জিডি করার নিয়ম ২০২২ (ভিডিও সহ) | অনলাইনে এবং থানায় গিয়ে

সুপ্রিয় পাঠক, আজ আনাদের সাথে আমাদের সাধারণ জীবনযাপন ভালভাবে পরিচালনা করার জন্য থানায় জিডি করার নিয়ম নিয়ে বিস্তারিত জানাব। এই পোস্টে আমরা আলোচনা করতে যাচ্ছি মাত্র পাঁচ মিনিটে জিডি করার নিয়ম গুলো সম্পর্কে এবং অনলাইনে খুব সহজে জিডি করার নিয়ম। আশা করি আপনারা আজকের আর্টিকেলটি পড়ে উপকৃত হবেন। জানতে পারবেন জিডি করার নিয়ম ২০২২ (ভিডিও সহ) | অনলাইনে এবং থানায় গিয়ে। আপনার কোন জিনিস হারিয়ে গেলে আপনারা খুব সহজে ঘরে বসে বা থানায় গিয়ে জিডি করতে পারবেন। হুমকির জিডি করার নিয়ম এবং জি ডি লেখার নিয়ম সহ।

[ads1]​

আমাদের অনিচ্ছায় এসব জিনিস নানা ভাবে হারিয়ে ফেলি। আমাদের এই জিনিস গুলো খুবই প্রোয়জনীয় হওয়ার কারনে আমাদের এই জিনিস গুলো দরকার হয়ে থাকে পরবর্তী সময়ে। আমরা আমাদের এই জিনিস গুলো ফিরে পাওয়া জন্য অনেক ভাবে খোজাখুজি করি অনেক সময়ে ব্যার্থ হই। প্রতিনিয়ত আমাদের কারো না কারো এরকম ভাবে নানা রকম জিনিসপত্র নানাভাবে হারিয়ে যাচ্ছে। এই জিনিসগুলো ফিরে পাওয়ার জন্য আমরা একটি উপায় অবলম্বন করতে পারি। যেটির মাধ্যমে বাংলাদেশ পুলিশ আমাদেরকে সহযোগিতা করবে আমাদের হারানোর জিনিসপত্র ফিরে পেতে তো এই প্রসেসটি হল জিডি। বর্তমানে আপনারা যদি চান আপনারা খুব সহজে একটি জিডি করতে পারবেন কারো সাহায্য ছাড়া তাহলে চলুন আজকে জিডি সম্পর্কিত সকল তথ্যগুলো জেনে নিন।

GD বা জিডি কি এবং জিডি করার নিয়ম

[ads1]​

বর্তমান সময়ে আমরা অনেক সময় নানা রকম প্রয়োজনীয় জিনিস (যেমনঃ মোবাইল ফোন, পাসপোর্ট, এনআইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্র, ব্যাংকিং বিষয়ক কাগজপত্র বা এটিএম কার্ড ইত্যাদি) হারিয়ে ফেলি। এজন্য আমাদের জিডি করতে হয়। তাই আমাদের জিডি করার নিয়ম জানতে হয়।

GD (জিডি) অর্থ General Dairy বা সাধারণ ডায়েরি। অর্থাৎ আমরা যদি জিডি কি এ বিষয়টি নিয়ে কথা বলি তাহলে বলা যায় জি ডি হলো কোন আইনি সহায়তা পাওয়ার জন্য করা একটি সাধারণ ডায়েরি। যেখানে আপনি কি রকম সেবা পেতে চান তার একটি বিবরণ দেওয়া থাকে। এক্ষেত্রে জিডি আপনার নানারকম বিষয়বস্তুর উপর হতে পারে যেমন কোন কিছু হারিয়ে গেলে নানা রকম হুমকি থেকে রক্ষা পেতে ইত্যাদি ইত্যাদি কারণে জিডি করানো যেতে পারে।

জিডি কেন করতে হয়

[ads1]​

আপনারা হয়তো ইতিমধ্যে জেনে থাকবেন জিডি কেন করতে হয়। তো যারা জানেন না তাদের উদ্দেশ্য আমি বলে রাখি। আপনি যেকোনো ধরনের আইনি সহায়তা পেতে আপনাকে একটি জিডি বা সাধারণ ডায়েরি আপনার নিকটস্থ থানায় জমা দিতে হবে।

অনেক সময় আমরা দেখে থাকি ভবিষ্যৎ বা কোন কিছু হবে তার নমুনা আন্দাজ করে আমরা জিডি থানায় জমা দিয়ে থাকি। ধরুন আপনাকে কেউ হু’মকি দিয়েছে আপনি চাইলে তার নামে একটি জিডি করে রাখতে পারেন পরবর্তীতে সময় যেন কোনো রকম সমস্যা আপনার সাথে না হয় এই বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য।

আবার অনেক সময় আমাদের নিত্য প্রয়োজনীয় কিছু গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হারিয়ে গেলে আমরা জিডি করতে পারি। এ বিষয়টি হয়তো আপনারা অনেকেই দেখেছেন আবার অনেকেই এই বিষয় সম্পর্কে জানেন ন। ধরুন আপনার কোন একটি গুরুত্বপূর্ণ জিনিস (যেমনঃ মোবাইল ফোন, পাসপোর্ট, এনআইডি কার্ড জাতীয় পরিচয় পত্র, ব্যাংকিং বিষয়ক কাগজপত্র ইত্যাদি) হারিয়ে গেল। এমন অবস্থায় আপনি যদি একটি জিডি করেন আপনার নি কটবর্তী থানায় তাহলে কিন্তু আপনারা আইডি সহায়তা পারবেন আপনার হারিয়ে যাওয়া জিনিস (যেমনঃ মোবাইল ফোন, পাসপোর্ট, এনআইডি কার্ড জাতীয় পরিচয় পত্র, ব্যাংকিং বিষয়ক কাগজপত্র ইত্যাদি) ফিরে পেতে।

আশা করা যায় আপনারা জিডি কি এবং জিডি কেন করতে হয় এ বিষয়টি সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ এবং আশানুরূপ তথ্য জেনেছেন এবং আমি এটিও আশা করতে পারি আপনারা এ বিষয়টি ভালোভাবে বুঝেছেন।

চলুন জিডি সম্পর্কিত আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জেনে নেই!

[ads1]​

জিডি করার নিয়ম ২০২২ | থানায় জিডি করার নিয়ম | অনলাইনে জিডি করার নিয়ম বা হুমকির জিডি করার নিয়ম

জিডি করার নিয়ম

আপনার যদি কোন প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র (যেমনঃ মোবাইল ফোন, পাসপোর্ট, এনআইডি কার্ড জাতীয় পরিচয় পত্র, ব্যাংকিং বিষয়ক কাগজপত্র ইত্যাদি) হারিয়ে যায় এবং অন্যান্য কারণে আইনি সহায়তা নিতে চান তাহলে আপনারা একটি জিডি করতে পারেন। জিডি করার ক্ষেত্রে আপনারা চাইলে দুইটি উপায়ের মাধ্যমে জিডি করতে পারেন যেমনঃ

  • থানায় জিডি
  • অনলাইনে জিডি

উপরে দুইটি নিয়ম অনুসরণ করে জিডি করতে পারেন। আপনার নিকটে যদি কোন থানা থেকে থাকে তাহলে আপনারা খুব সহজে থানায় জিডি করতে পারবেন যেকোন সমস্যার সহযোগিতা পেতে।

আজকে আমরা জিডি সম্পর্কিত থানা এবং অনলাইনে কিভাবে জিডি করতে হয় এই বিষয়গুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। আশা করি আপনারা সবাই ধৈর্য সহকারে আমাদের এই আর্টিকেলটি পড়বেন।

থানায় জিডি করার নিয়ম

[ads1]​

সবগুলো কাজেরই নানা রকম নিয়ম থেকে থাকে। আপনারা কোন কাজে নিয়মের বাইরে করতে পারবেন না ঠিক তেমনি জিডি করার ক্ষেত্রে আপনাকে সাধারণ কিছু নিয়ম মেনে চলতে হবে। তো অনেকেই এই নিয়মগুলো না মানার কারণে তাদের নানা রকম ভোগান্তি হয় এবং সময় অপচয় হয়ে থাকে। আপনারা যদি এ নিয়মগুলো আগে থেকে জেনে নেন তাহলে পরবর্তীতে একটি জিডি তৈরি করতে বা জিডি জমা দিতে আপনাদের কোনো রকম সমস্যা হবে না। থানায় জিডি করতে যে নিয়মগুলো অনুসরণ করতে হয় তা দেখে নিনঃ

  1. থানায় জিডি করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে আপনার নিজের থানায় যদি করতে হবে। ধরুন, আপনি একটি জিনিস হারিয়ে ফেলেছেন, সে জায়গায় যদি কোনো থানা থাকে তাহলে সে থানায় জিডি করবেন।
  2. যে বিষয়টি নিয়ে জিডি করবেন সে বিষয় নিয়ে সুন্দরভাবে একটি বর্ণনা প্রদান করবেন।
  3. হারিয়ে যাওয়া জিনিসটি কখন কোথায় কিভাবে হারিয়ে গিয়েছে এই বিষয়টি জিডিতে উল্লেখ করতে ভুলবেন না।
  4. সুন্দরভাবে একটি আবেদন পত্র তৈরি করবেন। তবে মনে রাখবেন যে অবশ্যই আপনার হাতের লেখা যেন স্পষ্ট হয়।
  5. আপনার সাথে যোগাযোগ করার জন্য  যোগাযোগের মাধ্যম (মোবাইল নাম্বার বা বর্তমান ঠিকানা) উল্লেখ করবেন।

অনলাইনে থানায় জিডি করার নিয়ম

বর্তমান সবাই দেখা যায় আমরা নানা রকম কাজে ব্যস্ত থাকায় এবং থানায় নানা রকম জটিলতা এড়াতে অনলাইনের দিকে যেকোনো সমস্যায় ঝুকে পড়ি। তো আপনারা জেনে খুশি হবেন যে অনলাইনে আপনারা চাইলে খুব সহজে মাত্র পাঁচ মিনিটের মাধ্যমে জিডি করতে পারেন। তাই এখানে অনলাইনে কিভাবে জিডি করবেন বা অনলাইনে জিডি করার নিয়ম আলোচিত হলোঃ

অনলাইনে জিডি করার নিয়ম খুবই সহজ। আপনারা যে কেউ চাইলে মাত্র ৫ মিনিটের মাধ্যমে অনলাইনে জিডি করতে পারবেন। যে কোন বিষয় নিয়ে বর্তমান সময়ে আমরা যেকোনো সময় বা কোন কাজে আমরা অনলাইনের দিকে একটু বেশি ঝুঁকে পড়ি। অনলাইনে ঝুঁকে পড়ার নানারকম কারণ রয়েছে যেমনঃ আপনার ঘরে বসে যে কোন ধরনের কাজ করতে পারবেন এবং আপনারা ঘরে বসে কাজ করাতে সময় বাঁচবে এজন্য অনেকেই অনলাইনে যে কোন কাজ সুবিধা এবং গ্রহণযোগ্য মনে করে।

অনলাইনে জিডি করতে গেলে আপনাকে কিছু ধাপ মেনে কাজ করতে হবে। আমরা কিছু ধাপ আলোচনার মাধ্যমে অনলাইনে জিডি করার নিয়ম বিস্তারিত আলোচনা করব। আপনারা যদি এই ধাপগুলো মেনে আবেরন করেন তাহলে অবশ্যই খুব সহজে ৫ মিনিটের মাধ্যমে অনলাইনে জিডি করতে পারবেন বলে মনে করি।

অনলাইনে জিডি করতে রেজিস্ট্রেশন

এই ওয়েবসাইট বাংলাদেশ পুলিশের একটি অফিসিয়াল ওয়েবসাইট। যেখানে আপনি জিডি করতে পারবেন।

ধাপঃ- ১ প্রথমে আপনাকে নিচের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে।

অনলাইনে জিডি করার ওয়েবসাইট – https://gd.police.gov.bd

[ads1]​

অনলাইনে জিডি করার নিয়ম
অনলাইনে জিডি করার নিয়ম

ধাপঃ-২

ওয়েবসাইটে প্রবেশ করলে নিচের মতো একটি ইন্টারফেস দেখতে পাবেন। আপনাকে প্রথমে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। সে জন্য উপরে থাকা রেজিস্ট্রেশন বাটনে ক্লিক করার মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন শেষ করবেন।

অনলাইনের জিডি করার নিয়ম
অনলাইনের জিডি করার নিয়ম

ধাপঃ-৩

তারপর আপনার নিচের মত একটি ইন্টারফেস দেখতে পাবেন। এখানে আপনাকে বলা হবে তাদের একটি অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে একাউন্ট খুলতে। আপনারা তাদের অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করে একটি একাউন্ট খুলে নিবেন।

অনলাইনের জিডি করার জন্য মোবাইল এ্যাপ
অনলাইনের জিডি করার জন্য মোবাইল এ্যাপ

ধাপঃ- ৪

এই পর্যায়ে আপনার একাউন্ট খোলা হয়ে গেলে লগইন বাটনে ক্লিক করবেন।

ধাপঃ- ৫

লগইন বাটনে ক্লিক করলে নিচের মতো ইন্টারফেস দেখতে পাবেন। এখানে আপনার ইউজার নেম এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করে জিডি করার প্রধান ড্যাসবোর্ডে প্রবেশ করতে পারবেন।

[ads1]​

কিভাবে জিডি জমা দিবেন

জিডি জমা দিতে আপনাকে শুধুমাত্র তিনটি ধাপ অনুসরণ করতে হবে। নিচে তিনটি ধাপ নিয়ে আমরা বিস্তারিত আলোচনা করলাম যেন আপনারা ভালোভাবে বুঝেন।

ধাপঃ-১

এবার জিডি করার অপশন থেকে আপনারা জিডি করার যে ইন্টারফেস রয়েছে সেখানে চলে আসবেন।

আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র নাম্বার দিন।
এরপর আপনার জন্ম তারিখ দিন।
এরপর আপনার একটি সচল মোবাইল নাম্বার দিন।

তারপর আপনারা “জমা দিন” বাটনটিতে ক্লিক করে দিন।

ধাপঃ- ২

এবার আপনাকে নতুন একটি ইন্টারফেস নিয়ে আসা হবে এখানে আপনার জিডি সম্পর্কিত নানা রকম তথ্য চাওয়া হবে।

আপনি কিসের জন্য জিডি করতেছেন এ বিষয়টি আপনাকে এখানে নির্বাচন করতে হবে।
আপনি নিজের জন্য বা অন্য কারো জন্য জিডি করতেছেন কিনা সে বিষয়টি নির্বাচন করুন।
যে থানায় জিডি করবেন সেটি নির্বাচন করুন।

তারপর পরবর্তী বাটনে ক্লিক করুন।

ধাপঃ- ৩

এই ইন্টারফেস এ আপনাকে আরো জিডি সম্পর্কিত কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিতে হবে তো নিচে তথ্যগুলো সম্পর্কে পয়েন্ট করে দেওয়া হল।

এখানে আপনারা যে ভোটার আইডি কার্ডটির নাম্বার দিয়েছেন সে ভোটার আইডি কার্ড অনুযায়ী আপনার ঠিকানা ইত্যাদি তথ্যাদি অটোমেটিক পূরণ হয়ে গেছে।
এখানে আপনারা যদি কোন কিছু পরিবর্তন করতে চান তাহলে করতে পারেন।
জিডি সম্পর্কিত হারানো বস্তুটি নিয়ে আপনারা এখানে বিস্তারিতভাবে লিখতে পারেন। (কখন কোথায় কিভাবে হারিয়ে গিয়েছে) এ বিষয়গুলো নিয়ে।
আপনারা চাইলে এখানে জিডি সম্পর্কিত ফাইল আপলোড দিতে পারেন।
এখানে আপনার সিগনেচার এর একটি স্ক্যান কপি আপলোড দিতে হবে।

এবার সাবমিট বাটনে চাপ দিন।

তাহলে আপনার জিডিটি আবেদন করা হয়ে যাবে। এরপর আপনারা চাইলে লগইন করে আপনার জিডি সম্পর্কিত হালনাগাদ তথ্য দেখতে পাবেন।

থানায় জিডি করার নিয়ম

থানায় জিডি করার নিয়ম গুলো অত্যন্ত সহজ। আপনারা যে কেউ চাইলে খুব সহজে থানায় জিডি করতে পারবেন।

  1. প্রথমে আপনাকে আপনার থানা নির্বাচন করতে হবে। অর্থাৎ আপনি যে থানার অন্তর্ভুক্ত সে থানাতে আপনাকে জিডি করতে হবে
  2. জিডি করার ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই থানাতে উপস্থিত হতে হবে।
  3. আপনার বয়স অন্ততপক্ষে ১৮ বছরের উপরে হতে হবে। একটি জিডি করার ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে এই নিয়মটি মেনে চলতে হবে।
  4. তারপর আপনাকে থানায় একটি আবেদনপত্র জমা দিতে হবে। যেখানে আপনি পুলিশ ইনচার্জ এর উদ্দেশ্যে একটি আবেদন পত্র লিখবেন এবং আপনার জিডি সম্পর্কিত তথ্যাবলী এখানে অন্তর্ভুক্ত করবেন।
  5. এরপর থানায় গিয়ে এই আবেদনপত্র টি জমা দিয়ে আসবেন এবং থানায় প্রতিনিয়ত যোগাযোগ রাখার চেষ্টা করবেন আপনার জিডি সম্পর্কিত হালদার তথ্য পাওয়ার জন্য।

জিডির আবেদন পত্র লেখার নিয়ম

আবেদন পত্র লেখার নিয়মটি অত্যন্ত সহজ। আপনারা হয়তো ইতিমধ্যে নানা রকম আবেদন পত্র লিখে অভ্যস্ত হয়েছেন আমাদের এ ব্যাপারে পাঠ্যপুস্তকে নানা রকম বিষয়বস্তু অন্তর্ভুক্ত হয়েছে এবং আমাদেরকে আবেদন পত্র লেখার নিয়মটি শেখানো হয়েছে।

তা আপনারা চাইলে জিডির আবেদন পত্র লেখার যে নিয়ম কানুন রয়েছে সাধারণ আবেদন পত্র লেখার নিয়ম কানুনের সাথে মিলে লিখতে পারেন।

  1. আপনাকে আবেদন পত্রটি পুলিশ ইনচার্জ এর উদ্দেশ্যে লিখতে হবে।
  2. আপনার পরিচয় অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।
  3. আপনারা যে বিষয়টির উপর জিডি করবেন সে বিষয়টি এর উপর বিস্তারিত তথ্য লিখবেন।
  4. আপনার সাথে যোগাযোগ করার জন্য কন্টাক্ট নাম্বার ঠিকানা ইত্যাদি দিতে পারেন।
    .

জিডির আবেদন পত্রের নমুনা

তারিখঃ ( যেদিন আবেদন করবেন সেই তারিখ)

বরাবর,

অফিসার ইনচার্জ

(আপনার থানার নাম)………………..থানা, রাজশাহী।

বিষয় : সাধারণ ডায়েরি ভুক্তি/ জিডি করার জন্য আবেদন।

জনাব/ স্যার,

আমি নাম: …………………………………(আবেদনকারীর নাম)
বয়স : ………………………………………………………(আবেদনকারীর বয়স)
পিতা/স্বামী : ………………………………………………..(আবেদনকারীর পিতা / স্বামীর নাম)
ঠিকানা : …………………………………………………….( আবেদনকারীর ঠিকানা)

( এখানে আপনার হারানো বিষয়ে একটি ছোট বিবরণ দিবেন যে কোন প্রেক্ষাপটে আপনার জিনিসটা হারিয়ে গেছে )

বিষয়টি থানায় অবগতির জন্য সাধারণ ডায়েরিভুক্ত করার অনুরোধ করছি।

বিনীত

নাম: (আবেদনকারীর নাম)

ঠিকানা: ( আবেদনকারীরঠিকানা)

মোবাইল নম্বর: ( আবেদনকারীর মোবাইল নম্বর)

মোবাইল হারিয়ে গেলে জিডি করার নিয়ম

আমাদের অনেক সময় অসাবধানতার বশতঃ প্রয়োজনীয় মোবাইল ফোনটি হারিয়ে যায়। আমাদের বর্তমান সময়ের মোবাইল ফোন খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি জিনিস তা আপনি যদি কখনো মোবাইল ফোন হারিয়ে ফেলেন তাহলে কিন্তু আপনারা জিডির মাধ্যমে থানায় বিষয়টি অবহিত করতে পারেন এবং এখানে আপনারা আইনি সহায়তা পেতে পারেন।

মোবাইল ফোন হারিয়ে গেলে আপনাদেরকে একটি জিডির আবেদন পত্র থানায় জমা দিতে হবে। নিচে আবেদন পত্রের একটি নমুনা দেওয়া হলোঃ

মুনা আবেদন পত্র (মোবাইল হারিয়ে গেলে জিডির আবেদন করার জন্য উপরে জিডির নমুনা আবেদন পত্র দেখে নিন।)

মোবাইল হারিয়ে গেলে জিডি করার নিয়ম
মোবাইল হারিয়ে গেলে জিডি করার নিয়ম

সংযুক্তি হিসেবে আপনার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র যুক্ত করে দিন।

  1. আপনার হারিয়ে যাওয়া মোবাইল ফোনটির আইএমই (IME) কোডটির একটা কপি ফটোকপি করে সংযুক্ত করবেন।
  2. আপনার মোবাইল ফোনটি কখন কোথায় কিভাবে হারিয়ে গেছে তার নিখুঁতভাবে বিবরণ আকারে দিবেন।
  3. আপনার মোবাইল ফোনটি কখন কিনেছেন কোথায় কিনেছেন এই বিষয়গুলো দিলেও ভালো হয়।

সার্টিফিকেট হারিয়ে গেলে জিডি করার নিয়ম

[ads1]​

সার্টিফিকেট কতটুকু গুরুত্বপূর্ণ আপনারা সবাই জানেন। তো আপনার কখনো যদি সার্টিফিকেট হারিয়ে যায় তাহলে আপনারা জিডি করার মাধ্যমে খুব সহজে সার্টিফিকেট ফিরে পেতে আইনি সহায়তা পেতে পারেন।

আপনি চাইলে থানায় বা অনলাইনে যে কোন মাধ্যমে জিডি করতে পারেন। থানায় জিডি করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে একটি আবেদন পত্র লিখতে হবে। তো নিচে আমরা জিডি আবেদন পত্রের নমুনা দিয়ে রাখলাম আপনাদের সুবিধার্থে।

নমুনা পত্র

সার্টিফিকেট হারিয়ে গেলে জিডি করার নিয়ম
সার্টিফিকেট হারিয়ে গেলে জিডি করার নিয়ম

সংযুক্তি

সার্টিফিকেটের ফটোকপি যদি থাকে সেটি কপি সহকারে জিডির সাথে অন্তর্ভুক্ত করবেন।
আপনার সার্টিফিকেটের বিবরণ সহ ছোট্ট একটি বিবরণ জিডিতে অন্তর্ভুক্ত করবেন।
কোথায় কিভাবে হারিয়ে গিয়েছে সে বিষয়টি উল্লেখ করবেন।

পাসপোর্ট হারিয়ে গেলে জিডি করার নিয়ম

পাসপোর্ট আমাদের খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। আপনাদের যদি কারো পাসপোর্ট হারিয়ে যায় তাহলে আপনারা আপনাদের অন্তর্গত থানায় একটি জিডি করার মাধ্যমে পাসপোর্ট ফিরে পেতে আইনি সহায়তা পেতে পারেন।

[ads1]​

আপনার যে কোন ভাবে জিডি করতে পারেন সেটি হোক অনলাইন বা থানায় গিয়ে। জিডি করার ক্ষেত্রে আপনাকে একটি বিষয় মানতে হবে সেটি হল একটি আবেদনপত্র তৈরি করতে হবে। আপনারা এই বিষয়টি সম্পর্কে আগে জেনেছেন। তো জিডি আমরা কি নমুনা দিয়ে দিলাম আপনারা নমুনা অনুযায়ী একটা আবেদনপত্র তৈরি করবেন।

নমুনা পত্র

পাসপোর্ট হারিয়ে গেলে জিডি করার নিয়ম
পাসপোর্ট হারিয়ে গেলে জিডি করার নিয়ম

সংযুক্ত

পাসপোর্টে যদি পুরনো কোন কপি থেকে সেহেতু আপনারা জিডির সাথে সেই কপিটা অন্তর্ভুক্ত করবেন।
আর পাসপোর্টটি কোন দেশের অন্তর্ভুক্ত এ বিষয়টি সম্পর্কে আপনারা জিডি অন্তর্ভুক্ত করবেন।
কোথায় কিভাবে আপনার পাসপোর্ট হারিয়ে গিয়েছে এ বিষয়ে সম্পর্কে জিডিতে স্পষ্ট ধারণা দিবেন।

আইডি কার্ড হারিয়ে গেলে জিডি করার নিয়ম

আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র যদি হারিয়ে যায় তাহলে আপনারা জিডি করতে পারেন এতে করে আপনার জিডি আপনারা আইডি কার্ডটি ফিরে পেতে পারেন।

[ads1]​

নিচে আমরা জিডির আবেদন পত্র দেখি নমুনা ছক আপনাদের মাঝে তুলে ধরলাম যাতে করে আপনারা খুব সহজে আইডি কার্ড হারিয়ে গেলে জিডি করতে পারেন।

নমুনা পত্র

আইডি কার্ড হারিয়ে গেলে জিডি করার নিয়ম
আইডি কার্ড হারিয়ে গেলে জিডি করার নিয়ম

সংযুক্ত

আইডি কার্ডের একটি ফটোকপি আপনারা জিডির সাথে অন্তর্ভুক্ত করবেন।
কোথায় কিভাবে আইডি কার্ডটি হারিয়ে গিয়েছে তার একটি বিবরণ দিবেন।

শেষ কথা

এতক্ষণ আমরা জিডি করার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। কিভাবে অনলাইনে জিডি করবেন সম্পর্কে কোনো অভিযোগ থাকে তাহলে কমেন্ট বক্সে একটা জিডি করবেন। ধন্যবাদ সবাইকে।