সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী pdf সহ ২০২২ (১ম পর্ব)

প্রিয় চাকরি প্রার্থী ভাই ও বোনেরা, আশা করি সবাই ভাল আছেন। আজ আমি আপনাদের জন্য সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী (প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ প্রস্তুতি তে কাজে লাগবে এমন সকল সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী pdf সহ ২০২২ এবং বিগত ২০২১ ও ২০২১ সহ নিয়ে আজকের এ আয়োজন।

[ads1]

এই পোস্টে আপনারা পাচ্ছেন গুরুত্বপূর্ণ সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী থেকে, আরো পাবেন সরকারি যেকোনো চাকরির সাধারণ জ্ঞান, বিসিএস সহ যেকোন প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় আসা বিগত বছরের সাধারণ জ্ঞান প্রশ্ন ২০২১, বাংলাদেশের বিভিন্ন সরকারি এবং প্রাইভেট ব্যাংকে আসা সাধারণ জ্ঞান প্রশ্ন উত্তর, বিসিএস সাধারণ জ্ঞান, সাধারণ জ্ঞান প্রশ্ন এবং উত্তর ২০২১, বাংলাদেশ ছোটদের সাধারণ জ্ঞান, বাংলাদেশের ইতিহাস সংক্রান্ত সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

দ্বিতীয় পর্ব এখানেঃ সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলীর (প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ প্রস্তুতি)

[ads1]

আন্তর্জাতিক বিষয়াবলীঃ আন্তর্জাতিক বিষয়াবলী ২০২২| আন্তর্জাতিক সাধারণ জ্ঞান ২০২২ আপডেটেড

সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী pdf

সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী

নিচে সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী এর বিভিন্ন তথ্য বিস্তারিত আপনাদের জন্য আলোচনা করা হলো।

[ads1]

বাংলাদেশের সীমারেখা : বাংলাদেশের উত্তর-দক্ষিণ ও পূর্ব -পশ্চিম কি অবস্থিত? 

এখানে সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী সংক্রান্ত বাংলাদেশের সীমারেখা যেমন বাংলাদেশের উত্তর-দক্ষিণ ও পূর্ব -পশ্চিম কি অবস্থিত তা আলোচনা করা হয়েছে।

  1. সর্ব উত্তরের স্থান-বাংলাবান্ধা। 
  2. সর্ব উত্তরের গ্রামের নাম– জায়গীরজোত। 
  3. সর্ব উত্তরের থানা-তেঁতুলিয়া। 
  4. সর্ব উত্তরের জেলা-পঞ্চগড়। 
  5. সর্ব দক্ষিণের স্থান-ছেড়াদ্বীপ সেন্টমার্টিন। 
  6. সর্ব দক্ষিণের থানা-টেকনাফ। 
  7. সর্ব দক্ষিণের জেলা-কক্সবাজার। 
  8. সর্ব পূর্বের স্থান-আখাইন ঠং। 
  9. সর্ব পূর্বের থানা/ উপজেলা-থানচি। 
  10. সর্ব পূর্বের জেলা-বান্দরবন। 
  11. সর্ব পশ্চিমের স্থান-মনাকশা। 
  12. সর্ব পশ্চিমের থানা-শিবগঞ্জ। 
  13. সর্ব পশ্চিমের জেলা-চাঁপাইনবাবগঞ্জ। 
  14. উত্তর-পূর্বের থানা:- জকিগঞ্জ,সিলেট। 
  15. দক্ষিণ-পশ্চিমের থানা-শ্যামনগর (সাতক্ষীরা)।

বাংলাদেশের প্রথম সব কিছু : First in Bangladesh 

এখানে সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী পার্টের বাংলাদেশের প্রথম সব কিছু : First in Bangladesh সম্পর্কে তুলে ধরা হলো।

[ads1]

  1. প্রথম এভারেষ্ট বিজয়ী–মুসা ইব্রাহিম (২৩ মে, ২০১০)। 
  2. প্রথম মহিলা এভারেষ্ট বিজয়ী নিশাত মজুমদার(১৯ মে, ২০১২)। 
  3. প্রথম স্পীকার (গণ পরিষদ)–শাহ আব্দুল হামিদ। 

4, প্রথম স্পীকার (জাতীয় সংসদ)–মােহাম্মদ উল্ল্যাহ 

  1. প্রথম নারী স্পিকার—ড. শিরিন শারমিন চোধুরী। 
  2. প্রথম রাষ্ট্রপতি–বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। 
  3. প্রথম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি– সৈয়দ নজরুল ইসলাম 

৪. প্রথম উপ-রাষ্ট্রপতি–সৈয়দ নজরুল ইসলাম

9. প্রথম সি.ইন.সি. –জেনারেল এম. এ. জি, ওসমানী

  1. প্রথম সেনাবাহিনীর প্রধান –জেনারেল এম. এ. জি, ওসমানী 
  2. প্রথম প্রধান বিচারপতি–এ. এস. এম. সায়েম 
  3. প্রথম এটর্নী জেনারেল –এম, এইচ, খােন্দকার। 
  4. প্রথম প্রধানমন্ত্রী–তাজউদ্দিন আহমেদ । 
  5. প্রথম মহিলা প্রধানমন্ত্রী– বেগম খালেদা জিয়া । 
  6. প্রথম মহিলা রিবােধী দলীয় নেত্রী শেখ হাসিনা
  7. প্রথম নির্বাচন কমিশন–বিচারপতি মােহাম্মদ
  8. প্রথম জাতীয় পতাকা উত্তোলনকারী–আ, স, ম, আব্দুর রব। 
  9. প্রথম মহিলা নােটারী পাবলিক-মিসেস কামরুন্নাহার লাইলী । 

19, প্রথম মহিলা পাইলট–কানিজ ফাতেমা ( রােকশানা ।

  1. প্রথম মহিলা রাষ্ট্রদূত–মাহমুদা হক চৌধুরী । 
  2. পুলিশ একাডেমীর প্রথম মহিলা প্যারেড কমান্ডার–এলিজা শারমিন (০২ সেপ্টেম্বর, ২০০৭)। 
  3. প্রথম মডেল থানা– ভালুকা, ময়মনসিংহ। 
  4. প্রথম মহিলা কুটনীতিবিদ–তাহমিনা হক ডলি । 
  5. প্রথম মহিলা সচিব–জাকিয়া আখতার। 
  6. প্রথম মহিলা এস.পি –বেগম রওশন আরা । 

26, প্রথম মহিলা কাস্টমস কমিশনার — হাসিনা খাতুন। 

  1. বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রথম মহিলা ব্যবস্থাপক – নাজনিন সুলতানা। 
  2. ব্যাংকিং জগতের প্রথম মহিলা এম.ডি.–আনিস হামেদ । 
  3. হাইকোর্টের প্রথম মহিলা বিচারপতি-নাজমুন | আরা সুলতানা। 
  4. প্রথম মহিলা বিগ্রেডিয়ার–সুরাইয়া রহমান। 

31, বাংলাদেশের প্রথম ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্র–বেতবুনিয়া, রাঙ্গামাটি। 

  1. পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম নারী ভি.সি – অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম
  2. প্রথম বাঙ্গালী ভাইস চ্যান্সেলর– স্যার এফ রহমান। 

34, প্রথম বাঙ্গালী বিলেত গমণকারী– রাজা রামমােহন রায়। 

35, প্রথম বাঙ্গালী বিচারপতি–স্যার সৈয়দ আমির আলী। 

36, প্রথম বাঙ্গালী নােবেল বিজয়ী– রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর(১৯১৩)। 

37, প্রথম বাংলাদেশী নােবেল বিজয়ী—ডঃ মােহাম্মদ ইউনুস(২০০৬)। 

  1. প্রথম উপজাতীয় রাষ্ট্রদূত–শরদিন্দু শেখর চাকমা। 
  2. প্রথম বানিজ্য জাহাজ– বাংলার দূত। 
  3. প্রথম রণতরী –বি. এন. এস. পদ্মা । 
  4. প্রথম বাংলা চলচ্চিত্র–মুখ ও মুখােশ । 
  5. প্রথম নারী ওসি –হােসনে আরা বেগম। 
  6. জাতিসংঘে বাংলাদেশের প্রথম স্থায়ী প্রতিনিধি

44, জাতিসংঘে বাংলাদেশের প্রথম (মহিলা) স্থায়ী প্রতিনিধি –ইসমাত জাহান। 

45, প্রথম ইংলিশ চ্যানেল অতিক্রমকারী বাঙ্গালী– | ব্ৰজেন দাশ (৬ বার)। 

  1. বিটিভি’র প্রথম মহিলা মহাপরিচালক–ফেরদৌস আরা বেগম । 

47, প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় —ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় । 

  1. ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম ভাইস-চ্যান্সেলর– স্যার পি. জে. হাটর্স। 
  2. ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম মহিলা উপ-উপাচার্য – ডঃ জিন্নাতুন্নেছা তাহমিদা । 

50, বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের প্রথম মহিলা চেয়ারম্যান–ডঃ জিন্নাতুন্নেছা তাহমিদা । 

51, ঢাকা পৌরসভার প্রথম চেয়ারম্যান- মিঃ স্কিনার। 

  1. ঢাকা পৌরসভার নির্বাচিত প্রথম চেয়ারম্যান– আনন্দ চন্দ্র রায়। 
  2. ঢাকা পৌর কর্পোরেশনের প্রথম মেয়র– ব্যারিস্টার আবুল হাসনাত।
  3. ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচিত প্রথম মেয়র| – মােহাম্মদ হানিফ। 
  4. প্রথম মহিলা সিটি মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভি । 
  5. বাংলদেশ ব্যাংকের প্রথম গর্ভর্নর–এ. এন. হামিদুল্লাহ । 
  6. বাংলাদেশে প্রথম মুদ্রা প্রচলনের তারিখ-০৪ মার্চ, ১৯৭২। 
  7. বাংলাদেশকে প্রথম স্বীকৃতি প্রদানকারী দেশ ভারত (৬ দিসেম্বর,১৯৭১)। বর্তমানে ভূটানকে ধরা হয়। 

59, ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন এর প্রথম বাংলাদেশি প্রেসিডেন্ট –সাবের হােসেন চৌধুরী

বাংলাদেশের বৃহত্তম, ক্ষুদ্রতম, সর্বোচ্চ, সর্বনিন্ম স্থানঃ 

নিম্নে সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী এর বাংলাদেশের বৃহত্তম, ক্ষুদ্রতম, সর্বোচ্চ, সর্বনিন্ম স্থান সম্পর্কে আলোচনা করছি।

[ads1]

  1. বৃহত্তম বাঁধ –কাপ্তাই বাঁধ। 
  2. বৃহত্তম বিল –চলন বিল। 

3, বৃহত্তম চিনির কল–কেরু এন্ড কোং, দর্শনা, কুষ্টিয়া। 

  1. বৃহত্তম পাটকল –আদমজী জুট মিল | (নারায়নগঞ্জ)। 
  2. বৃহত্তম রেল স্টেশন–কমলাপুর (ঢাকা)। 
  3. বৃহত্তম রেল জংশন– ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন।
  4. বৃহত্তম রেল কারখানা—সৈয়দপুর রেল কারখানা। 

৪. বৃহত্তম মসজিদ–বায়তুল মােকাররম (ঢাকা)। 

  1. বৃহত্তম বিমান বন্দর—হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর (ঢাকা)। 
  2. বৃহত্তম একক বনভূমি–সুন্দরবন। 
  3. বৃহত্তম গ্রন্থাগার–পাবলিক লাইব্রেরী (ঢাকা)। 
  4. বৃহত্তম উদ্যান–সােহরাওয়ার্দী উদ্যান
  5. বৃহত্তম পার্ক-রমনা পার্ক। 
  6. বৃহত্তম থানা–বাঘাইছড়ি (১৯৮১ ব;
  7. আয়তনে বড় থানা-শ্যামনগর (সাতক্ষীরা) 
  8. জনসংখ্যায় বৃহত্তম থানা–বেগমগঞ্জ, নােয়াখালী। 

17, আয়তনে ক্ষুদ্রতম থানা– ওয়ারি, ঢাকা। 

  1. জনসংখ্যায় ছােট থানা-রাজস্থলী (রাঙামাটি)। 
  2. আয়তনে বৃহত্তম জেলা-রাঙ্গামাটি (৬১১৬ ব: কি:মি:)। 
  3. আয়তনে ক্ষুদ্রতম জেলা—নারায়ণগঞ্জ 
  4. বৃহত্তম বিভাগ–চট্টগ্রাম (৩৩,৭৭১ ব:কি:মি:)। 
Read More :   চাকরির জন্য কম্পিউটার বিষয়ক প্রশ্ন ও উত্তর ১০০ টি (প্রথম পর্ব)

22, ক্ষুদ্রতম বিভাগ– ময়মনসিংহ (৪,৩৬৩,৪৮ | বর্গকিমি) 

  1. বৃহত্তম দ্বীপ–ভােলা (৩৮৬ ব:কি:মি:)। 

24, বৃহত্তম বিশ্ববিদ্যালয়–ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। 

  1. বৃহত্তম কাগজের কল–কর্ণফুলী পেপার মিল | (চন্দ্রঘােনা, রাঙ্গামাটি)। 
  2. বৃহত্তম সার কারখানা–শাহজালাল সার কারখানা (ফেঞ্চুগঞ্জ)। 
  3. বৃহত্তম জাদুঘর–ঢাকা জাতীয় জাদুঘর। 
  4. বৃহত্তম চিড়িয়াখানা-মিরপুর চিড়িয়াখানা।
  5. বৃহত্তম চক্ষু হাসপাতাল–চক্ষু হাসপাতাল (চট্টগ্রাম। 
  6. বৃহত্তম হাসপাতাল–ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। 
  7. বৃহত্তম স্টেডিয়াম–বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম। 
  8. বৃহত্তম ব্যাংক-বাংলাদেশ ব্যাংক। 

33, বৃহত্তম বানিজ্যিক ব্যাংক—সােনালী ব্যাংক। 

34, বৃহত্তম সিনেমা হল– মনিহার (যশাের)। 

  1. বৃহত্তম কন্টেনার জাহাজ– বাংলার দূত 
  2. জনসংখ্যায় বড় জেলা/ বৃহত্তম শহর—ঢাকা 
  3. বৃহত্তম সমুদ্র বন্দর–চট্টগ্রাম বন্দর 
  4. বৃহত্তম জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র– কাপ্তাই জলবিদ্যুৎকেন্দ্র 
  5. বৃহত্তম তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র– পায়রা তাপবিদ্যুৎ
  6. বাংলাদেশের বৃহত্তম গ্যাসক্ষেত্র-তিতাস, ব্রাহ্মণবাড়িয়া 
  7. বাংলাদেশের বৃহত্তম হােটেল-হােটেল সােনারগাঁও, ঢাকা। 

42, বাংলাদেশের সর্বোচ্চ পর্বত শৃঙ্গ– তাজিংডং (বিজয়) (১২৩১ মিঃ) 

43, বাংলাদেশের সর্বোচ্চ পাহাড় –পারাে (ময়মনসিংহ) 44, বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বৃক্ষ — বৈলাম (প্রায় ৬১ মিটার) 

  1. বাংলাদেশের দীর্ঘতম/প্রশস্ততম নদী মেঘনা । 
  2. বাংলাদেশের দীর্ঘতম রেল সেতু-হার্ডিঞ্জ ব্রীজ (১৭৯৬ মি:)। 
  3. বাংলাদেশের দীর্ঘতম সড়ক সেতু– বঙ্গবন্ধু যমুনা ব্রীজ (৪.৮ কি: মি:)। 
  4. বাংলাদেশের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত – কক্সবাজার (পৃথিবীর মধ্যে দীর্ঘতম)।

49, বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত–লালখান, সিলেট (৩৮৭৭ মি:মি:) 

  1. বাংলাদেশের সর্বনিম্ন বৃষ্টিপাত –লালপুর, নাটোর 
  2. বাংলাদেশের উষ্ণতম স্থান–রাজশাহীর লালপুর (৪৫.১ ডিগ্রী)। 
  3. বাংলাদেশের শীতলতম স্থান–সিলেটের শ্রীমঙ্গল (২.৮ ডিগ্রী) 

53, সমুদ্র সমতল থেকে জেলা সবচেয়ে উচুতে – দিনাজপুর ( ৩৭.৫০মিটার)

বাংলাদেশের ঐতিহ্য

সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী অধ্যায়ের মধ্যে বাংলাদেশের ঐতিহ্য অন্যতম। এখানে এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা আছে।

[ads1]

1. বাংলার প্রাচীন জনপদ সমূহ-পুন্ড্র, বঙ্গ, গৌড়, রাঢ়, সমতট, হরিকেল
2. সবচেয়ে প্রাচীন জনপদ–পুন্ড্র
3. পুন্ড্র জনপদটি বর্তমানে — বগুড়া (মহাস্থানগড়), রাজশাহী, রংপুর ও দিনাজপুর
4. বঙ্গ জনপদটি বর্তমানে == ঢাকা, ফরিদপুর,ময়মনসিংহ
5. গৌড় জনপদটি বর্তমানে — মালদহ, মুর্শিদাবাদ, নদীয়া ও চাপাইনবাবগঞ্জ
6. সমতট জনপদটি বর্তমানে–কুমিলা ও নােয়াখালী।
7. হরিকেল জনপদটি বর্তমানে সিলেট ও চট্টগ্রাম
৪, রাঢ় জনপদটি বর্তমানে–পশ্চিম বাংলার দক্ষিণাঞ্চল (বর্ধমান জেলা)
9. বরেন্দ্র অঞ্চল–বগুড়া, রাজশাহী, দিনাজপুর ও পাবনার কিছু অংশ ।

মুজিবনগর সরকার বা অস্থায়ী সরকার 

মুজিবনগর সরকার বা অস্থায়ী সরকার হলো সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী এর অন্যতম অধ্যায় হিসেবে পরিচিত। তাই মুজিবনগর সরকার বা অস্থায়ী সরকার অধ্যায়টি পড়লে যেকোন চাকরির পরীক্ষায় কমন আসবেই।

[ads1]

1 অস্থায়ী সরকারের অন্য নাম-= মুজিবনগর সরকার। 

  1. অস্থায়ী সরকার কবে গঠিত হয়েছিল–১০ এপ্রিল, ১৯৭১। 
  2. সর্বপ্রথম স্বাধীন মন্ত্রিসভা গঠিত হয়–১০ এপ্রিল, ১৯৭১। 
  3. অস্থায়ী সরকার কবে শপথ গ্রহন করেছিল–১৭ এপ্রিল, ১৯৭১। 
  4. বাংলাদেশকে প্রজাতন্ত্র ঘােষনা করা হয়েছিল – ১৭ এপ্রিল, ১৯৭১। 
  5. অস্থায়ী সরকারের ঘােষনাপত্র পাঠ করেন– অধ্যাপক ইউসুফ আলী। (১৭ এপ্রিল) । 
  6. স্বাধীনতার ঘােষণাপত্র পাঠ করেন–অধ্যাপক ইউসুফ আলী (১৭ এপ্রিল) । 

৪. জেনারেল ওসমানী সেনা প্রধান নিযুক্ত হন–১৮ এপ্রিল, ১৯৭১। 

9, অস্থায়ী সরকারের রাজধানী –মেহেরপুর জেলার মুজিবনগরে। 

  1. মুজিবনগরের পুরাতন নাম কি ছিল–বৈদ্যনাথ তলার ভবের পাড়া।
  2. বৈদ্যনাথ তলার নাম মুজিব নগর রাখেন– তাজউদ্দিন আহম্মেদ। 
  3. অস্থায়ী সরকারের সদস্য সংখ্যা কত ছিল==৬ জন। 
  4. রাষ্ট্রপতি –শেখ মুজিবর রহমান। 
  5. প্রধানমন্ত্রী–তাজউদ্দিন আহম্মেদ। 
  6. অস্থায়ী/উপ রাষ্ট্রপতি –সৈয়দ নজরুল ইসলাম। 
  7. অর্থমন্ত্রী – এম, মনসুর আলী। 
  8. স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী–এ এইচ এম কামরুজ্জামান। 
  9. আইন , সংসদীয় ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী–খন্দকার মােশতাক আহমদ। 
  10. অস্থায়ী সরকারেরকে প্রথম গার্ড অনার প্রদান করেন–মাহবুব উদ্দিন আহমেদ (বীর বিক্রম) 
  11. অস্থায়ী সরকারের প্রথম বিমান বাহিনীর প্রধান – ক্যাপ্টেন এ কে খন্দকার। 
  12. অস্থায়ী সরকারের সচিবালয়– ৮ নং থিয়েটার রােড, কলকাতা ।

বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দানকারী দেশ

বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দানকারী দেশ কোনগুলো? এ অধ্যায়টিও সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী এর খুবই গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়। এখান থেকে একটি প্রশ্ন আসেই।

[ads1]

  1. প্রথম দেশ—ভুটান। (বাংলাদেশকে সর্বপ্রথম স্বীকৃতি দানকারী দেশ হলো ভুটান)
  2. প্রথম মুসলিম দেশ-ইরাক । 
  3. প্রথম মধ্যপ্রাচ্য এবং আরব দেশ ইরাক । 
  4. প্রথম — মালয়েশিয়া 
  5. প্রথম ইউরােপিয়ান দেশ–পূর্ব জার্মানী। 
  6. প্রথম ইউরােপিয়ান স্বাধীন দেশ-পােলান্ড ও বুলগেরিয়া । 
  7. প্রথম সমাজতান্তিক — পােলান্ড 

৪. প্রথম আফ্রিকান দেশ/ অনারব মুসলিম

দেশ– সেনেগাল। 

  1. প্রথম আমেরিকান দেশ — কানাডা 
  2. প্রথম উত্তর আমেরিকার দেশ — বার্বাডােস 
  3. প্রথম ওশেনিয়া দেশ – টোঙ্গা । 
  4. সর্বশেষ দেশ চীন।

বাংলাদেশের ভাস্কর্য -ভাস্কর-স্থানঃ

আপনারা এখানে সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী পার্টের বাংলাদেশের ভাস্কর্য -ভাস্কর-স্থান সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

  1. বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধ—মােস্তফা হারুন কুদুস, হিলি –মিরপুর, ঢাকা । 
  2. জাতীয় স্মৃতিসৌধ–মাঈনুল হােসেন–সাভার, ঢাক। 
  3. মুজিবনগর স্মৃতি সৌধ –তানভীর কবির– মুজিবনগর, মেহেরপুর । 
  4. কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার–হামিদুর রহমান–ঢাকা মেডিকেল কলেজ প্রাঙ্গন । 
  5. জাতীয় সংসদ ভবন–লুই আই কান–শেরে বাংলা নগর, ঢাকা। 
  6. অদম্য বাংলা–গোপাল চন্দ্র পাল–খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় 

7, মুক্ত বাংলারশিদ আহমেদ–ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় । 

৪. জয় বাংলা হামিদুজ্জামান খান—পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ।

  1. সংশপ্তক-হামিদুজ্জামান খান–জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় । 

10, স্মৃতির মিনার–হামিদুজ্জামান খান–জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় । 

  1. বিজয় বিহঙ্গ–(হামিদুজ্জামান খান আমিনুল হাসান লিটু)-বরিশাল। 

12, স্বাধীনতা–হামিদুজ্জামান খান-কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, ঢাকা । 

  1. স্বাধীনতা স্মৃতিস্তম্ভ- এ কে এম ইকবাল-ঢাকা সেনানিবাস । 
  2. স্বাধীনতা সংগ্রাম–শামীম সিকদার–ফুলার রােড, ঢাবি ।

15, স্বােপার্জিত স্বাধীনতা–শামীম সিকদার–টিএসসি, ঢাবি । 

  1. বিজয়ােল্লাস–শামীম সিকদার—আনােয়ার পাশা ভুবন। 
  2. দোয়েল চত্বর–আজিজুল জলিল পাশা–কার্জন হল, ঢাবি । 
  3. শাপলা চত্বর–আজিজুল জলিল পাশা — মতিঝিল, ঢাকা ।
  4. অপরাজেয় বাংলা–সৈয়দ আব্দুল্লাহ খালেদ– ঢা:বি: কলাভবনের সামনে । 
  5. রাজু ভাস্কর্য-শ্যামল চৌধুরী-টিএসসি চত্বর, ঢাবি । 
  6. তিন নেতার মাজার–মাসুদ আহম্মদ-ঢাবি, | কার্জন হল সংলগ্ন । 
  7. মা ও শিশু–নভেরা আহম্মেদ-মুজিব হল, ঢাবি

23, নারী, শিশু ও পুরুষ-নভেরা আহম্মেদ—ঢাবি । 

  1. একাত্তরের গণহত্যা–ভাস্কর রাশা–জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় । 

25, মুক্তিযােদ্ধের প্রস্তুতি–ভাস্কর রাশা–জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় । | 

26, অমর একুশে-জাহানারা পারভীন–জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় । 

  1. সাম্পান-নিতুন কুণ্ডু-চট্টগ্রাম । 
  2. সাবাস বাংলাদেশ-নিতুন কুণ্ডু-রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় । | 
  3. কদম ফোয়ারা–নিতুন কুণ্ডু—সুপ্রীম কোর্ট, ঢাকা
  4. সার্ক ফোয়ারা–নিতুন কুন্ডু–পান্থপথ, ঢাকা । 

31, বিজয় স্মরণী ফোয়ারা–আবদুর রাজ্জাক– তেজগাঁও, ঢাকা। 

  1. জাগ্রত চৌরংগী–আবদুর রাজ্জাক- জয়দেবপুর, গাজীপুর। 
  2. অপরাজয়-৭১-স্বাধীন চৌধুরী–ঠাকুরগাঁও। 
  3. চেতনা- ৭১-মােঃ মইনুল–কুষ্টিয়া পুলিশ লাইন

35, বিজয়- ৭১– শ্যামল চৌধুরীর–কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহ ।

36, প্রত্যয়-৭১– মৃণাল হক -মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় । 

  1. জয়িতা-৭১- – ইডেন মহিলা কলেজ, ঢাকা । 
  2. দুর্জয়-মৃণাল হক -রাজারবাগ পুলিশ লাইনসে
  3. চিরদুর্জয় –মৃণাল হক –রাজারবাগ, ঢাকা । 

40, বলাকা –মৃণাল হক –মতিঝিল, ঢাকা ।

  1. রাজসিক বিহার –মৃণাল হক হােটেল শেরাটনের সামনে, ঢাকা । 
  2. প্রত্যাশা –মৃণাল হক –বঙ্গবাজার, ঢাকা । 
  3. সাম্যবাদ –মৃণাল হক–কাকরাইল, ঢাকা 
Read More :   সিনিয়র অফিসার প্রশ্ন সমাধান | Bank job question solution of senior officer

44, বর্ষারাণী –মৃণাল হক–তেজগাঁও, ঢাকা। 

  1. বাউল ভাস্কর্য–মৃণাল হক–শাহজালাল আন্তঃ বিমানবন্দর । 

46, অ-মৃণাল হক–সায়েন্স ল্যাব, ঢাকা 

  1. গােল্ডেন জুবিলী টাওয়ার–মৃণাল হক-রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় । 
  2. সীমান্ত গৌরব–মৃণাল হক-বিজিবি সদরদপ্তর, পিলখানা। 
  3. মােদের গৌরব—অখিল পাল—বাংলা একাডেমী,ঢাকা । 

50, রানার–আজম হক সাজু–পােস্টাল একাডেমি, রাজশাহী ।। 

  1. মুক্তিমিত্র ভাস্কর্য -কুষ্টিয়া জেলায় 
  2. চায়ের দেশে স্বাগতম’ ভাস্কর্যটি- শ্রীমঙ্গলে

বাংলাদেশের ভৌগলিক উপনামঃ

বাংলাদেশের ভৌগলিক উপনাম কি কি? এই অধ্যায়টিও সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী এর অন্তর্ভূক্ত।

[ads1]

  1. পৃথিবীর ববাংলাদেশ- দ্বীপ
  2. জনসংখ্যার দেশ – বাংলাদেশ 
  3. নদীমাতৃক দেশ – বাংলাদেশ 
  4. ভাটির দেশ – বাংলাদেশ 
  5. সােনালী আশের দেশ – বাংলাদেশ 
  6. মসজিদের শহর – ঢাকা 
  7. রিক্সার নগরী – ঢাকা 

৪. Wifi নগরী – সিলেট 

  1. ডিজিটাল নগরী- সিলেট— 
  2. ডিজিটাল জেলা – যশাের— 
  3. বাংলাদেশের বাণিজ্যিক রাজধানী – চট্টগ্রাম 
  4. ১২ আউলিয়ার আবাসভূমি – চট্টগ্রাম 
  5. ৩৬০ আউলিয়ার আবাসভূমি – সিলেট 

14, বাংলার লন্ডন – সিলেট 

  1. বাংলার শস্যভান্ডার – বরিশাল 
  2. বাংলার ভেনিস – বরিশাল 
  3. বাংলার আমাজান- রাতারগুল, সিলেট 
  4. বাংলার ফুসফুস- সুন্দরবন 
  5. প্রাচ্যের ডান্ডি – নারায়ণগঞ্জ 
  6. সাগর দ্বীপ –ভােলা (সবচেয়ে বড় দ্বীপ) 
  7. বাংলাদেশের রুটির ঝুড়ি বলা হয়- দিনাজপুর

বাংলাদেশের যত কন্যা এবং রানী এর কনফিউশন সমাধানঃ

প্রায় প্রতি পরীক্ষাতেই বাংলাদেশের যত কন্যা এবং রানী সম্পর্কিত প্রশ্ন আসে তাই এটা নিয়ে মনের মধ্যে অনেক কনফিউশন এর সৃষ্টি হয়। তাই সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী এর জন্য বিস্তারিত সমাধান দেওয়া হলো।

[ads1]

1, সাগরকন্যা কুয়াকাটা, পটুয়াখালী । 

  1. হিমালয়কন্যা –পঞ্চগড়। 
  2. পাহাড়ী কন্যা- বান্দরবন 
  3. হিমালয়ের কন্যা- পঞ্চগড় 
  4. সূর্যকন্যা- কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত, পটুয়াখালী 
  5. সূর্যের কন্যা বলা হয়–তুলা পাছকে । 
  6. প্রকৃতি কন্যা- জাফলং, সিলেট 

৪. প্রকৃতির রানী- খাগড়াছড়ি 

  1. দ্বীপের রানী- ভােলা 
  2. বৃক্ষের রানী বলা হয় –খেজুর গাছকে । 
  3. পাহাড়ের রানী–চিম্বুক পাহাড়। 
  4. ধানকন্যা লিখেছেন – আলাউদ্দিন আল আজাদ 
  5. কাশবনের কন্যা লিখেছেন – শামসুদ্দিন আবুল কালাম 
  6. তিনকন্যা চিত্রটি এঁকেছেন – কামরুল হাসান 
  7. গণতন্ত্রের মানষ কন্যা – শেখ হাসিনা। 

16, কুচবরণের কন্যা শিশুতােষ সাহিত্য – বন্দে আলী মিয়া। 

17, কুচবরণ কন্যা- কাব্য- আশরাফ সিদ্দিকী 

18, যৈবতি কন্যার মন – সেলিম আল দীন 

19, প্রাচ্যের কন্যা = বেনজির ভুট্টো। 

  1. কন্যা কুমারী – উপন্যাসের লেখক আবদুর রাজ্জাক 
  2. কন্যা কুমারী – শহর : তামিলনাড়ু 

22, বিষকন্যা- কাব্য – ড. আশরাফ সিদ্দিকী 

  1. বিষকন্যা – গল্প – মঞ্জুশ্রী চৌধুরী।

বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলের নাম (পুরাতন)

বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলের নাম (পুরাতন) অনেক ভূমিকা পালন করে সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী এর জন্য।

[ads1]

1, ঢাকা—জাহাঙ্গীরনগর 

  1. মুজিবনগর-বৈদ্যনাথতলা 
  2. কুমিল্লা–ত্রিপুরা 
  3. সােনারগাঁও–সুবর্ণগ্রাম। 
  4. রাঙামাটি–হরিকেল 
  5. ময়নামতি–রােহিতগিরি 
  6. কুষ্টিয়া–নদীয়া 

৪. বরিশাল–চন্দ্রদ্বীপবাকলা/ইসমাইলপুর 

  1. নােয়াখালী–সুধারামপুর/ভুলুয়া 

10, চট্টগ্রাম —ইসলামাবাদ’চট্টলা/চাটগাঁ 

  1. ময়মনসিংহ–নাসিরাবাদ 

12, ফরিদপুর–ফতেহাবাদ 

  1. লালবাগ দুর্গ–আওরঙ্গবাদ দূর্গ 
  2. সিলেট-জালালাবাদ/ শ্রীহট্ট 
  3. খুলনা–জাহানাবাদ 
  4. বাগেরহাট-খলিফাবাদ 
  5. যশাের-খুলিফাতাবাদ 
  6. আসাদ গেট–আইয়ুব গেট 
  7. শেরে বাংলা নগর — আইয়ুব নগর 
  8. শাহবাগ — বাগ-ই-শাহেন শাহ 
  9. সাতক্ষীরা–সাতঘরিয়া 
  10. শেরে বাংলা নগর–আইয়ুব নগর 
  11. সেন্ট মার্টিন দ্বীপ–নারিকেল জিঞ্জিরা 

24, নিঝুম দ্বীপ-বাউলার চর 

  1. কক্সবাজার-ফালকিং 

26, ফেনী–শমসের নগর 

27, জামালপুর–সিংহজানী 

  1. গাইবান্ধা– ভবানীগঞ্জ 

29, দিনাজপুর–গণ্ডোয়ানাল্যান্ড 

  1. বাহাদুর শাহ পার্ক–ভিক্টোরিয়া পার্ক 
  2. রাজবাড়ি–গােয়ালন্দ 

32, বাংলা একাডেমী-বর্ধমান হাউজ 

  1. ভোলা-শাহবাজপুর 
  2. সিরডাপ কার্যালয়-চামেলি হাউজ 

35, মুন্সিগঞ্জ-বিক্রমপুর 

  1. প্রধানমন্ত্রীর ভুবন–গণভবন করতােয়া)
  2. পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় — রমনা হাউজ 

38, গাজীপুর–জয়দেবপুর 

  1. মহাস্থানগড় — পুন্ড্রবর্ধন 
  2. উত্তরবঙ্গ-বরেন্দ্রভূমি। 
  3. চাঁপাই নবাবগঞ্জ–গৌড় 
  4. বঙ্গভবন–গভর্নর হাউজ

বাংলাদেশের ভাষা ও সংস্কৃতি

বাংলাদেশের ভাষা ও সংস্কৃতি হলো সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী, সাম্প্রতিক সাধারণ জ্ঞান, সাধারণ জ্ঞান ২০২০, সাধারণ জ্ঞান 2020 এর খুবই গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় হিসেবে বিবেচিত।

[ads1]

বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলের নাচ ও গান

  1. মণিপুরি নাচ = সিলেট 
  2. ঝুমুর নাচ = রংপুর, রাজশাহী 
  3. ধুপ নাচ = খুলনা, ফরিদপুর, যশাের 
  4. বল নাচ = যশাের 
  5. জারি নাচ= ঢাকা ও ময়মনসিংহ

বাংলাদেশের গীত বা গানঃ 

  1. জারি গান= ঢাকা ও ময়মনসিংহ 
  2. গম্ভীরা গান= চাঁপাইনবাবগঞ্জ 
  3. ভাওয়াইয়া ও চটকা গান= রংপুর 
  4. গাজীর গান= রংপুর 
  5. ভাটিয়ালী গান ময়মনসিংহ 
  6. ভান্ডারী গান » চট্টগ্রাম জাতি ও ভাষা 
  7. বঙ্গ নামের উল্লেখ পাওয়া যায় – ঐতরেয় আরণ্যক গ্রন্থে 
  8. বাঙ্গালী জাতির পরিচয় — শংকর জাতি 
  9. বাঙলাদেশের প্রাচীন জাতি– দ্রাবিড় 
  10. যে গােষ্ঠী থেকে বাঙ্গালী জাতির প্রধান অংশ গড়ে ওঠেছে–অষ্টিক। 
  11. আদি আদিবাসীগণ যে ভাষাভাষী ছিল অষ্টিক 
  12. বাংলা ভাষা যে ভাষাগােষ্ঠীর অর্ন্তগত– ইন্দো| ইউরােপীয় 
  13. আর্য জাতি যে দেশ থেকে এদেশে আসে-ইরান 
  14. আর্যদের প্রাচীন ধর্মগ্রন্থের নাম– বেদ

বাংলাদেশের উপজাতি

সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী, সাম্প্রতিক সাধারণ জ্ঞান, সাধারণ জ্ঞান ২০২০, সাধারণ জ্ঞান 2020 এর বাংলাদেশের উপজাতি অধ্যায়টি অনেক প্রয়োজন তাই এখানে এ সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

[ads1]

1, উপজাতির সংখ্যা—৫০ 

  1. উপজাতীয় প্রতিষ্ঠান আছে– ৮টি 
  2. উপজাতিদের জন্য সরকারি সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান- ৩টি। 
  3. মুসলমান উপজাতি- পাঙন ও লাউয়া 
  4. মাতৃতান্ত্রিক উপজাতি- গারাে, খাসিয়া ও সাঁওতাল 
  5. পিতৃতান্ত্রিক উপজাতি- মারমা ও হাজং 

7, উপজাতীয় সাংস্কৃতিক একাডেমি- বিরিশিরি, নেত্রকোণা (প্রথম প্রতিষ্ঠিত; ১৯৭৭ সালে) 

৪. ট্রাইবাল কালচারাল ইন্সটিটিউট, রাঙামাটি 

  1. ট্রাইবাল কালচার একাডেমি- দিনাজপুর 
  2. পার্বত্য চট্টগ্রামের উপজাতিদের বর্ষবরণকে সামগ্রিকভাবে বলা হয়- বৈসাবি 
  3. ত্রিপুরাদের কাছে বর্ষবরণ-বৈসু। 

12, মারমাদের কাছে বর্ষবরণ–সাংগ্রাইং 

  1. চাকমাদের কাছে বর্ষবরণ-বিঝু নামে পরিচিত
  2. একমাত্র খেতাবপ্রাপ্ত আদিবাসী/উপজাতি মুক্তিযােদ্ধা- ইউ কে চিং (বীর বিক্রম) 
  3. ইউ কে চিং ছিলেন—মারমা উপজাতি । 
  4. শান্তিবাহিনীর প্রতিষ্ঠাতা, মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমা 
  5. শান্তিবাহিনীর বর্তমান চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বােধিপ্রিয় লারাম (সন্তু লারমা) 
  6. জনসংখ্যায় সবচেয়ে বেশি – চাকমা। 
  7. ‘চাকমা’ শব্দের অর্থ—মানুষ । 
  8. চাকমা –চট্টগ্রাম, রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান (চট্টগ্রামের খাবার) 
  9. চাকমা বিদ্রোহের নায়ক- জুম্মা খান (কার্পাস বিদ্রোহ) (১৭৭৬-৮৭) 

22, চাকমাদের কাছে বর্ষবরণ-বিঝু নামে পরিচিত

  1. জনসংখ্যায় দ্বিতীয়- সাঁওতাল 
  2. সাঁওতাল বাস করে–রাজশাহী, রংপুর, বগুড়া ও দিনাজপুর 

25, সাঁওতাল বিদ্রোহের নায়ক- ২ ভাই কানু আর সিদু (১৮৫৫-৫৬) 

  1. সবচেয়ে বেশি উপজাতি বাস করে–পার্বত চট্টগ্রামে । 
  2. পার্বত্য চট্টগ্রামে উপজাতি বাস করে- ১১টি 

28, পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রাচীনতম অধিবাসী- মুরং বা

29, রাখাইনরা এসেছে মায়ানমার থেকে 

30, ত্রিপুরা বা টিপরা বাস করে–খাগড়াছড়ি, বান্দরবান ও রাঙামাটি (খাবার) | 

  1. লুসাই–খাগড়াছড়ি, বান্দরবান ও রাঙামাটি (খাবার) 
  2. মগ–খাগড়াছড়ি, রাঙামাটি, বান্দরবান ও পটুয়াখালী (মগরা খাবার পটু) 

33, মারমা–বান্দরবান, কক্সবাজার ও পটুয়াখালী (মারমা বান্দর কক্স পটু) 

  1. রাখাইন — কক্সবাজার ও পটুয়াখালী (রাখাইন কক্স পটু)।
  2. রাখাইনরা বেশি বাস করে–পটুয়াখালীতে । 

36, খুমী–বান্দরবানের লামা, রুমা ও থানচি থানায় 

  1. পাংখাে—বান্দরবান
  2. মুরং/ম্রো-বান্দরবান | 

39, বনজোগী–বান্দরবানের গহীন অরণ্যে

  1. চক–বান্দরবানের লামা থানায় | 
  2. তঞ্চংগা-রাঙামাটি | 

42, কুকি-রাঙামাটি | 

Read More :   ​সহজ পদ্ধতিতে ২০২১ সালের রেলপথ মন্ত্রণালয়ের কম্পিউটার অপারেটর পদের ব্যাখ্যাসহ প্রশ্ন সমাধান

43, খ্যাং–রাঙামাটির কাপ্তাই ও রাজস্থালী

44, মণিপুরীরা বাস করে- সিলেটে | 

  1. মণিপুরী নৃত্য- সিলেটের 
  2. গারাে জাতির লােকদের প্রধান ধর্মীয় ও

সামাজিক উৎসব—ওয়ানগালা । 

47, গারাে–ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা , শেরপুর ও টাঙ্গাইল (মনেশেটা)

  1. হাজং–ময়মনসিংহ ও নেত্রকোনা , শেরপুর ও | টাঙ্গাইল (মনেশেটা)। 
  2. হদি–নেত্রকোনা জেলার শ্রীবর্দি ও বারহাট্টায় 
  3. হাদুই–নেত্রকোনা জেলার শ্রীবর্দি ও বিরিশিরি 
  4. রাজবংশী—রংপুর 
  5. ওঁরাও-বগুড়া ও রংপুর 
  6. মণিপুরী –সিলেট, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ। 

54, খাসিয়া-সিলেটের জৈয়ন্তিকা পাহাড়ে । 

55, পাত্র -সিলেট (মণিপুরী খুঁজে সিলেটর খাসিয়া পত্র) 

  1. বাওয়ালী—সুন্দরবন
  2. মৌয়ালী –সুন্দরবন

বাংলাদেশের পূর্তি উৎযাপন

বাংলাদেশের পূর্তি উৎযাপন অধ্যায় থেকে চাকরির পরীক্ষায় একটা প্রশ্ন আসতে দেখা যায়। তাই সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী, সাম্প্রতিক সাধারণ জ্ঞান, সাধারণ জ্ঞান ২০২০, সাধারণ জ্ঞান 2020 এর বাংলাদেশের পূর্তি উৎযাপন পার্টটি ভালভাবে পড়ার জন্য এখানে দেওয়া হলো।

  1. ২৫ বছর পূর্তি — হিরক জয়ন্তী 
  2. ৫০ বছর পূর্তি –সুবর্ণ জয়ন্তী। 
  3. ৬০ বছর পূর্তি — হীরক জয়ন্তী 
  4. ৭৫ বছর পূর্তি – প্লাটিনাম জয়ন্তী 
  5. ১০০ বছর পূর্তি — শত বর্ষ 
  6. ১৫০ বছর পূর্তি — সার্ধশত বর্ষ 
  7. ২০০ বছর পূর্তি — দ্বি-শত বর্ষ 

৪. ১০০০ বছর পূর্তি –সহস্রাব্দ 

  1. জয়ন্তী এর অন্য নাম — জুবলী

বাংলাদেশের দর্শনীয় মসজিদ 

বাংলাদেশের দর্শনীয় মসজিদ অধ্যায় থেকে সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী, সাম্প্রতিক সাধারণ জ্ঞান, সাধারণ জ্ঞান ২০২০, সাধারণ জ্ঞান 2020 প্রশ্ন আসতে পারে।

  1. ষাট গম্বুজ মসজিদ—খান জাহান আলী(বাগেরহাট)
  2. সাত গম্বুজ মসজিদের শায়েস্তা খান(ঢাকা) । 
  3. বাঘা জামে মসজিদ — রাজশাহীতে। 

4, তারা মসজিদ অবস্থিত–পুরানাে ঢাকায়। 

  1. বিনত বিবির মসজিদ অবস্থিত–পুরানাে ঢাকায়। 
  2. বজরা শাহী মসজিদ অবস্থিত–নােয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জে। 
  3. কুসুম্বা মসজিদ–সােলায়মান (মান্দা, নওগাঁ)। 

৪. কসবা মসজিদ – নওগাঁ । 

  1. আতিয়া জামে মসজিদ – টাঙ্গাইল 
  2. বারদুয়ারী মসজিদ – শেরপুর

বাংলাদেশের মন্দির

এখানে সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী, সাম্প্রতিক সাধারণ জ্ঞান, সাধারণ জ্ঞান ২০২০, সাধারণ জ্ঞান 2020 এর বাংলাদেশের মন্দির সম্পর্কে তুলে ধরা হলো।

  1. কান্তজীর মন্দির—দিনাজপুর 
  2. আদিনাথ মন্দির-মহেশখালি 

3, ঢাকেশ্বরী মন্দির—ঢাকা । 

  1. রামুমন্দির — কক্সবাজারের রামু থানায় । 
  2. গন্ধেশ্বরীর মন্দির-নওগাঁ ।

বাংলাদেশের জাদুঘর

বাংলাদেশের জাদুঘর থেকেও একটা প্রশ্ন আসে। তাই সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী, সাম্প্রতিক সাধারণ জ্ঞান, সাধারণ জ্ঞান ২০২০, সাধারণ জ্ঞান 2020 এর বাংলাদেশের জাদুঘর অধ্যায়টিও গুরুত্বপূর্ণ।

  1. প্রথম জাদুঘর–বরেন্দ্র জাদুঘর । 
  2. বরেন্দ্র জাদুঘর- রাজশাহী । 
  3. জাতীয় জাদুঘর- শাহবাগ । 
  4. লােকশিল্প জাদুঘর—সােনারগাঁ । 
  5. ‘স্বাধীনতা জাদুঘর’ — শাহবাগ 

6 সােহরাওয়ার্দী উদ্যান)। 

  1. মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর- সেগুন বাগিচা, ঢাকা । 
  2. বিজ্ঞান জাদুঘর-আগারগাও, ঢাকা । 

৪. পানি জাদুঘর- পটুয়াখালি । 

  1. সামরিক জাদুঘর – বিজয় সরনী, ঢাকা । 
  2. বিমান জাদুঘর- তেজগাও, ঢাকা । 
  3. টাকার জাদুঘর- মিরপুর, ঢাকা ।
  4. ডাক জাদুঘর– ঢাকা জেনারেল ডাকঘর (জিপিও) । 
  5. জাতিতাত্ত্বিক জাদুঘর — আগ্রাবাদ,চট্টগ্রাম। (ক্ষুদ্র জাতি সত্ত্বাদের নিয়ে) । 
  6. তেলের জাদুঘর (অয়েল মিউজিয়াম)চট্টগ্রামে। 
  7. বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর—ধানমণ্ডি, ঢাকা ।

বাংলাদেশের কেল্লা এবং মাজার

সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী, সাম্প্রতিক সাধারণ জ্ঞান, সাধারণ জ্ঞান ২০২০, সাধারণ জ্ঞান 2020 এর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় হলো বাংলাদেশের কেল্লা এবং মাজার সম্পর্কিত যাবতীয় প্রশ্ন।

1, লালবাগ কেল্লা নির্মাণ শুরু করেন– মােহাম্মাদ আযম।

  1. লালবাগ কেল্লা নির্মাণ শেষ করেন–শায়েস্তা

3, লালবাগ কেল্লার আদি নাম –আওরঙ্গবাদ দুর্গ। 

  1. পাঁচ বিবির মাজার অবস্থিত–সােনারগাঁতে। 

5, পরি বিবির মাজার অবস্থিত–লালবাগ কেল্লায় 

  1. শাহ ইরানী মাজার-নরসিংদী । 
  2. বাবা আদম শাহীর মাজার -বগুড়া । 

৪. বায়েজিদ বােস্তামির মাজার — চট্টগ্রাম । 

  1. হযরত শাহজালাল (র.) এর মাজার সিলেট । 
  2. হযরত শাহ পরান (র.) এর মাজার সিলেট ।

বাংলাদেশের পাহাড় পর্বত 

বাংলাদেশের পাহাড় পর্বত অধ্যায়টি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। তাই আপনাদের জন্য সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী, সাম্প্রতিক সাধারণ জ্ঞান, সাধারণ জ্ঞান ২০২০, সাধারণ জ্ঞান 2020 এর বাংলাদেশের পাহাড় পর্বত সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

  1. বাংলাদেশের পাহাড়সমূহ গঠিত- টারশিয়ারী যুগে 
  2. বাংলাদেশের পাহাড়গুলাে- ভাঁজ পর্বত 
  3. বাংলাদেশের পাহাড়ের গড় উচ্চতা- ৬১০ মিটার | বা ২০০০ ফুট 
  4. বৃহত্তমউচ্চতম পাহাড়- গারাে পাহাড় 
  5. গারাে পাহাড়–ময়মনসিংহ 
  6. পাহাড়ের রানী–চিম্বুক পাহাড় 
  7. ইউরেনিয়াম পাওয়া গেছে- কুলাউড়া পাহাড়ে 

৪. কুলাউড়া পাহাড় –মৌলভীবাজার 

9, চন্দ্রনাথের পাহাড় — চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে (হিন্দুদের তীর্থস্থান)

  1. লালমাই পাহাড়—কুমিল্লা। 
  2. চন্ডীমুড়া টিলা অবস্থিত- লালমাইতে 
  3. দেব পর্বত অবস্থিত-ময়নামতি পাহাড়ে 
  4. ময়নামতি পাহাড়—কুমিল্লা। 
  5. সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ -=-তাজিনডং 
  6. তাজিনডংয়ের অপর নাম— বিজয় 

16, তাজিনডং মারমা শব্দ; মানে— গভীর অরণ্যে পাহাড় 

17, তাজিনডং-বান্দরবান জেলায় অবস্থিত 

  1. তাজিনডংয়ের উচ্চতা=৩১৮৫ ফুট বা ১২৮০ মিটার। 
  2. দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ- কেওকারাডং 
  3. কেওকারাডং এর উচ্চতা— ২৯২৮ ফুট বা উচ্চতা ১২৩২মিটার । 

21, কেওকারাডং অবস্থিত—-বান্দরবান জেলায় 

  1. তৃতীয় সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ—চিম্বুক পর্বতশৃঙ্গ 
  2. চিম্বুক পাহাড়– বান্দরবান 

24, চিম্বুক পাহাড়ে বাস করে—মারমা উপজাতিরা

বাংলাদেশের বিহার 

  1. বাংলাদেশের সবচেয়ে প্রাচীন বৌদ্ধ বিহার– সীতাকোট বিহার। 
  2. হলুদ বিহার -নওগাঁ । 
  3. জগদ্দল বিহার-নওগাঁ । 
  4. শালবন বিহার –কুমিল্লা জেলার ময়নামতিতে। 
  5. শালবন বিহারের প্রতিষ্ঠিতা – রাজা ভবদেব
  6. পাহাড়পুরের বৌদ্ধ বিজারটি –সােমপুর বিহার নামে পরিচিত। 
  7. সােমপুর বিহার — নওগাঁ জেলার পাহাড়পুরে।

৪. সােমপুর বিহার নির্মান করেন– রাজা ধর্মপাল । 

  1. আনন্দ বিহার অবস্থিত– কুমিল্লা জেলার লালমাই পাহাড়ে। 

10, আনন্দ বিহারের প্রতিষ্ঠিতা – রাজা ভবদেব

  1. মহামুনি বিহার অবস্থিত–চট্টগ্রামের রাউজানে। 
  2. আহসান মঞ্জিলের—নবাব আব্দুল গণি(ঢাকা)। 
  3. গ্রান্ড ট্রাঙ্ক রােডের নির্মাতা শেরশাহ । 

14, ঢাকা গেটের প্রতিষ্ঠিত মীর জুমলা । 

  1. পতিসর কুঠিবাড়ী—আত্রাই, নওগাঁ। 
  2. সীতাকোট বিহার—দিনাজপুর ।

বাংলাদেশের ভিটা ও চাল

  1. খােদার পাথর ভিটা — মহাস্থানগড়। 
  2. বৈরাগীর ভিটা – মহাস্থানগড়। 
  3. বৈরাগীর চাল — গাজিপুর জেলায়। 
  4. সত্য পীরের ভিটা অবস্থিত–নওগাঁ জেলার সােমপুর বিহারে। 
  5. গােবিন্দ ভিটা— মহাস্থানগড়।

বাংলাদেশের উষ্ণতম ও শীতলতম স্থান ও মাস

1, উষ্ণতম মাস- এপ্রিল 

  1. শীতলতম মাস—জানুয়ারি 
  2. উষ্ণতম জেলা–রাজশাহী 

4, শীতলতম জেলা-সিলেট 

  1. উষ্ণতম স্থান- লালপুর, নাটোর। 
  2. শীতলতম স্থান— শ্রীমঙ্গল

বাংলাদেশের ঝর্না-জলপ্রপাত

[ads1]

  1. শীতল পানির ঝরনা –কক্সবাজারের হিমছড়ি । 
  2. গরম পানির ঝরনা — চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড ।
  3. সর্ববৃহৎ জলপ্রপাত–মাধবকুণ্ড জলপ্রপাত।
  4. মাধবকুণ্ড জলপ্রপাত–মৌলভীবাজার। 
  5. মাধবকুণ্ড জলপ্রপাতের উৎপত্তিস্থল -বড়লেখা উপজেলার পাথরিয়া পাহাড়। 
  6. মাধবকুণ্ড জলপ্রপাতের পানি পড়ে–২৫০ ফুট উপর থেকে। 

7, ঋজুক জলপ্রপাত — বান্দরবান। ইকোপার্ক

  1. টিলাগড় ইকোপার্ক – সিলেট 
  2. বাঁশখালী ইকোপার্ক–চট্টগ্রাম 
  3. মধুটিলা ইকোপার্ক-শেরপুর 
  4. বর্ষিজোড়া/বড়শীজোড়া ইকোপার্ক মৌলভীবাজার 
  5. মাধবকুণ্ড ইকোপার্ক মৌলভীবাজার।– 
  6. মুড়াইছড়া ইকোপার্ক — মৌলভীবাজার 
  7. বঙ্গবন্ধু যমুনা ইকোপার্ক –সিরাজগঞ্জে | 

৪. অরুনিমা ইকোপার্ক-নড়াইল পার্ক-উদ্যান দুলাহাজারা সাফারি পার্ক-কক্সবাজার লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান—মৌলভীবাজার।

দ্বিতীয় পর্ব এখানেঃ সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলীর (প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ প্রস্তুতি)