টিকটক ভিডিও ২০২২ | সর্বকালের সেরা টিকটক ভিডিও হাসির | কিভাবে টিকটক থেকে টাকা ইনকাম করবেন

আমাদের আজকের পোস্টটি হবে জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া টিকটক ভিডিও নিয়ে। আপনি কি নিজের দক্ষতা বা নিজের সুপ্ত প্রতিভা অন্যের মাঝে শেয়ার করতে চান? নিজের পাবলিসিটি বাড়াতে চান বা নিজেকে সারা বিশ্বের মাঝে তুলে ধরতে চান? তাহলে আজকের আর্টিকেলটি শুধুই আপনার জন্য। কেননা আজকের আর্টিকেলে আমরা আলোচনা করতে যাচ্ছি কিভাবে আপনারা নিজেকে পুরো বিশ্বের মাঝে তুলে ধরতে পারবেন। আপনার সুপ্ত প্রতিভা কিভাবে মানুষকে দেখাবেন। কিভাবে আপনি আপনার নিজের পাবলিসিটি বাড়াতে পারবেন, কিভাবে টিকটক থেকে টাকা ইনকাম করবেন ইত্যাদি সকল বিষয় নিয়ে আজকে আমরা আলোচনা করতে যাচ্ছি।

টিকটক ভিডিও ২০২২ | সর্বকালের সেরা টিকটক ভিডিও হাসির | কিভাবে টিকটক থেকে টাকা ইনকাম করবেন
টিকটক ভিডিও ২০২২ | সর্বকালের সেরা টিকটক ভিডিও হাসির | কিভাবে টিকটক থেকে টাকা ইনকাম করবেন

আজকে আলোচনায় আমরা মূল যে বিষয়টিকে ফোকাস করব সেটি হল টিকটক। ইতিমধ্যে আমার মনে হয় টিকটক নামটি না শোনার মত খুব বেশি জনগণ আমাদের দেশে এবং বিশ্বে নেই। প্রায় অধিকাংশ মানুষ সোশ্যাল মিডিয়ায় টিকটক সম্পর্কে ধারণা রাখে এবং অনেক মানুষই হয়তো এর নাম শুনেছে। জনপ্রিয় এই সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ে আজকে আমরা একটি আর্টিকেল আমাদের সাইটে প্রকাশ করতে যাচ্ছি এবং আমরা দেখাবো টিকটক ভিডিও সম্পর্কিত প্রায় সকল তথ্যাবলী আপনাদের সুবিধার্থে যেন আপনারা টিকটক ভিডিও সম্পর্কে ভালো ধারণা পান।

আলোচনার বিষয় সমূহঃ

টিকটক কি?

মূলত টিকটক হল একটি সোশ্যাল মিডিয়া এ্যাপ। যেখানে আপনারা খুব সহজে আপনার করা ভিডিও শেয়ার করতে পারবেন। টিকটক কে অনেকেই ভিডিও শেয়ারিং এপ্লিকেশনও বলে থাকে। আপনি যদি আপনার ভিডিও শেয়ারিং করতে চান তাহলে আপনার জন্য উপযুক্ত একটি প্ল্যাটফর্ম হবে এই জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া টিকটক। জনপ্রিয়তার চুড়ায় পৌঁছানো টিকটক ভিডিও অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে আপনারা আপনাদের ভিডিওকে এক নিমিষেই লাখো ব্যবহারকারী বা লোকজনের কাছে পৌঁছে দিতে পারবেন।

নিজের পাবলিসিটি বা প্রতিভা অন্যের মাঝে তুলে ধরার জন্য আপনারা চাইলে মোক্ষম একটি সুযোগ নিতে পারেন টিকটক ভিডিও এর সাথে। টিকটক ভিডিও এর মাধ্যমে তৈরি কৃত ১০ থেকে ১৫ সেকেন্ডের ভিডিও আপনাকে জনপ্রিয়তার শিকড়ে নিয়ে যেতে পারে। তবে সেই ভিডিও তৈরি করতে অবশ্যই আপনাকে কষ্ট করতে হবে এবং আপনার সেরাটা দিয়ে চেষ্টা করতে হবে।

জনপ্রিয় এই সোশ্যাল মিডিয়া আপনি চাইলে যে কারো সাথে ভিডিও শেয়ারিং চ্যাটিং ইত্যাদি করতে পারবেন। আমরা অনেকেই নিজেকে তুলে ধরার জন্য মরিয়া হয়ে যাই। আগের দিনে আমরা দেখেছিলাম নিজেকে তুলে ধরার মতো ভালো কোনো মাধ্যম ছিল না। তথ্য প্রযুক্তির বিপ্লবের মাধ্যমে আমরা অনেক কিছু পেয়েছি যার মাধ্যমে নিজেকে তুলে ধরতে পারি সেই অনেক কিছু পাওয়ার মধ্যে টিকটক অন্যতম।

টিকটক সৃষ্টির ইতিহাস

২০১৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়া সোশ্যাল মিডিয়া টির মূল লক্ষ্য ছিল মানুষের মাঝে শর্ট ভিডিও শেয়ারিং এর জনপ্রিয়তা অর্জন করা। যা আজকে প্রায় পেয়েই গেছে এই জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়াটি। ২০১৬ সালে ঝাং ইয়েমিং এর হাত ধরে টিক টক অ্যাপ্লিকেশনের যাত্রা শুরু হয়। যদিও টিকটক অ্যাপ্লিকেশনটির মূল প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন বাইডেন্স করপোরেশন। ঝাং ইয়েমিং টিকটক এর প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন চিনের নাগরিক অর্থাৎ এ থেকে আমরা নিশ্চিত হতে পারি টিকটক চীনা দেশ থেকে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

অল্প কয়েক বছরের মধ্যেই আমরা টিকটকের সফলতা খুব ভালোভাবেই উপলব্ধি করতে পারছি। মাত্র ২০১৬ সালে প্রতিষ্ঠাতা লাভ করেই ২০২২ সালে এসে তাদের জনপ্রিয়তা প্রায় আকাশচুম্বি। যা আপনারা আপনাদের অবস্থান থেকেই বুঝতে পারছেন আশা করি। বাংলাদেশসহ বিশ্বের প্রায় ১০০ টিরও বেশি দেশের ব্যবহার করা হচ্ছে চীনা নাগরিকের তৈরি কৃত এই জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়ার টিকটক। এশিয়া মহাদেশের সীমান পেরিয়ে এখন এই অ্যাপ্লিকেশনটি পারি জমিয়েছে আমেরিকার দিকে।

শুরুর দিকে টিকটক কে শর্ট ভিডিও শেয়ারিং এপ্লিকেশন হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা হয় এবং প্রতিষ্ঠাতা গন চেয়েছিলেন টিকটক এর মাধ্যমে মানুষ যেন তাদের সংক্ষিপ্ত ভিডিও গুলো অন্যান্য ব্যবহারকারীর কাছে খুব সহজে শেয়ার করতে পারে এবং তাদের ট্যালেন্ট বিশ্বজুড়ে দেখাতে পারে। সর্বপ্রথম প্রায় ৩০ সেকেন্ডের মত ভিডিও আপলোড দেওয়া যত টিক টক কিন্তু এ নিয়ম তুলে নিয়ে বর্তমান সময়ে আপনারা যদি চান প্রায় ১৫ মিনিটের মত একটি ভিডিও টিকটকে  আপলোড দিতে পারবেন যা টিক টক ব্যবহারকারীদের জন্য আসলে একটি সুসংবাদ।

এক নজরে টিকটক এর পরিচিতি!

টিকটক আইডি কিভাবে খুলবো

আপনারা হয়তো ইতিমধ্যে টিকটক অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করার একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবং আপনিও চাচ্ছেন আপনাকে তুলে ধরতে পুরো বিশ্বের মধ্যে। টিকটক ব্যবহার করতে গেলে অবশ্যই তাদের অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করতে হবে। তা না হলে আপনারা ভালো ফিচার উপভোগ করতে পারবেন না।

আপনি টিকটক অ্যাপ্লিকেশনটি প্লে স্টোর থেকে সংগ্রহ করে নিবেন। আশা করা যায় আপনারা এই কাজটি সহজে করতে পারবেন এবং পরবর্তী ধাপ টিকটক আইডি কিভাবে খুলবো এই ব্যাপারটি আমি পুরোপুরি ক্লিয়ার করে দিচ্ছি।

ধাপঃ-১ প্রথমে আপনি play store থেকে টিকটক অ্যাপ্লিকেশনটি সংগ্রহ করার পর টিক টক অ্যাপ্লিকেশনটি ওপেন করবেন। টিকটক অ্যাপ্লিকেশনটি ওপেন করার পর  একাউন্ট নামের একটি অপশন রয়েছে সে বাটনটিতে ক্লিক করে দেবেন। 

টিকটক ভিডিও এ্যাপ নামানো
টিকটক ভিডিও এ্যাপ নামানো

ধাপঃ-২ তারপর এখানে আপনার লগইন নামে একটি বাটন দেখতে পাবেন। আপনারা খুব সহজভাবে এই বাটনটিতে ক্লিক করে দিবেন।

টিকটক সাইন আপ পেজ
টিকটক সাইন আপ পেজ

ধাপঃ-৩ এবার আপনাদের মাঝে কিছু অপশন শো করা হবে। এখানে আপনি যেটি দিয়ে আপনার একাউন্ট খুলতে চাচ্ছেন সেটি সিলেক্ট করে দিবেন। এখানে প্রায় অনেক কয়েকটি মাধ্যম দেখিয়েছে যেমনঃ

  • ফেসবুকের মাধ্যমে।
  • মোবাইল নাম্বার ইমেইল বা ইউজার নেম এর মাধ্যমে।
  • গুগল একাউন্টের মাধ্যমে।
  • টুইটারের মাধ্যমে।
  • VK এর মাধ্যমে।

তা আপনার এখান থেকে যেকোনো একটি মাধ্যম সিলেক্ট করে দিবেন। google এর মাধ্যমে খোলা খুবই সহজ। তাই আমি গুগল সিলেক্ট করে দিলাম আপনারা চাইলে এটি করতে পারেন।

টিকটক সাইন আপ অপশন
টিকটক সাইন আপ অপশন

ধাপঃ-৪ এবার আপনার মোবাইলে থাকা সবগুলো গুগল একাউন্ট এখানে শো করবে। আপনি যে অ্যাকাউন্টটি দিয়ে টিকটক খুলতে চাচ্ছেন সেই একাউন্ট সিলেক্ট করে দিন।

টিকটক সাইন আপ অপশন
টিকটক সাইন আপ অপশন

ধাপঃ-৫
এবার আপনার ইউজার নেম সিলেক্ট করতে হবে। দেখতে পারবেন নিচে একটি বক্স রয়েছে। এখানে আপনি আপনার ইউজার নেম দিয়ে দিন। তারপর Sing Up বাটনে ক্লিক করলে আপনার একাউন্ট খোলা হয়ে যাবে।

টিকটক মূল প্রোফাইল
টিকটক মূল প্রোফাইল

টিকটক ভিডিও কিভাবে বানাবো

আপনারা টিকটক অ্যাপ্লিকেশন থেকে খুব সহজে টিকটক ভিডিও বানাতে পারবেন। আমরা আপনাদেরকে টিউটোরিয়াল হিসেবে টিকটক ভিডিও কিভাবে বানাবো এই বিষয়টি শেয়ার করবো। আশা করি আপনারা সবাই বুঝতে পারবেন তাহলে নিচ থেকে দেখে নিন।

ধাপঃ-১ প্রথমে আপনারা টিকটক অ্যাপ্লিকেশনে প্রবেশ করুন এবং নিচে যে প্লাস আইকনটি রয়েছে সেটিতে ক্লিক করুন।

টিকটক ভিডিও তৈরির জন্য প্লাসে ক্লিক
টিকটক ভিডিও তৈরির জন্য প্লাসে ক্লিক

ধাপঃ-২ এবার আপনার ক্যামেরা ওপেন হয়ে যাবে এবং আপনি যা কিছু ভিডিও করতে চান সেটি ১৫ সেকেন্ড ধরে বা ৬০ সেকেন্ড ধরে ভিডিও করুন। এখানে আপনারা অনেকগুলো অপশন দেখতে পারবেন, আপনারা চাইলে সে অপশন থেকে ভিডিওর সাথে অডিও গান লাগাতে পারবেন।

টিকটক ভিডিও তৈরি
টিকটক ভিডিও তৈরি

ধাপঃ-৩ এরপর আপনারা ভিডিওটি সম্পূর্ণ করবেন এবং আপনাকে পরবর্তী একটি পেজে নিয়ে আসা হবে। এখানেও আপনারা প্রায় অনেকগুলো অপশন দেখতে পারবেন। এখান থেকে আপনি আপনার ভিডিওটি চাইলে এডিট করতে পারবেন। ক্রপ করতে পারবেন আর নানা রকম ভিডিও ইফেক্ট যোগ করতে পারবেন। সবকিছুই প্রায় এখান থেকে করতে পারবেন। সবকিছু করা হয়ে গেলে আপনার নেক্সট বাটনটিতে ক্লিক করে দিন।

টিকটক ভিডিও তৈরির পর next এ ক্লিক
টিকটক ভিডিও তৈরির পর next এ ক্লিক

ধাপঃ-৪ এবার আপনাকে পোস্ট করার মেইন পেজে নিয়ে আসা হবে। এখানে আপনি আপনার হ্যাসট্যাগ, ভিডিওর টাইটেল ইত্যাদি দিন। তারপর নিচে আপনারা দেখতে পারবেন পোস্ট নামের একটি অপশন রয়েছে। সেখানে ক্লিক করলেই আপনারা আপনাদের ভিডিওটি সবার মাধ্যমে শেয়ার করতে পারবেন এবং আপনার ভিডিওটি পোস্ট করা হয়ে যাবে।

টিকটক ভিডিও পোস্ট
টিকটক ভিডিও পোস্ট

ছবি দিয়ে কিভাবে টিকটক বানাবো

ছবি দিয়ে কিভাবে টিকটক বানাবো ? বর্তমান সময় ছবি দিয়ে কিভাবে টিকটক ভিডিও বানাবো ইহা একটি ট্রেন্ডিং বিষয়। আপনি যদি ট্রেন্ডিং ভিডিও তে অংশগ্রহণ করতে চান তাহলে আপনি টিকটক অ্যাপ্লিকেশন থেকেই এই ছবি দিয়ে ভিডিও বানাতে পারবেন।

তবে আপনি যদি এলোমেলো ছবি দিয়ে নানা রকম ইফেক্ট করে ভিডিও বানাতে চান তাহলে আপনাকে একটি অ্যাপ্লিকেশনের সাহায্য নিতে হবে। আর সেই অ্যাপ্লিকেশনটির নাম হলো Cup cut. আপনারা চাইলে এই অ্যাপ্লিকেশনটি প্লে স্টোর থেকে সংগ্রহ করতে পারেন।

টিকটক লেখা ভিডিও কিভাবে বানাবো

আমরা টিকটক লেখা ভিডিও কিভাবে বানাবো ? টিকটকে যদি আপনার লেখা ভিডিও বানাতে চান তাহলে আপনাকে Cup Cut অ্যাপ্লিকেশনটির সাহায্য নিতে হবে। আপনারা চাইলে এখান থেকে আপনার ভিডিওতে নানা রকম টেক্সট আর টাইপ করতে পারবেন। এই বিষয়টি খুবই সহজ আপনার অ্যাপ্লিকেশন ওপেন করলেই দেখতে পাবেন।

কিভাবে টিকটক থেকে টাকা ইনকাম করা যায়

আমি এখানে কিভাবে টিকটক থেকে টাকা ইনকাম করা যায় বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। আপনারা জেনে খুশি হবেন টিকটক অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে নিজেকে পুরো বিশ্বের মাঝে তুলে ধরার পাশাপাশি আপনারা চাইলে টিকটক থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

বর্তমান সময়ে অনলাইন ইনকাম খুবই জনপ্রিয় একটি বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর আমাদের মাঝে হয়তো অনেক মানুষ আছে যারা অনলাইনে ইনকামের সাথে সম্পৃক্ত এবং অনলাইন ইনকাম সম্পর্কে কিছু জানে। অনলাইন ইনকামের একটি মাধ্যম হলো টিকটক থেকে টাকা ইনকাম।

আপনারা যে কেউ চাইলে টিকটক থেকে খুব সহজে টাকা ইনকাম করতে পারবেন কোনো রকম ঝামেলা ছাড়াই। টিকটক ভিডিও এ্যাপস আপনাদের জন্য এই সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে। যেন তাদের ব্যবহারকারীরা টিকটক থেকে ভালো পরিমানে উপার্জন করতে পারেন। আপনি যদি টিকটক ব্যবহার করে থাকেন তাহলে আপনারা টিকটকের এই সুযোগটি ব্যবহার করে বা কাজে লাগিয়ে ভালো মানের ইনকাম করতে পারবেন।

টিকটক থেকে উপার্জন করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে ধৈর্য ধরতে হবে এবং ভালোমতো স্টেপ বাই স্টেপ কাজ করতে হবে। আজকে আমি আপনাদেরকে খুব সহজে টিকটক থেকে টাকা ইনকাম করার পদ্ধতি সম্পর্কে ভালো ধারণা দেবো এবং আপনাদের মাঝে পুরো বিষয়টি তুলে ধরার চেষ্টা করব।

টিকটক থেকে আপনারা মূলত দুইটি উপায়ে উপার্জন করতে পারবেন, যেমনঃ

  1. টিকটক অ্যাপ্লিকেশন থেকে উপার্জন।
  2. টিকটক অডিয়েন্সের মাধ্যমে উপার্জন।

কিভাবে টিকটক অ্যাপ্লিকেশন থেকে উপার্জন করা যায়

কিভাবে টিকটক অ্যাপ্লিকেশন থেকে উপার্জন করা যায় ? টিকটক এপ্লিকেশন থেকে উপার্জনের কিছু নিয়ম কানুন আছে যা আপনাকে অবশ্যই মানতে হবে এবং এখানে আপনার যদি সকল নিয়ম কানুন মেনে চলতে পারেন তাহলে খুব সহজে উপার্জন করতে পারবেন। আর এখান থেকে আপনারা যে উপার্জিত অর্থ পাবেন সেটি আপনাকে টিকটক সরাসরি দিয়ে থাকবে। 

এখানে আপনার প্রশ্ন হতে পারে সবাই কি টিকটক অ্যাপ্লিকেশন থেকে উপার্জন করতে পারবেন? হ্যাঁ, আপনি যদি টিকটকের সকল নীতিমালা গুলো মেনে চলেন তাহলে অবশ্যই আপনারা টিকটক থেকে উপার্জন করতে পারবেন। তাহলে টিকটকের নীতিমালা গুলো কি কি চলুন দেখিঃ-

টিকটকের নীতিমালাঃ-

  • আপনার আইডিতে প্রায় এক মিলিয়ন ফলোয়ার থাকতে হবে।
  • আপনার টিকটক ভিডিও গুলোতে প্রতিনিয়ত ভালো মানের ভিউ থাকতে হবে।
  • আপনার তৈরি কৃত টিকটক ভিডিও গুলো ভালো মানের হতে হবে।
  • পরবর্তীতে আপনি তাদের সকল নীতিমালা গুলো মানার পর আপনাকে রিভিউ করা হবে এবং আপনি যদি রিভিউ ভালো পারফরম্যান্স করেন তাহলে আপনাকে এই টাকা উপার্জন করার পদ্ধতি তৈরি করে দিবে।

উপরের নীতিমালা থেকে বুঝতে পেরেছেন যে এই মেথডে আপনি যদি টাকা উপার্জন করতে চান, তাহলে অবশ্যই আপনাকে মেইন ফোকাস দিতে হবে টিকটকের ভিডিও তৈরির উপর। অর্থাৎ আপনাকে ইউনিক এবং মানুষ পছন্দ করে এমন ভিডিও তৈরি করতে হবে। অর্থাৎ আপনি আপনার মেইন ফোকাস আপনার ভিডিও এর উপরে দিতে পারেন এবং এখান থেকে খুব সহজে উপার্জন করতে পারেন।

টিকটক অডিয়েন্সের মাধ্যমে উপার্জন

টিকটক অডিয়েন্সের মাধ্যমে উপার্জন মাধ্যমটি খুবই জনপ্রিয় এবং বর্তমান সময়ে আলোড়ন সৃষ্টিকারী একটি মাধ্যম। ইহার মাধ্যমে আপনারা চাইলে নিমিষেই টিকটক ভিডিও এর মাধ্যমে টাকা উপার্জন করতে পারবেন। সর্বপ্রথম টাকা উপার্জন করার জন্য আপনার যে জিনিসটি লাগবে সেটি হল আপনার ভালো মানের অডিয়েন্স অর্থাৎ আপনার অডিয়েন্সের পরিমাণ যদি ভালোমানের হয়ে থাকে বা কয়েক মিলিয়ন হয় তাহলে আপনি আপনার অডিয়েন্সকে কাজে লাগিয়ে অনেক উপায় উপার্জন করতে পারবেন।

কয়কেটি উপায় নিচে দেওয়া হলো!

  • কোন প্রোডাক্টের বিজ্ঞাপন দেওয়ার মাধ্যমে।
  • কোন ইউটিউব চ্যানেল ফেসবুক পেজ বা টিকটক একাউন্ট প্রমোশনের এর মাধ্যমে।
  • টিকটক অ্যাকাউন্টি সেল করা মাধ্যমে।

১. প্রোডাক্টের বিজ্ঞাপন দেওয়াঃ- যখন আপনারা ভালো পরিমাণের অডিয়েন্স এর মালিক হয়ে যাবেন তখন আর কিছু পণ্য বিক্রেতা আপনার টিকটক একাউন্ট থেকে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে হিসেবে ধরে নিবে এবং তারা আপনাকে তাদের প্রোডাক্ট প্রমোট করার মাধ্যমে অর্থ প্রেরণ করবে। বর্তমান সময়ে এই মাধ্যমে উপার্জন করা খুবই সহজ এবং চমৎকার একটি পদ্ধতি। আপনার যদি ভালো পরিমানের অডিয়েন্স থেকে থাকে তাহলে আপনারা এই পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারেন।

২. সোশ্যাল সাইট প্রমোশনের মাধ্যমেঃ- আপনি যেমন আপনার টিকটক একাউন্টে ভালো পরিমাণের অডিয়েন্স বা ফলোয়ার চাই। সেরকম কিন্তু অনেকে আছে যারা তাদের অ্যাকাউন্ট দিতে ভালো পরিমাণে অডিয়েন্স পেতে চায়। যখন আপনার অ্যাকাউন্ট টিতে ভালো পরিমাণের অডিয়েন্স হয়ে থাকবে তখন কিছু মানুষ যারা তাদের নিজের আইডি প্রোমোট করতে চাইবে। তারা আপনার সাথে যোগাযোগ করবে এবং আপনারা তাদের আইডি প্রমোট করার মাধ্যমে তাদের সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়ে উপার্জন করতে পারে।

৩. টিকটক ভিডিও একাউন্ট সেলের মাধ্যমেঃ- অনেক মানুষ আছে যারা ভালো পরিমাণের অডিয়েন্স বা ফলোয়ার প্রাপ্ত অ্যাকাউন্ট কিনতে চায়। আপনি যদি ভালো পরিমানের অডিয়েন্স আপনার একাউন্টে আনতে পারেন তাহলে কিন্তু আপনারা সেই অ্যাকাউন্টটি সেল করে দেওয়ার মাধ্যমেও উপার্জন করতে পারবেন। এতে করে আপনারা ভালো পরিমানের অর্থ পেতে পারেন আপনার একাউন্টে ফলোয়ারের পরিমাণের উপর ভিত্তি করে। অ্যাকাউন্ট সেল করার জন্য আপনারা নানা রকম ফেসবুক গ্রুপ ফলো করতে পারেন। যেখানে প্রতিনিয়ত টিকটক একাউন্ট কেনাবেচা হয়ে থাকে।

কিভাবে টিকটক রেফার থেকে টাকা ইনকাম করা যায়

টিকটক রেফার থেকে টাকা ইনকাম করা এক সময় খুবই সহজ পদ্ধতি ছিল এবং যে কেউ তাদের বন্ধু বান্ধবকে টিকটক এপ্লিকেশনে রেফার করে উপার্জন করতে পারতো। ২০২১ সালের দিকে এই পদ্ধতিটি খুবই জনপ্রিয় ছিল এবং আমি নিজেও কয়েকটি বন্ধুবান্ধবকে টিকটকে রেফার করার মাধ্যমে ভালো পরিমাণের অর্থ উপার্জন করতে পেরেছিলাম।

আপনারা জেনে দুঃখিত হবেন যে বর্তমান সময়ে রেফার অপশনটি টিকটক কর্তৃপক্ষ বন্ধ করে দিয়েছে অর্থাৎ আপনার রেফার করতে পারবেন কিন্তু রেফার করার মাধ্যমে উপার্জন করতে পারবেন না।

মূলত একটি প্রতিষ্ঠান রেফার সিস্টেম চালু করে তখন যখন তাদের প্রতিষ্ঠানটির পরিসর বাড়াতে হয়। প্রতিষ্ঠানটি তাদের প্রচার-প্রচারণা এবং তাদের পরিধি করার জন্য রেফার কার্যক্রমটি হাতে নিয়েছিল পরবর্তীতে একটি সময় এসে তারা এটি স্থগিত ঘোষণা করে দিয়েছে।

কিভাবে টিকটক ভিডিও ভাইরাল করবো / টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায়

বর্তমানে সময়ে আমরা সবাই চাই নিজেকে ভাইরাল করতে। তাই প্রতিনিয়ত আমরা নানা রকম কাজ করে থাকি। নিজেকে ভাইরাল করার জন্য যেমন নানা মিডিয়ার উপর কন্টেন্ট তৈরি করি। সেটি হোক টিকটক বা facebook বা youtube.

এখানে আলোচনা করব কিভাবে টিকটক ভিডিও ভাইরাল করবো তা নিয়ে। আপনারা হয়তো ইতিমধ্যে একটি অ্যাকাউন্ট খুলেছেন এবং আপনার মনে হয়তো আশা জেগেছে যে কিভাবে নিজেকে টিকটকে ভাইরাল করতে হয়। তাই নিচে কিছু পদক্ষেপ আলোচনা করা হল যা অনুসরণ করলে আপনারা টিকটকে ভাইরাল হতে পারেন।

টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায়

আপনি কি জানেন টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায় ?  টিকটকে ভাইরাল হওয়ার অনেক উপায় রয়েছে। নিম্নে টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায় নিয়ে সংক্ষেপে আলোচনা করা হলোঃ-

১. প্রতিনিয়ত ভিডিও পাবলিশ করা

সময় নিয়ে প্রতিনিয়ত ভিডিও পাবলিশ করা। আপনি যদি টিকটকে অল্প সময়ে ভাইরাল হতে চান তাহলে আপনাকে এই পদক্ষেপটি খুব ভালোভাবে মানতে হবে। প্রতিনিয়ত চেষ্টা করতে হবে আপনার একাউন্টে ভিডিও পাবলিশ করার জন্য। আপনারা একটি নির্দিষ্ট সময় বেছে নিতে পারেন। ধরুন আপনি শুধু সন্ধ্যায় টিকটক ভিডিও আপলোড বা পাবলিশ করলেন অর্থাৎ একটি দিনের এমন একটি নির্দিষ্ট সময় বেছে নিন যে সময়ে ব্যবহারকারীরা বেশি উপস্থিত হয়। তাহলে কিন্তু মুহূর্তের মধ্যেই আপনার টিকটক ভিডিও ভাইরাল হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

২. নিজের প্রোফাইল আপডেট করা

সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে নিজের প্রোফাইল আপডেট করা। তাই প্রতিনিয়ত চেষ্টা করবেন আপনার প্রোফাইলকে আপডেট রাখার। আপনার প্রোফাইল তৈরি করার পর নিশ্চয়ই আপনারা কভার ফটো এবং প্রোফাইল পিকচার আপডেট করেছেন। আপনি চেষ্টা করবেন যেন আপনার প্রোফাইলটি সব সময় আপডেট থাকে। 

৩. টিকটকের ভাইরাল গানের সাথে ভিডিও পাবলিশ করা

টিকটকের ভাইরাল গানের সাথে ভিডিও পাবলিশ করার চেষ্টা করবেন। আপনারা যদি নিয়মিত টিকটক ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন তাহলে দেখতে পারবেন যে প্রতিনিয়ত টিকটকে নানা রকম গান ভাইরাল হয়ে থাকে। আপনি যদি কোন ভিডিও পাবলিশ করেন তখন সেই ভাইরাল গান কে আপনি আপনার ভিডিওর সাথে এডজাস্ট করে নিতে পারেন। এতে করে আপনার ভিডিওটি খুব সহজে ভাইরাল হয়ে যাবে।

৪. টিকটক গেম এর সাথে ভিডিও পাবলিশ করা

টিকটক গেম এর সাথে ভিডিও পাবলিশ করার চেষ্টা করবেন। টিকটকে প্রতিনিয়ত নানা রকম গেম পাবলিশ করা হয় টিকটক কোম্পানি থেকে। আপনারা চেষ্টা করবেন সেই গেম গুলোর সাথে আপনার ভিডিও পাবলিশ করার। এরকম একটা অবস্থায় দেখা যাবে আপনি যদি প্রতিনিয়ত তাদের সাথে ভিডিও পাবলিশ করেন তাহলে আপনার টিকটক ভিডিও টি “ফর ইউ” মেনুতে যাবে এবং ভাইরাল হয়ে যাবে খুব শীঘ্রই। 

৫. ভালো মানের টিকটক ভিডিও প্রচার করা

টিকটকে ভালো মানের টিকটক ভিডিও প্রচার করা। তাই বর্তমান সময়ে আপনারা দেখে থাকবেন টিকটকে নানা রকম টিকটক ভিডিও পাবলিশ করা হয়। আপনি যখন একটি ভিডিও পাবলিশ করবেন তখন অন্যদের ভিডিওগুলোর থেকে ভালো মানের ভিডিও তৈরি করে সেটি পাবলিশ করার চেষ্টা করবেন। আপনি একটি বিষয় লক্ষ্য করুন মানুষ কিন্তু ভালো যেটি সেটি কিন্তু গ্রহণ করবে। অতএব এই বিষয়টি লক্ষ্য রাখবেন। আপনার ভিডিওর সাউন্ড কোয়ালিটি হাই রাখার চেষ্টা করবেন।

৬. পোস্ট রিলেটেড হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করুন

যখন আপনারা একটি পোস্ট করবেন তখন পোস্ট রিলেটেড হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করবেন। এতে করে আপনার ভিডিওতে “ফর ইউ” মেনুতে যেতে বেশি সময় লাগবে না। আপনারা দেখে থাকবেন যে সোশ্যাল মিডিয়ায় হ্যাশট্যাগ খুবই জনপ্রিয় একটি ভিডিও ভাইরাল করার উপায়। তাই চেষ্টা করবেন আপনার টিকটক ভিডিও রিলেটেড হ্যাসট্যাগ দিতে।

টিকটক ফলোয়ার বাড়ানোর উপায়

আপনি যখন ভাইরাল হয়ে যাবেন তখন কিন্তু আপনার একাউন্টে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ফলোয়ার চলে আসবে। টিকটকে ফলোয়ার বাড়ানোর উপায় হলো সবার আগে আপনার ভিডিওকে ভাইরাল করতে হবে। ভিডিও ভাইরাল করার প্রত্যেকটি স্টেপ আমরা উপরে আলোচনা করে নিয়েছি। টিকটকে ফলোয়ার বাড়ানোর আরো একটি উপায়ে রয়েছে –

উপায়টি হলো আপনি টিকটকে অনেকগুলো সেলিব্রেটির একাউন্ট দেখতে পারবেন। আপনার কাজটি হলো সেলিব্রেটির অ্যাকাউন্টের যে কনটেন্ট গুলো রয়েছে সেগুলোতে অনেকে কমেন্ট করে। সেই কমেন্টটা করা অ্যাকাউন্টগুলোকে আপনারা ইচ্ছামত ফলো করবেন। পরবর্তীতে দেখতে পারবেন আপনারা ফলো ব্যাক পাচ্ছেন আপনি যাকে ফলো করছেন সেও আপনাকে ফলো করছে। এই পদ্ধতি অবলম্বন করে টিকটক অ্যাকাউন্টে ফলোয়ার বাড়ানো যায়।

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় টিকটকার কে

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় টিকটকার কে আপনার মনে যদি এরকম কোন প্রশ্ন ঘুরে থাকে তাহলে আজকে আপনি এটি সমাধান পেতে যাচ্ছেন।

আসুন জেনে নিই, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় টিকটকার হলো সামিমা আফরিন অমি। তাকে প্রায় ৯.৮ মিলিয়ন লোক ফলো করে। ৩৩৩.১ মিলিয়ন লাইক রয়েছে তার আইডিতে এবং প্রায় পাঁচ হাজারের মতো ভিডিও তিনি তার টিকটক একাউন্টে আপলোড করেছেন।

টিকটক ভিডিও নিয়ে বারবার জিজ্ঞেস করা কিছু প্রশ্নের উত্তর

১. টিকটকে কত ফলোয়ার কেমন আয়?

টিকটকে এমন কোন পদ্ধতির নেই যেখানে আপনারা ফলোয়ার অনুযায়ী টাকা পাবেন অর্থাৎ এটি একটি ভুল প্রশ্ন।

২. টিকটক কেন টাকা দিচ্ছে?

টিকটক তাদের ভালো কনটেন্ট নির্মাতাদের থেকে ভালো কনটেন্ট এর জন্য টাকা দিয়ে থাকে।

৩. বিশ্বের সবচেয়ে বড় টিকটকার কে?

বিশ্বের সবচেয়ে বড় টিকটকার হল চার্লি ডি’আমেলিও।

৪. টিকটক ভিডিও রেফার থেকে টাকা ইনকাম?

টিকটক ভিডিও থেকে রেফার করার মাধ্যমে উপার্জন করা বর্তমানে একটা কোম্পানি বন্ধ করে দিয়েছে।

৫. টিকটকে কত লাইক কত টাকা?

প্রথম প্রশ্নটি নিয়ে এটিও একটি ভুল প্রশ্ন কেননা টিকটক লাইক অনুযায়ী কোন রকম পেমেন্ট করে না।

টিকটক ভিডিও নিয়ে শেষ কথা!

আজকে আমরা টিকটক ভিডিও সম্পর্কে প্রায় অনেকগুলো আলোচনা করেছি। আশা করি আপনারা সবাই আমাদের আলোচনা গুলো মনোযোগ সহকারে পড়েছেন। যদি কোন কিছু না বুঝে থাকেন তাহলে অবশ্যই আমাদের জানাবেন আমরা বিষয়টি বুঝিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করব।