন রক্ষে মুসলিম সাহিত্য সমাজ প্রতিষ্ঠিত হয়। 

১৩২। সজনীকান্ত দাস সম্পাদিত পত্রিকার নাম কী?

(ক) শনিবারের চিঠি’ (খ) রবিবারের ডাক (গ) বিজলি (ঘ) বঙ্গদর্শন উত্তরঃ (ক) ‘শনিবারের চিঠি। ব্যাখ্যাঃ শনিবারের চিঠি ছাড়াও তিনি বঙ্গশ্রী, শরীয়া আনন্দবাজার পত্রিকা, অলকা, প্রভৃতি পত্রিকা সম্পাদনা করেছেন। এছাড়াও চিত্রলেখা, বিজলী, যুগবাণী, যুগান্তর প্রভৃতি পত্রিকার প্রকাশনায় তার বড়ো ভূমিকা ছিলাে। 

১৩৩। নিম্ন বিবৃত স্বরধ্বনি কোনটি? 

(ক) আ (খ) ই (গ) এ (ঘ) অ্যা। উত্তর: (ক) আ।ব্যাখ্যাঃ বাংলা আ-ধ্বনির উচ্চারণে জিহবা সাধারণত শায়িত অবস্থায় থাকে এবং কণ্ঠের দিকে আকৃষ্ট হয় এবং মুখের সম্মুখ ও পশ্চাৎ অংশের মাঝামাঝি বা কেন্দ্রস্থানীয় অংশে অবস্থিত বলে আ-কে কেন্দ্রীয় নিম্নাবস্থিত স্বরধ্বনি এবং বিবৃত ধনিও বলা হয়। 

১৩৪। রবীন্দ্রনাথ কোন কারক বাদ দিতে চেয়েছিলেন?

(ক) করণ কারক (খ) সম্প্রদান কারক (গ) অপাদান কারক (ঘ) অধিকরণ কারক উত্তর: (খ) সম্প্রদান কারক। ব্যাখ্যাঃ বাংলায় সম্প্রদান কারকের প্রয়ােজন নেই, এ কথা রবীন্দ্রনাথ অনেক আগেই বলেছিলেন। নতুন ব্যাকরণে সম্প্রদান কারক বাদ দেওয়া হয়েছে। আবার সম্বন্ধ কারক বলে নতুন কারক যুক্ত করা হয়েছে। তাই আগের মতােই কারক আছে ছয় প্রকার। 

১৩৫। কেন্তুমের কোন দুটি শাখা এশিয়ার অন্তর্গত?

(ক) হিত্তিক ও তুখারিক (খ) তামিল ও দ্রাবিড় (গ) আর্য ও অনার্য (ঘ) মাগধী ও গৌড়ী উত্তরঃ (ক) হিত্তিক ও তুখারিক। ব্যাখ্যাঃ হিত্তিক ও তুখারিক হচ্ছে কেমের এশীয় অঞ্চলের শাখা এবং হেল্লেনিক, ইতালাে-কেলটিক, টিউটোনিক বা জার্মানিক কেন্তুমের ইউরােপীয় শাখা। তামিল ও দ্রাবিড়, আর্য ও অনার্য এবং মাগধী ও গৌড়ী শতমের শাখা। 

৪৩ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্যের প্রশ্ন ও উত্তরঃ

৪৩ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্যের বিস্তারিত আলোচনা নিচে করা হলো। [ads1]

১৩৬। D. H. Lawrence is not an Irish writer.

ব্যাখ্যাঃ D, H. Liwrence একজন প্রখ্যাত ও বিতর্কিত একজন ইংরেজ সাহিত্যিক। তিনি ইংল্যান্ডের নটিংহ্যামশায়ার এর ইস্টউড শহরে জন্মগ্রহণ করেন। 

১৩৭। The phrase ‘dog days’ means hot weather.

ব্যাখ্যাঃ “dog days’ একটি idiom, এর আক্ষরিক অর্থ কুকুর দিন হলেও এটি দিয়ে প্রকৃত পক্ষে গ্রীষ্মের গরম দিন কে বুঝায়। 

১৩৮। Orphan  is a common gender. 

ব্যাখ্যাঃ কিছু Noun আছে যেগুলাে পুরুষ ও স্ত্রী দুই লিঙ্গকেই বুঝায়। সেগুলােকে বলে Common Gencier. প্রশ্ন প্রদত্ত orphan দিয়ে পুরুষ ও স্ত্রী উভয় লিঙ্গের শিশুকেই বুঝায় যার মা-বাবা মারা গিয়েছে। তাই এটি একটি common gender. 

১৩৯। laughter is the noun form of the word ‘laugh”.

ব্যাখ্যাঃ laugh একটি Verb বা ক্রিয়া, যার অর্থ ‘হাসা’। এর Noun বা বিশেষ্যরূপ হলাে -laugluter’ এটি দিয়ে হাসির কাজটিকে বুঝায়। যেমন: “Her laughter turned quickly to despair,“ অর্থ “তার হাসি দ্রুত মিলিয়ে গেল। 

১৪০। Identify the word which is spelt incorrectly.

(ক) fluctuation (খ) remission (গ) ocassion (ঘ) decision উত্তর: (গ) ocassion. ব্যাখ্যাঃ অপশনে ‘ocassion বানানটি ভুল আছে। শব্দটির সঠিক বানান হলাে‘occasion’ -উপলক্ষ্য.

১৪১। Charlotte Bronte is the author of ‘Jane Eyre.

ব্যাখ্যাঃ Charlotte Bronte ভিক্টোরিয়ান যুগের একজন বিখ্যাত নারী সাহিত্যিক। তাঁর সর্বাধিক পরিচিত উপন্যাস “Jane Eyre। ১৮৪৭ সালে প্রকাশিত এই উপন্যাসটি অনেকটাই আজীবনীমূলক।

১৪২। Which of the following novels is not written by an English writer?

(ক) A Passage to India (খ) Sons and Lovers (গ) Once Hundred Years of Solitude (ঘ) Pride and Prejudice Bon উত্তরঃ (গ) Once Hundred Years of Solitude.

১৪৩। A speech full of too many words is a verbose speech. 

ব্যাখ্যাঃ A speech full of too many words হলো একটি One-word substitution বা এক কথায় প্রকাশ হলো a verbose speech. 

১৪৪। Change the voice: “Nobody trusts a traitor. 

উত্তরঃ A traitor is not trusted by anybody. ব্যাখ্যাঃ প্রদত্ত বাক্যটিতে subject হলাে “Nobody’ এবং Object হলাে a traitor’, তাহলে Voice Change করার সময় Passive Structure হবে- object as subject + negative auxiliary verb (is not) + verb এর past participle (trusted) + subject as object (nobody)। থাকায় anybody) হবে। 

১৪৫। William Congreve wrote the play “The Way of the World”.

ব্যাখ্যাঃ ইংরেজি সাহিত্যের Neoclassical যুগের Augustan Period এর একজন বিখ্যাত নাট্যকার। তিনি Comedy of Manners ধারার নাটক লেখার জন্য খ্যাতিমান ছিলেন। আর এই ধারার নাটকগুলোর মধ্যে সবচেয়ে প্রসিদ্ধ The Way of the World’ নাটকটি। তাঁর অন্যান্য বিখ্যাত নাটকসমূহ হলো- The Double Dealer, The Old Bachelor, Love for love ইত্যাদি।

১৪৬। A herd of cattle is passing the underlined word as a collective noun. 

ব্যাখ্যাঃ প্রদত্ত বাক্যে সমজাতীয় প্রাণীর সমষ্টি (herd of cattle) বুঝানাের জন্য herd শব্দটি collective Noun হবে। 

১৪৭। What is the antonym for the word “deformation”? 

(ক) distortion (খ) contortion (গ) wholeness (ঘ) disfigurement উত্তরঃ (গ) wholeness,ব্যাখ্যাঃ Distortion, contortion, deformation, disfigurement এই শব্দগুলাে পরস্পর সমার্থক এদের অর্থ বিকৃতি। তাই এখানে wholeness অর্থ সম্পূর্ণতা, অভিন্নতা, সম্পূর্ণ বস্তু যা বিপরীত অর্থ প্রদান করে। 

১৪৮। Word inscribed on a tomb is an epitaph. 

ব্যাখ্যাঃ Epitaph -সমাধিস্তন্ত লিপি, সমাধিস্তম্ভের উৎকীর্ণ বাণী। 

১৪৯। “Better to reign in Hell, than serve in Heav’n”. John Milton wrote this.

ব্যাখ্যাঃ John Milton সপ্তদশ শতাব্দীর ইংরেজ মহাকবি ও যুক্তিবাদী লেখক। জীবনের একটা অংশ অন্ধ হিসেবে কাটালেও তিনি বিশ্বসাহিত্যেরই অন্যতম শ্রেষ্ঠ মহাকাব্য Paradise Lost রচনা করেছেন। প্রশ্নে প্রদত্ত “Better to reign in Hell, than serve in Heav’n” উক্তিটি এই Paradise Lost মহাকাব্যের Book One থেকে নেওয়া। যা শয়তান কর্তৃক বলা হয়েছিল। 

১৫০। O’Henry was from America.

ব্যাখ্যাঃ O’Henryএর আসল নাম ছিল William Sidney Porter. এই প্রখ্যাত ছোটগল্প লেখক যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলাইনা অঙ্গরাজ্যে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বিখ্যাত একটি ছোটগল্প “The Gift of the Magi”.

১৫১। Where is the setting of the play “Hamlet”? 

(ক) England(খ) Italy (গ) France(ঘ) Denmark উত্তর: (ঘ) Denmarkব্যাখ্যাঃ ইংরেজি সাহিত্যের শ্রেষ্ঠ নাট্যকার William shakespeare এর অন্যতম শ্রেষ্ঠ ট্রাজেডি ধারার নাটক Hamlet, এই নাটকটির কাহিনী আবর্তিত হয়েছে ডেনমার্কের রাজপরিবারকে ঘিরে। ডেনমার্কের যুবরাজ Hamlet ও তার চাচা Claudius এর মধ্যকার দ্বন্দ্ব নিয়েই এই নাটকটির কাহিনী এগিয়েছে। 

১৫২। populous is the adjective form of the word ‘people”.

ব্যাখ্যাঃ people’ শব্দটি Noun -এর Adjective হালাে populous. 

১৫৩. ‘He contemplated marrying his cousin. Here marrying’ is a/an

(ক) present participle (খ) gerund (গ) verb(ঘ) infinitive উত্তরঃ (খ) gerund. ব্যাখ্যাঃ Verb এর object হিসেবে gerund বসে। তাই প্রদত্ত। বাক্যে verb contemplate এর object হিসেবে ব্যবহৃত শব্দ marrying হলো gerund.

১৫৫। ‘No Second Troy’ is a poem. 

ব্যাখ্যাঃ নােবেলজয়ী আইরিশ কবি W.B. Yeats রচিত “No Second Troy একটি সনেট জাতীয় কবিতা। 

১৫৬। The word to genuflect’ means to bending one’s knee. 

ব্যাখ্যাঃ Genuflect নতজানু হয়ে কাউকে সমন জানানাে। to genuflect- by bending one knee to the ground. typically in worship or as a sign or respect. 

১৫৭। Arundhati Roy is the author of the novel ‘The God of Small Things.

ব্যাখ্যাঃ ভারতের আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সাহিত্যিক Arundhati Roy রচিত প্রথম উপন্যাস ‘The God of small Things’, তিনি এই উপন্যাসের জন্য ১৯৯৭ সালে Man Booker Prize লাভ করেন।

১৫৮। Moby Dick’ a novel was written by Herman Melville. 

ব্যাখ্যাঃ মার্কিন লেখক Herman Melville লিখিত তুমুল জনপ্রিয় একটি উপন্যাস Moby Dick, এর অন্য নাম “The Whale”, এটি একটি তিমি মাছের বিরুদ্ধে এক নাবিকের প্রতিশােধ নেওয়ার রােমাঞ্চকর অভিযানের আখ্যান। 

১৫৯। “If Winter comes, can Spring be far behind?”. P. B. Shelley wrote this. 

ব্যাখ্যাঃ প্রদত্ত পঙক্তিটি রোমান্টিক যুগের বিখ্যাত কবি P. B. Shelley রচিত Ode to the West Wind নামক Ode থেকে কবিতা থেকে চয়িত হয়েছে। 

১৬০। Fill in the blank : ‘She went to New Market on foot.

ব্যাখ্যাঃ পায়ে হেটে কোথাও যাওয়া বুঝাতে on foot ব্যবহৃত হয়।

১৬১। Fill in the gap. Birds fly in the sky …….(at large). 

ব্যাখ্যাঃ মুক্তভাবে আকাশে উড়া বােঝানাের জন্য at large (স্বাধীন বা মুক্ত ভাবে ব্যবহৃত হয়।

১৬২। P. B. Shelley is the poet of the poem “Ozymandias”.

ব্যাখ্যাঃ Poet of the wind নামে বিখ্যাত রােমান্টিক যুগের কবি। P. B. Shelley রচিত কবিতা Ozymandias’. ইহা একটি সনেট জাতীয় কবিতা। 

১৬৩। The most famous romantic poet of English Literature is William Wordsworth.

ব্যাখ্যাঃ ১৭৯৮ সালে William Wordsworth এবং S.T. Coleridge রচিত Lyrical Ballads প্রকাশিত হবার সাথে সাথেই ইংরেজি সাহিত্যের Romantic Period শুরু হয়।

১৬৪। the synonym for the word “magnanimous” is “generous”. 

ব্যাখ্যাঃ “Magnanimous’- এর অর্থ উদার, মহানুভব, মহৎ এর সমার্থক শব্দ generous (উদার)। অন্যদিকে unkind – নির্দয়, revengeful – প্রতিশােধপ্রাণ, friendly- বন্ধুত্বপূর্ণ। এই শব্দগুলাে “magnanimous” এর সমার্থক নয়। 

১৬৫। Choose the right form of verb:

It is high time we (act) on the matter. (ক) are acting (খ) acted (গ) have acted (ঘ) could act উত্তরঃ (খ) acted. ব্যাখ্যাঃ It is high time যুক্ত বাক্যের verb past indefinite অথবা Infinitive (to+ verb) হয়। 

১৬৬। William Blake was both a poet and a painter. 

ব্যাখ্যাঃ William Blake (1757-1827) ছিলেন একজন বহু প্রতিভাবান শিল্পী Songs of Innocence and Songs of Experience এর মত উৎকৃষ্ট কাব্য লেথার পাশাপাশি তিনি চিত্রকর্ম ও খােদাই শিল্পেও দক্ষতা দেখিয়েছেন।

১৬৭। Identify the correct sentence:

(ক) The girl burst out tears. (খ) The girl burst into tears. (গ) The girl burst with lears. (ঘ) The girl bursted out tears. উত্তরঃ (খ) The girl burst into tears. ব্যাখ্যাঃ burst এর সাথে appropriate preposition হিসেবে into বসে।

১৬৮। The phrase “sine die” means uncertain (sine die- অপমৃত্যু)।

ব্যাখ্যাঃ The phrase “sine die” – indefinitely uncertain বা অপমৃত্যু। 

১৬৯। Julius Caesar is a historical kind of play.

ব্যাখ্যাঃ যদিও Roman-Tragedy হিসেবে বিখ্যাত William Shakespeare রচিত Julius Caesar ইতিহাস আশ্রিত নাটক হিসেবেও বিবেচনা করা যায়।

৪৩ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার বাংলাদেশ বিষয়াবলীর প্রশ্ন ও উত্তরঃ

৪৩ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষারবাংলাদেশ বিষয়াবলীর বিস্তারিত আলোচনা নিচে উপস্থাপন করা হলো। [ads1]

বাকীগুলোর বিস্তারিতসহ আসছে……………………………… 

এখানে পেলেন ৪৩ তম বিসিএস পরীক্ষার প্রশ্ন ও সমাধান pdf, ৪৩ তম বিসিএস পরীক্ষার প্রশ্ন ও সমাধান সেট ৪, ৪৩ তম বিসিএস পরীক্ষার প্রশ্ন ও সমাধান সেট ২, ৪১ তম বিসিএস পরীক্ষার প্রশ্ন ও সমাধান, ৪৩ তম বিসিএস প্রশ্ন সমাধান সেট ২, ৪৩ তম বিসিএস পরীক্ষার প্রশ্ন pdf, ৪৩ তম বিসিএস পরীক্ষার সমাধান সেট ২, ৪২ তম বিসিএস পরীক্ষার প্রশ্ন ও সমাধান